Home /News /kolkata /
CBI: গরু পাচার মামলায় এবার বীরভূমের দুই ব্যবসায়ীকে তলব, কী ভূমিকা তাঁদের?

CBI: গরু পাচার মামলায় এবার বীরভূমের দুই ব্যবসায়ীকে তলব, কী ভূমিকা তাঁদের?

এবার সিবিআই-এর নজরে বীরভূমের দুই ব্যবসায়ী৷

এবার সিবিআই-এর নজরে বীরভূমের দুই ব্যবসায়ী৷

গত সপ্তাহে এই গরু পাচার মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে অনুব্রত মণ্ডলের দেহরক্ষী সায়গল হোসেনকে।

  • Share this:

#অমিত সরকার, কলকাতা: গরু পাচার মামলায় এবার বীরভূমের দুই ব্যবসায়ীকে তলব করল সিবিআই। চলতি সপ্তাহে ব্যবসা সংক্রান্ত নথি ও আয় কর, ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের তথ্য এবং নথি নিয়ে হাজিরার নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা।

সিবিআই সূত্রে খবর, বীরভূমের বিভিন্ন প্রান্তে চলা গরুর হাটের ব্যবস্থাপনায় এই দুই ব্যবসায়ী যুক্ত ।  এনামূল হক সহ এই মামলায় বেশ কয়েকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করে এই দুই ব্যবসায়ী সম্পর্কে তথ্য হাতে পায় সিবিআই।

সূত্রের খবর, গত সপ্তাহে ধৃত সায়গলকে জেরা করার সময় এই দুই ব্যবসায়ী সম্পর্কে তথ্য মিলিয়ে দেখা হয়েছে। তাতে পাচারকারীদের সঙ্গে ওই দুই ব্যবসায়ীর যোগ পাওয়া গিয়েছে। মূলত বীরভূমের বিভিন্ন গরুর হাটে লেনদেন সুষ্ঠু ভাবে যাতে করতে পারেন পাচারকারীরা, সেই ব্যবস্থা করে দেওয়ার দায়িত্ব ছিল এই দু’জনের উপরে, এমনই তথ্য উঠে এসেছে তদন্তে। সেক্ষেত্রে মোটা টাকার বিনিময়ে মধ্যস্থতাকারী হিসেবেও কাজ করেছে এই দুই ব্যবসায়ী, জানতে পেরেছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী দল।

আরও পড়ুন: একসঙ্গে চাকরি গেল ২৬৯ জন শিক্ষকের, প্রাথমিক টেট দুর্নীতিতেও সিবিআই নির্দেশ হাইকোর্টের

বেআইনি লগ্নিতেও এদের যথেষ্ট ভূমিকা রয়েছে বলেই মনে করছেন তদন্তকারীরা। কারণ গরুর হাটের ব্যবস্থা করতে গিয়ে অনেক প্রভাবশালীর সংস্পর্শে এসেছেন দুই ব্যবসায়ী। তাই এদের জিজ্ঞাসাবাদ করে সেই সমস্ত প্রভাবশালীর দরজায় পৌঁছতে চাইছে সিবিআই।

গত সপ্তাহে এই গরু পাচার মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে অনুব্রত মণ্ডলের দেহরক্ষী সায়গল হোসেনকে। তাঁকে নিজেদের হেফাজতে রেখে জেরা করছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। এর আগে অনুব্রত মণ্ডল ঘনিষ্ঠ এক ব্যবসায়ী তথা রাইস মিল মালিককে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে সিবিআই। কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার মুখোমুখি হয়েছেন অনুব্রত মণ্ডল নিজেও। সব মিলিয়ে পাচার মামলায় জোর কদমে নেমেছে সিবিআই।

সূত্রের খবর, বীরভূম জেলার দুই ইন্সপেক্টরও তলব করতে চলেছে সিবিআই। মূলত, এখনও পর্যন্ত তদন্তে যা যা উঠে এসেছে, তাতে বীরভূমের মাটি ব্যবহার করে ঝাড়খণ্ড থেকে গরু ঢুকেছে মুর্শিদাবাদ ও মালদহে। সেখান থেকে আবার পৌঁছে গিয়েছে বাংলাদেশে। আর এই পাচারে সাহায্য করেছে বিএসএফ ও রাজ্য পুলিসের একাংশ, অভিযোগ এমনই।

Published by:Debamoy Ghosh
First published:

Tags: Anubrata Mondal, CBI

পরবর্তী খবর