৭ মে চার নেতাকে গ্রেফতারির অনুমোদন দেন রাজ্যপাল, জানালো সিবিআই

নারদা কাণ্ডে ধৃত চার নেতা৷

দিল্লিতে সিবিআই-এর মুখপাত্র আর সি যোশী জানান, কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশেই ২০১৭ সালের ১৬ এপ্রিল নারদ কাণ্ডে (Narada Scam) তদন্ত শুরু করেছিল কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা৷

  • Share this:

    #কলকাতা: গত ৭ মে রাজ্যের দুই মন্ত্রী সহ চার নেতাকে গ্রেফতারের আবেদনে অনুমোদন দিয়েছিলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়৷ এ দিন সিবিআই-এর তরফে বিবৃতি দিয়েই এ কথা জানানো হয়েছে৷ যদিও রাজ্যপালের এই অনুমোদন বেআইনি বলে দাবি করেছে তৃণমূল কংগ্রেস৷

    নারদ কাণ্ডে আজই রাজ্যের দুই মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম এবং সুব্রত মুখোপাধ্যায়কে গ্রেফতার করে সিবিআই৷ একই সঙ্গে গ্রেফতার করা হয় কামারহাটির বিধায়ক মদন মিত্র এবং প্রাক্তন বিধায়ক শোভন চট্টোপাধ্যায়কে৷ যা নিয়ে উত্তাল হয়ে উঠেছে রাজ্য রাজনীতি৷ সিবিআই-এর ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছে রাজ্যের শাসক দল৷ অভিযোগ, রাজ্য বিধানসভার অধ্যক্ষের অনুমতি না নিয়েই বিধানসভার সদস্যদের গ্রেফতার করা হয়েছে৷

    এর পরই দিল্লিতে সিবিআই-এর মুখপাত্র আর সি যোশী জানান, কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশেই ২০১৭ সালের ১৬ এপ্রিল নারদ কাণ্ডে তদন্ত শুরু করেছিল কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা৷ তদন্ত শেষ হওয়ার অভিযুক্ত জনপ্রতিনিধিদের গ্রেফতার করার অনুমতি চেয়ে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের কাছে অনুমতি চেয়ে আবেদন করা হয়৷ গত ৭ মে সেই অনুমোদন দিয়েছেন রাজ্যপাল৷

    সিবিআই-এর বিবৃতিতে অভিযোগ করা হয়েছে, নারদা স্টিং অপারেশনের ভিডিও-তে ফিরহাদ হাকিম, সুব্রত মুখোপাধ্যায় এবং মদন মিত্রের বিরুদ্ধে ৫ লক্ষ টাকা করে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ করা হয়েছে৷ কলকাতার তৎকালীন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে বেআইনি ভাবে ৪ লক্ষ টাকা নেওয়ার অভিযোগ করেছে সিবিআই৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: