• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • CALCUTTA HIGH COURT REJECT WEST BENGAL GOVERNMENT PLEA TO RETHINK POST POLL VIOLENCE VERDICT SB

Post Poll Violence: 'আশ্বাসে আর আদালতের ভরসা নেই', ভোট পরবর্তী হিংসায় ফের ধাক্কা রাজ্যের

ফের চাপ বাড়ল সরকারের

Post Poll Violence: ১৮ জুনের সেই নির্দেশের পরই পুনর্বিবেচনার আর্জি নিয়ে বৃহত্তর বেঞ্চের দ্বারস্থ হয়েছিল রাজ্য। কিন্তু তাতে কোনও লাভ হল না রাজ্যের।

  • Share this:

    #কলকাতা: চাপ বাড়ল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের। ভোট পরবর্তী অশান্তি নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশ পুনর্বিবেচনার আর্জি জানিয়ে বৃহত্তর বেঞ্চে আবেদন জানিয়েছিল রাজ্য সরকার। কিন্তু এদিন সেই আবেদন খারিজ করে দিল হাইকোর্টের পাঁচ বিচারপতির বেঞ্চ। ভোট পরবর্তী অশান্তি নিয়ে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনকে পুরো পরিস্থিতি খতিয়ে দেখে রিপোর্ট পেশ ও তদন্তের নির্দেশ দিয়েছিল হাইকোর্ট। গত ১৮ জুনের সেই নির্দেশের পরই পুনর্বিবেচনার আর্জি নিয়ে বৃহত্তর বেঞ্চের দ্বারস্থ হয়েছিল রাজ্য। কিন্তু তাতে কোনও লাভ হল না রাজ্যের। নির্দেশ অনুযায়ী, ১৮ তারিখের নির্দেশই বহাল থাকবে বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছে বৃহত্তর বেঞ্চ।

    শুধু তাই নয়, পুনর্বিবেচনার আর্জি জানানোর কারণে নতুন করে রাজ্য সরকারকে তীব্র ভর্ৎসনা করেন ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি রাজেশ বিন্দল। এদিন শুনানির শুরুতেই রাজ্য আদালতে একটি তালিকা পেশ করে জানায়, ভোট পরবর্তী হিংসার প্রেক্ষিতে কী কী ব্যবস্থা নিয়েছে রাজ্য সরকার, কতজনকে ঘরে ফেরানো হয়েছে। তা শুনেই প্রধান বিচারপতি বলেন, 'এখন রিপোর্ট চাই না। তদন্তের গতিপ্রকৃতি মোটেই সন্তোষজনক নয়। পুলিশ এফআইআরই দায়ের করেনি। রাজ্য সরকারের তরফে স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। হিংসা নিয়ে এত লুকোচুরি কেন?রাজ্যের আশ্বাসে আদালতের ভরসা নেই। আগের নির্দেশই তাই বহাল রাখা হচ্ছে।'

    প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার শুনানি শেষে ভোট পরবর্তী অশান্তি নিয়ে রাজ্য সরকারের সমালোচনা করে প্রয়োজনে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের প্রতিনিধিদের রাজ্যে এসে পরিস্থিতি খতিয়ে দেখার কথাও বলেছে আদালত। ভোট পরবর্তী অশান্তির অভিযোগে এন্টালির পরাজিত বিজেপি প্রার্থী প্রিয়ঙ্কা টিবরেওয়াল-সহ একাধিক ব্যক্তি কলকাতা হাইকোর্টে মামলা দায়ের করেন। শুক্রবার সেইসব মামলার একত্রে শুনানি হয় কলকাতা হাইকোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতির বেঞ্চে। আর তাতেই রাজ্যকে ভর্ৎসনা করেন প্রধান বিচারপতি। ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি আরও বলেন, নির্যাতন শুধুমাত্র শারীরিকভাবে করা হচ্ছে না, মনে রাখতে হবে মানুষকে কাজের সুযোগ থেকে বঞ্চিত করলেও, তাঁর মৌলিক অধিকার হরণ করা হয়।

    এর আগে এন্টালিতে ভোটের পর ঘরছাড়াদের ঘরে ফেরানোর জন্য ৩ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করেছিল কলকাতা হাইকোর্ট। সেই কমিটিতে ছিলেন জাতীয় ও রাজ্য মানবাধিকার কমিশনের সদস্য এবং স্টেট লিগাল সার্ভিসেস অথরিটির একজন প্রতিনিধি ছিলেন। সেই কমিটির রিপোর্টও ওইদিন জমা পড়েছিল আদালতে। এরপরই রাজ্যের বিভিন্ন এলাকা প্রয়োজনে সরেজমিনে খতিয়ে দেখার কথাও জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের উদ্দেশে বলেন প্রধান বিচারপতি। তারই প্রেক্ষিতে রায় পুনর্বিবেচনার আর্জি জানিয়েছিল রাজ্য সরকার। কিন্তু তা এদিন খারিজ করে দিল কলকাতা হাইকোর্ট।

    Published by:Suman Biswas
    First published: