Home /News /kolkata /
Calcutta High Court: স্কুলে ঢুকতে পারবেন না প্রধান শিক্ষক, বেনজির রায়ের পর এবার যা করতে চলেছেন কালীচরণ সাহা...

Calcutta High Court: স্কুলে ঢুকতে পারবেন না প্রধান শিক্ষক, বেনজির রায়ের পর এবার যা করতে চলেছেন কালীচরণ সাহা...

কঠোর নির্দেশ হাই কোর্টের

কঠোর নির্দেশ হাই কোর্টের

Calcutta High Court: হাই কোর্টের সিঙ্গেল বেঞ্চের সেই রায়ের বিরুদ্ধে ডিভিশন বেঞ্চে যেতে চলেছেন পদ হারানো প্রধান শিক্ষক কালীচরণ সাহা।

  • Share this:

#কলকাতা: জেলা স্কুল পরিদর্শককে ভুল তথ্য দেওয়া, মধ্যশিক্ষা পর্ষদকে অন্ধকারে রাখা, ১৩ মাস শিক্ষিকাকে স্কুলে যোগদান না করিয়ে হেনস্তা করা, সব মিলেমিশে পদ গিয়েছে প্রধান শিক্ষকের। কলকাতা হাই কোর্টের বিচারপতি (Calcutta High Court) অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের কড়া পদক্ষেপে বেরিয়ে এল স্কুলে দুর্নীতি ও জমিদারি আচরণের ঘটনা। ঘটনাটি ঘটেছে রায়গঞ্জ করোনেশন স্কুল। আদালতের কঠোর নির্দেশে সেখানকার প্রধান শিক্ষক হিসেবে আর কাজ করতে পারবেন না কালীচরণ সাহা। হাই কোর্টের সিঙ্গেল বেঞ্চের সেই রায়ের বিরুদ্ধে ডিভিশন বেঞ্চে যেতে চলেছেন পদ হারানো প্রধান শিক্ষক কালীচরণ সাহা।

এদিকে, দীর্ঘ ১৩ মাসের লড়াই শেসে সুবিচার পেলেন শিক্ষিকা সংযুক্তা রায়। একে তো বেতন নেই, তার উপর মামলার খরচ চালানো, আর্থিক সমস্যায় পড়ে গেছিলেন ওই শিক্ষিকা। স্বামী রসায়নের শিক্ষক। তার বেতনেই এতদিন সব সামলাতে হত। ছোট ফ্ল্যাটে থাকেন, কিছু দিন আগে সেখানে উঠেছেন তিনি। তার ভাড়াও সামলাতে হত।

আরও পড়ুন: ক্রেতা সেজে ঢুকল অফিসাররা, মালদহের এক বাড়ি থেকে যা বেরোল, অবিশ্বাস্য!

প্রসঙ্গত, হাইকোর্টের (Calcutta High Court) নির্দেশে আজ থেকে স্কুলে ঢোকা বন্ধ প্রধান শিক্ষকের। এমনকি কোনও কাগজপত্রে সই পর্যন্ত করতে পারবেন না তিনি। নিজের ভুলের জন্য আদালতে ক্ষমা চান প্রধান শিক্ষক কিন্তু বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় বলেন, স্কুলে হেডমাস্টারদের জমিদারি চলছে। রায়গঞ্জ করোনেশন স্কুলের শিক্ষক মহিদূর আলমকে ২০০০০ টাকা জরিমানা দিতেও নির্দেশ দেয় একক বেঞ্চ। বোর্ডের কাছে তথ্য গোপন করায় এই জরিমানার নির্দেশ দেয়।

আরও পড়ুন: ফের শিরোনামে আসারাম বাপুর সেই আশ্রম, এবার যা পেল পুলিশ, তীব্র চাঞ্চল্য!

শিক্ষিকা সংযুক্তা রায়ের পাওনা ১৩ মাসের বেতন বাবদ প্রায় ৭.৫ লক্ষ টাকা প্রধান শিক্ষক ও ২ ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষককে দিতে নির্দেশ দিয়েছে আদালত। খুনে অভিযুক্ত ওই স্কুলের শিক্ষক মহিদূর আলমকে নতুন করে স্কুলে যুক্ত হওয়ার সিদ্ধান্ত খারিজ আদালতের নির্দেশে (Calcutta High Court) । ডিআইকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে শিক্ষিকা সংযুক্তা রায়কে মহিদূর আলমের জায়গায় নিযুক্ত করতে। মামলাকারী শিক্ষিকা সংযুক্তা রায় বদলি চেয়ে কোর্টের দ্বারস্থ হন (Head Master Stopped from Entering school)। ডিআই এর নির্দেশ পরেও ১৩ মাস তাঁকে স্কুলে যোগদান করতে দেওয়া হয়নি। বেতনও পাননি তিনি।

Published by:Suman Biswas
First published:

Tags: Calcutta High Court

পরবর্তী খবর