• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • সন্তান আর নেই, ১০ দিন বাদে জানাল হাসপাতাল! ঘটনায় দোষ প্রমাণ হলে রেয়াত নয় মন্তব্য হাইকোর্টের

সন্তান আর নেই, ১০ দিন বাদে জানাল হাসপাতাল! ঘটনায় দোষ প্রমাণ হলে রেয়াত নয় মন্তব্য হাইকোর্টের

File Photo

File Photo

হাসপাতালে ভর্তির পর থেকে শিশুকে দেখার জন্য হন্যে বাবা। ১০ দিন পর সদ্যোজাতর মৃত্যুর খবর পায় পরিবার। মামলা গড়ায় আদালত পর্যন্ত,....

  • Share this:

    #কলকাতা: আর জি করে শিশু মৃত্যুর ১০ দিন পর পরিবারকে খবর। এমন অভিযোগে হাইকোর্টে মামলা. আর তাতেই হাইকোর্টের ক্ষোভ প্রকাশ। দোষ প্রমাণ হলে কাউকে রেয়াত নয়। শিশু বদলের অভিযোগও উড়িয়ে দেওয়া যায় না। মন্তব্য বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের। রাজ্যের রিপোর্ট তলব। হাসপাতালে ভর্তির পর থেকে শিশুকে দেখার জন্য হন্যে বাবা। ১০ দিন পর সদ্যোজাতর মৃত্যুর খবর পায় পরিবার। মামলা গড়ায় আদালত পর্যন্ত, ১২ জুন চন্দননগর মহকুমা হাসপাতালে পুত্র সন্তানের জন্ম  দেন দেবযানী মণ্ডল। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় ১৩ জুন সদ্যোজাতকে আর জি করে রেফার। চন্দননগর মহকুমা হাসপাতালেই চিকিৎসাধীন ছিলেন মা। অ্যাম্বুল্যান্সে সদ্যোজাতকে আর জি করে নিয়ে আসেন বাবা বাবুন মণ্ডল। তাঁর দাবি, বারবার আবেদন করার পরও, সদ্যোজাতকে দেখতে দেয়নি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। ১২ জুন চন্দননগর মহকুমা হাসপাতালে পুত্র সন্তানের জন্ম হয় ৷ ১৩ জুন সদ্যোজাতকে আর জি করে রেফার করা হয় ৷ চন্দননগর মহকুমা হাসপাতালেই চিকিৎসাধীন ছিলেন মা ৷ অ্যাম্বুল্যান্সে সদ্যোজাতকে আর জি করে নিয়ে আসেন বাবা ৷ ২৫ জুন সদ্যোজাতর মৃত্যুর খবর জানতে পারে পরিবার। তাঁদের দাবি, ১০  দিন আগেই, ১৫ জুন শিশুর মৃত্যু হয়েছে বলে জানায় হাসপাতাল। ২৫ জুন সদ্যোজাতর পচাগলা দেহ পরিবারকে দেওয়া হয়। পরিবারের দাবি, হাসপাতালে শিশু বদল হয়েছে। সন্তান ফেরত পেতে চেয়ে হাইকোর্টে হেভিয়াস করপাস মামলা দায়ের করে পরিবার। বৃহস্পতিবার বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় ও কৌশিক চন্দের ডিভিশন বেঞ্চে মামলার ভার্চুয়াল শুনানি হয়। অ্যাডভোকেট জেনারেল কিশোর দত্তর উদ্দেশে বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্তব্য, শিশু মৃত্যুর ঘটনায় কোনও অন্যায় থাকলে, কাউকে রেয়াত করবে না আদালত। পরিবারের  শিশু বদলের অভিযোগ উড়িয়ে দেওয়া যায় না। পরিবারের প্রশ্ন, কেন ১০ দিন পর মৃত্যুর খরব দিল হাসপাতাল?বDNA পরীক্ষার দাবি সদ্যোজাতর পরিবারের। ৭ জুলাইয়ের মধ্যে রাজ্যের রিপোর্ট তলব করেছে বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চ।

    Published by:Elina Datta
    First published: