• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • ১৫ জানুয়ারি থেকে বিজেপির যুব মোর্চাকে র‍্যালি, অনুমতি আদালতের

১৫ জানুয়ারি থেকে বিজেপির যুব মোর্চাকে র‍্যালি, অনুমতি আদালতের

File Photo

File Photo

১৫ জানুয়ারি থেকে বিজেপির যুব মোর্চাকে র‍্যালি, অনুমতি আদালতের

  • Share this:

    #কলকাতা: ১৫ জানুয়ারি থেকে বিজেপির র‍্যালি। বিজেপির যুব মোর্চাকে র‍্যালির অনুমতি দিল হাইকোর্ট। র‍্যালি ঘিরে ধুন্ধুমার। দফায় দফায় গন্ডগোল-সংঘর্ষ। ঘটনার জেরে বিশেষ শুনানি শুরু হয় হাইকোর্টে। সেখানেও যুক্তি-পালটা যুক্তি পালা। শেষে ১৫ জানুয়ারি থেকে র‍্যালির অনুমতি দিল হাইকোর্ট। র‍্যালি ঘিরে নিরাপত্তা দিতেও পুলিশকে নির্দেশ ডিভিশন বেঞ্চের।

    বিজেপি যুব মোর্চার র‍্যালি ঘিরে জোড়াসাঁকো ও সেন্ট্রাল অ্যাভেনিউতে র‍্যালি ঘিরে দফায় দফায় গন্ডগোল-সংঘর্ষ। আহত হন হাইকোর্ট নিযুক্ত স্পেশাল অফিসার রবিশঙ্কর দত্ত ৷ বিজেপি সমর্থকদের বিরুদ্ধে তাঁর গাড়িতে হামলার অভিযোগ ৷ কলাবাগানের কাছে তাঁর গাড়ি ভাঙচুর করা হয় ৷ হামলায় আক্রান্ত স্পেশাল অফিসার রবিশঙ্কর দত্ত ৷

    তারপরই ডিভিশন বেঞ্চের নির্দেশ মেনে র‍্যালি এদিনের বন্ধ করার নির্দেশ দেয় স্পেশাল অফিসার। বল গড়ায় হাইকোর্টে।

    দুপুর ১২ টা আদালতে অভিযোগ বিজেপির দুপুর ১.১৫ স্পেশাল অফিসারকে ডেকে পাঠালেন বিচারপতি দুপুর ২.০০ শুনানি শুরু ডিভিশন বেঞ্চে রাজ্য ও যুব মোর্চার একে অপরের বিরুদ্ধে নালিশ স্পেশাল অফিসারের থেকে ঘটনা জানতে চাইলেন অস্থায়ী প্রধান বিচারপতি

    নিজের অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন স্পেশাল অফিসার। সকাল ১১ টায় সেন্ট্রাল অ্যাভেনিউ থেকে শুরু হয় র‍্যালি। ১০০ মতো বাইক ছিল। মহম্মদ আলি পার্ক পেরতেই আমার গাড়ি আক্রান্ত হয়। একদল মানুষ আমার গাড়ি আক্রমণ করে। গাড়ির কাচের টুকরো ছড়িয়ে পড়ে আমার শরীরে। কাচের আঘাতেই আমার ডানহাত থেকে অল্পবিস্তর রক্তপাত হয়। পরিস্থিতি বেগতিক বুঝে হাইকোর্টের নির্দেশ মেনে আজকের মত র‍্যালি স্থগিত থাকার নির্দেশ দিই।

    পালটা সওয়াল করেন অ্যাডভোকেট জেনারেল ৷ তিনি বলেন, বাইক মিছিলের জন্য একজন সহকারী কমিশনার, দুজন ইন্সপেক্টর ছিলেন। বাইক মিছিলে কী হয়েছে তার ভিডিও ফুটেজ আছে। সেগুলো আদালত দেখুক।’

    দুবার ভিডিও ফুটেজ দেখলেও আপত্তি্কর কিছু পাননি বলেই জানান বিচারপতিরা। ফের শুরু হয় আইনি যুদ্ধ। অ্যাডভোকেট জেনারেল বলেন, আদালত নিযুক্ত স্পেশাল অফিসারের সঙ্গে বিজেপি নেতা মুকুল রায় কী করছেন? এটা কী স্পেশাল অফিসারের কাজ?

    এরপর কলকাতা হাইকোর্ট বলে, মিছিলে কারা থাকবে বা থাকবে না, তা ডিভিশন বেঞ্চ নির্দিষ্ট করে দেয়নি। শনিবার বাইক মিছিল শুরু হলে তার কি শান্তিপূর্ণ ব্যবস্থাপনা করতে পারবে রাজ্য? যদি তা না পারে, বিকল্প কিছু ভাববে আদালত।

    স্পেশাল অফিসার নিয়ে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ তোলায় বাইক মিছিলের দায়িত্বে থাকা জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটকে তলব করে হাইকোর্ট। ফের শুরু হয় আইনি লড়াই।

    অ্যাডভোকেট জেনারেল জানান, ১৪ জানুয়ারি মকরস্নান। ১৬ তারিখের আগে বাইক মিছিলে অনুমতি বা ব্যবস্থা করতে পারবে না রাজ্য। ১৩ ও ১৪ জানুয়ারি কোনও অবস্থাতেই সম্ভব নয় অনুমতি দেওয়া।

    শেষপর্যন্ত ১৫ তারিথ থেকেই র‍্যালি শুরুর অনুমতি ডিভিশন বেঞ্চের। র‍্যালিতে নিরাপত্তার ব্যবস্থাও করবে রাজ্য সরকার।

    First published: