corona virus btn
corona virus btn
Loading

কুমোরটুলিতে অল্প হলেও আসছে বায়না!‌ পুজোর ঢাকে কাঠি পড়ছে কলকাতায়

কুমোরটুলিতে অল্প হলেও আসছে বায়না!‌ পুজোর ঢাকে কাঠি পড়ছে কলকাতায়

কুমোরটুলি বলছে, একসময়ে মনে হয়েছিল, করোনা-আবহে মনে হয় দুর্গাপুজো এবার আর হবেই না। রথের পরে এটা অন্তত মনে হয়েছে, এ বারেও জাঁকজমক না থাকলেও দুর্গাপুজো অন্তত হবে

  • Share this:

রথের চাকা গড়াতেই অন্য বার দুগ্গাপুজোর ঢাকে কাঠি পড়ে। করোনা-আবহে এবার আর তা হওয়ার অবকাশ নেই। করোনা আর লকডাউনের জেরে এবার পুজোর বাজারে ভাঁটা। কলকাতার কুমোরটুলিতেও তাই বায়নাদারদের গিজগিজে ভিড় নেই।

তবে এর মধ্যেও রথ আসতেই অন্যবারের সেই রমরমা না ফিরলেও অল্প হলেও কুমোরটুলির মন্দা বাজারে খানিক জোয়ার এসেছে। অল্প অল্প করে হলেও পুজো কমিটির লোকেরা কুমোরটুলি-মুখো হচ্ছেন। পুজো কমিটির কর্তাদের বক্তব্য, ‘‌এ বার যা বাজারের অবস্থা, তাতে থিম পুজো বা জাঁকজমকের কোনও সম্ভাবনাই নেই। কিন্তু মায়ের পুজো একেবারে হবে না, তা তো আর হতে পারে না। সেটা তো হবেই। কাজেই মায়ের পুজো করতে গেলে নিদেন পক্ষে মূর্তি তো গড়তে দিতেই হবে। সে জন্যই কুমোরটুলি আসা।’‌

কুমোরটুলিতে ভিড় বাড়ায় খুশি মূর্তি শিল্পীরা। তাঁরা বলছেন, এ বারে কোনও বায়না হবে না, এমন আশঙ্কাতেই ছিলেন। কিন্তু তা-ও রথের পরে যে ভাবে ধীরে ধীরে বায়না আসতে শুরু করেছে, তাতে তাঁরা অনেকটাই আশান্বিত।

মৃৎশিল্পী মিঙ্কু পালের বক্তব্য, ‘‌আমরা কার্যত আশা হারিয়ে ফেলেছিলাম। রথের পরে অন্তত কিছু বায়না আসতে শুরু করেছে।’‌ আর এক শিল্পী চায়না পালের কথায়, ‘‌অন্য বছরের মতো এ বারে যে একেবারেই বায়না হবে না, সেটা নিশ্চিত। তবে কিছু যে ব্যবসা আসছে, তাতে অনেকটাই আশায় বুক বাঁধতে পারছি।’‌ শিল্পী কাঞ্চি পাল বলেন, ‘‌লকডাউন খানিকটা শিথিল হওয়ায় এখন আবার মানুষ বাইরে বেরোতে শুরু করেছেন। আর তার ফলেই আমাদের কাছেও বায়না আসতে শুরু করেছে। এতে আমরা খুশি।’‌

কুমোরটুলি বলছে, একসময়ে মনে হয়েছিল, করোনা-আবহে মনে হয় দুর্গাপুজো এবার আর হবেই না। রথের পরে এটা অন্তত মনে হয়েছে, এ বারেও জাঁকজমক না থাকলেও দুর্গাপুজো অন্তত হবে।

SHALINI DATTA

Published by: Uddalak Bhattacharya
First published: June 28, 2020, 8:31 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर