‘তাড়াতাড়ি ফিরে আসুন....’, বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য হাসপাতালে ভর্তি হওয়ায় অভিনেতা জীতুর পোস্ট

বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য, ফাইল চিত্র

মঙ্গলবার তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হলে আবার ফেসবুকে পোস্ট করেন জীতু ৷ লেখেন, ‘আমাদের নজর এড়িয়ে আপনার কোথাও যাওয়া হচ্ছে না স্যার..মুখ্যমন্ত্রী থাকাকালীন স্বাস্থ্য ব্যবস্থা খতিয়ে দেখতে ঠিক যেমন আপনাকে হাসপাতাল গুলোতে যেতে দেখেছি, আজও তো আপনি রাজ্যের নায়ক, সেই দায়িত্ব পালন করতেই হাসপাতাল যাওয়া কি?’

  • Share this:

    কলকাতা : বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য তাঁর ‘ঈশ্বর’ ৷ এর আগে অনেক বার বলেছেন জীতু কমল ৷ প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী কোভিড আক্রান্ত হওয়ায় তাঁর সুস্থতা কামনা করে পোস্ট করেছিলেন অভিনেতা ৷ মঙ্গলবার তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হলে আবার ফেসবুকে পোস্ট করেন জীতু ৷ লেখেন, ‘আমাদের নজর এড়িয়ে আপনার কোথাও যাওয়া হচ্ছে না স্যার..মুখ্যমন্ত্রী থাকাকালীন স্বাস্থ্য ব্যবস্থা খতিয়ে দেখতে ঠিক যেমন আপনাকে হাসপাতাল গুলোতে যেতে দেখেছি, আজও তো আপনি রাজ্যের নায়ক, সেই দায়িত্ব পালন করতেই হাসপাতাল যাওয়া কি?’

    বাইপ্যাপ সাপোর্টে থাকা প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর অবস্থা আপাতত স্থিতিশীল ৷ মঙ্গলবার সকালে তিনি যখন হাসপাতালে এসেছিলেন অক্সিজেন মাত্রা ৮০-এর নীচে নেমে গিয়েছিল। কিন্তু আপাতত অক্সিজনে পাম্প করার পর তাঁর অক্সিজেন স্যাচুরেশন ৯২-এ পৌঁছেছে। তাঁর চিকিৎসার জন্য  ছয় সদস্যের মেডিক্যাল টিম গঠন করা হয়েছে। তাঁকে অক্সিজেন দেওয়া হচ্ছে। পাশাপাশি অ্যান্টিবায়োটিক স্টেরয়েড চলছে। তাঁর জ্ঞান রয়েছে।

    গত সপ্তাহে করোনা আক্রান্ত হন বুদ্ধদেব ও তাঁর স্ত্রী মীরা ভট্টাচার্য ৷  মীরা ভট্টাচার্যকে হাসপাতালে ভর্তি করা হলেও বাড়ি ছাড়তে রাজি ছিলেন না প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ৷ কিন্তু সোমবার রাত তেকে তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় মঙ্গলবার সকালে ভর্তি করা হয় দক্ষিণ কলকাতার এক বেসরকারি হাসপাতালে ৷

     মেডিক্যাল বুলেটিনে জানানো হয়েছে, তাঁর সিটি স্ক্যান করা হবে ৷ কিছু ধরনের রক্ত পরীক্ষাও করা হয়েছে ৷ সেগুলির রিপোর্ট এলে বোঝা স্পষ্ট হবে তাঁর শারীরিক অবস্থার পরিস্থিতি ৷ চিকিৎসকরা জানিয়েছন, তাঁকে স্টেরয়েড দেওয়া হচ্ছে বলে প্রতিদিন তিন বার করে ব্লাড শুগার টেস্ট করা হচ্ছে ৷  করোনার সঙ্গে মধুমেহর সমস্যা এবং স্টেরয়েড দেওয়া হলে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের আশঙ্কা বাড়ে ৷  ছত্রাক সংক্রমণ এবং সবরকম পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার কথা মাথায় রেখে চিকিৎসা করা হচ্ছে বলে জনিয়েছেন চিকিৎসকরা ৷

    গত ডিসেম্বরে সিওপিডি-র সমস্যা নিয়ে উডল্যান্ডস হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ৷ সে বার তাঁর শরীরে কার্বন ডাই অক্সাইডের পরিমাণ অত্যন্ত বেড়ে গিয়েছিল ৷ এ বার কার্বন ডাই অক্সাইড অতটা বাড়েনি ৷ তাঁর শারীরিক অবস্থা কেন এত খারাপ হল, কোভিড নাকি পুরনো রোগ সিওপিডি-র সমস্যা, তা পরীক্ষা করা হবে।

    ৭৭ বছর বয়সি প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর আরও অসংখ্য অনুরাগীর মতো অভিনেতা জীতুর আর্জি, হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য গিয়েছেন ঠিক আছে, কিন্তু তিনি যেন দ্রুত সুস্থ হয়ে ফিরে আসেন ৷

    Published by:Arpita Roy Chowdhury
    First published: