• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • BRUTAL MURDER OF AN WOMAN IN KOLKATA MURDER CARRIED HER BODY IN HIS CAR ALL ALONG THE DAY UB

পাড়ার ‘‌কাকিমা’‌কে খুন করে গাড়িতে রক্ত মাখা দেহ নিয়ে শহর ঘুরেছিল শিবশঙ্কর

প্রতীকী ছবি

সাদার্ন অ্যাভিনিউয়ের কাছে একটি স্কুলের সামনে শুনশান জায়গায় গাড়ি দাঁড় করিয়ে চালক পিছনে আসে। আচমকা দুই আসনের ফাঁকে লক্ষ্মীকে ফেলে গলা টিপে ধরে শিবশঙ্কর। এর পরে মৃত্যু নিশ্চিত করতে ধারালো অস্ত্র দিয়ে গলার নলি কেটে খুন করা হয়

  • Share this:

#‌কলকাতা:‌ ‘‌কাকিমা’‌কে যে খুন করতে পারে শিবশঙ্কর, তা স্বপ্নেও কখনও ভাবেনি লক্ষ্মী দাসের পরিবার এবং পাড়া প্রতিবেশীরা। তবে এখন খুনির ফাঁসির দাবিতে সরব পরিজনেরা। প্রতিবেশী তথা খুন হওয়া পরিচারিকার পরিবারের সদস্যদের কথায়, শিবশঙ্করের সাথে লক্ষ্মী দাসের যখনই দেখা হত তখন শিবশঙ্কর তাঁকে কাকিমা বলে ডাকত। রক্তের সম্পর্ক না হলেও লক্ষ্মী দাসের প্রতিবেশী হওয়ার সুবাদে খুনের অভিযোগে গ্রেপ্তার হওয়া শিবশঙ্কর মান্না পাড়ার আর পাঁচজন মহিলাকে যেমন কাকিমা বলে ডাকত লক্ষীদেবীকেও সে কাকিমা বলেই ডাকত। তাই প্রতিবেশীরা বলছেন, ‘‌আমাদের বিশ্বাসই হচ্ছে না শিবশঙ্কর সেই কাকিমাকে খুন করল।’‌

মৃতার ভাসুর আশুতোষ দাস বলেন, ‘‌পাড়ার ছেলে যে এমন ঘটনা ঘটাতে পারে তার আগাম কোনওরকম আঁচ পাইনি। আমরা খুনির দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।’‌ শুক্রবার টাকা মিটিয়ে দেওয়ার আশ্বাস দিয়ে লক্ষ্মীদেবীকে সকাল ১১টায় মুদিয়ালির এক জায়গায় দেখা করতে বলে শিবশঙ্কর। দুপুর সাড়ে বারোটা নাগাদ সেখানে যান লক্ষ্মী। গাড়ির পিছনের আসনে বসেই টাকা চান তিনি। এর পরেই দু’জনের মধ্যে ফের শুরু হয় বচসা। তদন্তে জানা গিয়েছে, সাদার্ন অ্যাভিনিউয়ের কাছে একটি স্কুলের সামনে শুনশান জায়গায় গাড়ি দাঁড় করিয়ে চালক পিছনে আসে। আচমকা দুই আসনের ফাঁকে লক্ষ্মীকে ফেলে গলা টিপে ধরে শিবশঙ্কর। এর পরে মৃত্যু নিশ্চিত করতে ধারালো অস্ত্র দিয়ে গলার নলি কেটে খুন করা হয়। দেহ নিয়ে কলকাতা শহরের বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে সন্ধ্যে নামতেই ইএম বাইপাসের ধারে একটি পরিত্যক্ত জায়গায় দেহ ফেলে চম্পট দেয় শিবশঙ্কর।

পুলিশ সূত্রে আরও খবর, টানা প্রায় দু’‌ঘণ্টা জেরায় খুনের কথা কবুল করে অভিযুক্ত শিবশঙ্কর মান্না। শুক্রবার সাড়ে ১০ টা নাগাদ রাস্তায় লক্ষ্মীর সঙ্গে দেখা হয় তাঁর। লক্ষ্মী টাকা চাইলে তাঁকে নিজের গাড়িতে বসিয়ে নেন শিবশঙ্কর। তার পর সাদার্ন অ্যাভিনিউতে রাস্তার ধারে গাড়ি দাঁড় করিয়ে এসি চালিয়ে আচমকাই লক্ষ্মীর গলায় ধারাল অস্ত্র দিয়ে আঘাত করা হয়। চারচাকা গাড়ির মধ্যেই মৃত্যু হয় লক্ষ্মীর। ভবানীপুর এলাকা থেকে শিবশঙ্করের রক্তমাখা গাড়ি উদ্ধার হয়েছে। ধৃতকে দফায় দফায় জেরা করছেন ডিসি সাউথ মিরাজ খালিদ। শিবশঙ্করের কাছে লক্ষীদেবী টাকা ফেরত চাওয়ার কারণেই সে খুন করেছে বলে পুলিশি জেরায় জানিয়েছে শিবশঙ্কর। ঘটনায় ক্ষোভে ফুঁসছেন লক্ষ্মীদেবীর পরিবার ও পড়শিরা । খুনের অভিযোগে অভিযুক্তের কড়া শাস্তির দাবিতে সোচ্চার হয়েছেন দেশপ্রাণ শাসমল রোডের বাসিন্দারা। শনিবারই শিবশঙ্কর মান্নাকে আদালতে তোলা হলে ধৃতকে ১৪ দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে এই হত্যাকাণ্ডের নেপথ্যে শুধুই কী তিরিশ হাজার টাকা ধার ফেরত চাওয়াই প্রধান কারণ নাকি এর পেছনে রয়েছে অন্য কোনও কারণ!‌ খতিয়ে দেখছেন টালিগঞ্জ থানার তদন্তকারী পুলিশ আধিকারিকরা।

VENKATESWAR LAHIRI

Published by:Uddalak Bhattacharya
First published: