• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • BRATYA BASU QUESTIONS HOW PRESIDENCY CAN CONDUCT ENTRANCE EXAM AMID PANDEMIC SWD

Bratya Basu: শুধু প্রেসিডেন্সিতে প্রবেশিকা পরীক্ষার সিদ্ধান্ত কীভাবে! উপাচার্যদের বৈঠকেই ক্ষোভ প্রকাশ ব্রাত্যর

প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের (Presidency University) প্রবেশিকা পরীক্ষা নিয়ে উপাচার্যদের বৈঠকেই ক্ষোভ প্রকাশ শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুর (Bratya Basu)।

প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের (Presidency University) প্রবেশিকা পরীক্ষা নিয়ে উপাচার্যদের বৈঠকেই ক্ষোভ প্রকাশ শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুর (Bratya Basu)।

  • Share this:

#কলকাতা: প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের (Presidency University) প্রবেশিকা পরীক্ষা নিয়ে উপাচার্যদের বৈঠকেই ক্ষোভ প্রকাশ শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুর (Bratya Basu)। স্নাতক স্তরে প্রথম বর্ষের ছাত্র ভর্তি নিয়ে ইতিমধ্যেই আবেদনপত্র জমা নিয়েছে প্রেসিডেন্সি। কয়েক হাজার আবেদনপত্র ইতিমধ্যেই জমা পড়েছে। প্রবেশিকা পরীক্ষার দায়িত্বে জয়েন্ট এন্ট্রেন্স বোর্ড। বোর্ডের তরফেও ইতিমধ্যেই জানানো হয়েছে প্রবেশিকা পরীক্ষার দিনক্ষণ। সে ক্ষেত্রে কীভাবে প্রবেশিকা পরীক্ষা নিয়ে সিদ্ধান্ত নিয়ে নেওয়া হলো? উপাচার্য অনুরাধা লোহিয়ার সামনেই সেই ক্ষোভ প্রকাশ করলেন শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু।

বুধবার ভর্তির প্রক্রিয়া নিয়ে উপাচার্যের সঙ্গে বৈঠকে বসেন শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু। সেই বৈঠকেই উপাচার্যদের জানিয়ে দেন ২অগাস্ট থেকে স্নাতক স্তরের প্রথম বর্ষের ভর্তির প্রক্রিয়া শুরু করতে হবে। প্রবেশিকা পরীক্ষা নয়, বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে নম্বরের মাধ্যমে ছাত্র ভর্তি করতে হবে। রাজ্যের এই অবস্থান উপাচার্যদের জানানোর পরপরই যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সুরঞ্জন দাস এবং প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য অনুরাধা লোহিয়া কীভাবে ছাত্র ভর্তি করা যাবে তা নিয়ে জানতে চায় বলে সূত্রের খবর। শুধু তাই নয় বৈঠকে উপস্থিত থেকে প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য শিক্ষামন্ত্রীকে বলেন ইতিমধ্যে তারা আবেদন পত্র নিয়ে নিয়েছে।

পাশাপাশি জয়েন্ট এন্ট্রেন্স বোর্ড পরীক্ষা কবে নেওয়া হবে সেই বিষয়েও জানিয়েছেন। এক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয়ের কী করনীয় সেই সম্পর্কেও শিক্ষামন্ত্রী ও শিক্ষাসচিবের থেকে জানতে চান প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য। সূত্রের খবর সেই সময়ে স্কুল শিক্ষা সচিব ফোনে ধরেন জয়েন্ট এন্ট্রেন্স বোর্ডের চেয়ারম্যান মলয়েন্দু সাহাকে। কেন প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয় প্রবেশিকা পরীক্ষা নেওয়ার সময়সীমা জানানো হলো তা নিয়ে স্কুল শিক্ষা সচিব প্রশ্ন করেন বোর্ডের চেয়ারম্যানকে। শুধু তাই নয়। স্কুল শিক্ষা সচিব জানান যেখানে জয়েন্ট পরীক্ষা ছাড়া আপাতত অন্য কোনও প্রবেশিকা পরীক্ষা না নেওয়ার কথা বলা হয়েছে জয়েন্ট বোর্ডকে, সেখানে প্রেসিডেন্সি প্রবেশিকা পরীক্ষা নেওয়ার সময় সীমা কিভাবে জানালো? সেই প্রশ্নের মুখে পড়েন জয়েন্ট এন্ট্রেন্স বোর্ডের চেয়ারম্যান। যদিও সূত্রের খবর, বোর্ডের চেয়ারম্যান জানান তাঁদের প্রেসিডেন্সি তরফ থেকে ইমেল পাঠানো হয়েছিল। সেই পরিপ্রেক্ষিতেই বোর্ডের তরফে প্রবেশিকা পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত এবং সময়সীমা ঠিক করা হয়েছে।

প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয় প্রবেশিকা পরীক্ষা নিলে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়েও তার প্রভাব পড়বে সেই আশঙ্কা প্রকাশ করেন বৈঠকে উপস্থিত যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সুরঞ্জন দাস। যদিও শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু সামগ্রিক বিষয় নিয়ে বৈঠকেই ক্ষোভ প্রকাশ করে জানান, জয়েন্ট এন্ট্রেন্স বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যকে নিয়ে এই বিষয় নিয়ে শীঘ্রই বৈঠক করা হবে। বৈঠকে উপস্থিত থাকা এক উপাচার্য বলেন "যেখানে নম্বরের মাধ্যমে ছাত্র ভর্তির কথা বলা হচ্ছে সেখানে একটা বিশ্ববিদ্যালয়ে কেন পৃথক সিদ্ধান্ত নেবে? সব বিশ্ববিদ্যালয়কেই নম্বরের মাধ্যমে ভর্তি করানো উচিত।"

সূত্রের খবর প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের এই জটিলতা কীভাবে কাটানো যায় সেই বিষয় নিয়ে বৈঠক করতে চলেছেন শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু। এত সংখ্যক আবেদনপত্র জমা হওয়ায় কীভাবে ছাত্র ভর্তির প্রক্রিয়া নতুন করে শুরু করা সম্ভব সেই বিষয় নিয়েই মূলত শিক্ষামন্ত্রী আলোচনা চাইছেন বলে সূত্রের খবর। যদিও এই বিষয় নিয়ে প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্যের কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

সোমরাজ বন্দ্যোপাধ্যায়

Published by:Swaralipi Dasgupta
First published: