নিজের শহরেই উদ্বাস্তু, কেমন আছেন বউবাজারের ঘর-ছাড়া বাসিন্দারা?

হঠাৎ করে বিপর্যয়। মাটি ফুঁড়ে গজিয়ে ওঠা উন্নয়ন গিলে নিয়েছে সর্বস্ব। আরও অনেক প্রতিবেশীর মতো, মধ্য কলকাতার হোটেলে ঠাঁই হয়েছে চোদ্দ, দুর্গা পিতুরি লেনের বাসিন্দা অশোকা শীলের।

Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Sep 12, 2019 11:40 AM IST
নিজের শহরেই উদ্বাস্তু, কেমন আছেন বউবাজারের ঘর-ছাড়া বাসিন্দারা?
বউবাজার
Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Sep 12, 2019 11:40 AM IST

#কলকাতা: পাতালরেলের পাকেচক্রে ভিটেমাটি খুইয়েছেন। চোখের সামনে একনিমেষে ধুলোয় মিশতে দেখেছেন সাধের বাসা। ওঁরা আজ নিজের শহরেই যেন উদ্বাস্তু। বউবাজার বিপর্যয়ের পর, কেমন আছেন ঘরছাড়া বৃদ্ধ-বৃদ্ধারা? প্রশ্ন তুলে দিল অঞ্জলি মল্লিকের মৃত্যু।

হঠাৎ করে বিপর্যয়। মাটি ফুঁড়ে গজিয়ে ওঠা উন্নয়ন গিলে নিয়েছে সর্বস্ব। আরও অনেক প্রতিবেশীর মতো, মধ্য কলকাতার হোটেলে ঠাঁই হয়েছে চোদ্দ, দুর্গা পিতুরি লেনের বাসিন্দা অশোকা শীলের। বার্ধক্যে শরীরও যে জবাব দিয়ে দিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে নিজেকে পরিবারের বাড়তি বোঝা ছাড়া কিছুই ভাবতে পারছেন না বৃদ্ধা।

বউবাজারের এক নম্বর স্যাকরাপাড়া লেনের বাসিন্দা কিশোর কর্মকার। মৃত অঞ্জলি মল্লিকের প্রতিবেশী। যাঁর মৃত্যুর খবর শুনে মুষড়ে পড়েছেন বৃদ্ধ। কবে ফিরবেন জানেন না। আদৌ ফিরতে পারবেন কিনা, তাও জানেন না। তবুও মনের কোণে আশা জমিয়ে রেখেছেন, একবারের জন্য সাধের বাড়িতে ফেরার। এক নম্বর স্যাকরাপাড়াতেই থাকতেন অঞ্জলি মল্লিকের বন্ধু অরুণা কর্মকার। জীবনের শেষপ্রান্তে এসে, এভাবে টানা হেঁচড়ায় ক্লান্ত। হতাশা আর কষ্ট চোখের জল হয়ে গড়িয়ে পড়ছে। যে মেট্রোর জন্য তাঁদের এত দুর্ভোগ, তাদের কি কেউ আসেন খোঁজখবর নিতে? কেউ কি এসে জিজ্ঞেস করেন তাঁরা কেমন আছেন?

নিজের শহরেই উদ্বাস্তুর মতো জীবনযাপন। ভাল নেই বউবাজারের ভিটহারা বৃদ্ধবৃদ্ধারা।

First published: 11:40:06 AM Sep 12, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर