দৃষ্টিহীনদের হাতেই সাজছে মা দুর্গা, কুলোর উপর দুর্গার ত্রিনয়নে মুক্তির স্বাদের খোঁজে সঞ্জয়রা

দৃষ্টিহীনদের হাতেই সাজছে মা দুর্গা, কুলোর উপর দুর্গার ত্রিনয়নে মুক্তির স্বাদের খোঁজে সঞ্জয়রা

এবার ওদের হাতেই সাজছে উমা। কুলোর উপর দুর্গার ত্রিনয়নে মুক্তির স্বাদ খুঁজছে দৃষ্টিহীন অহনা, রিতা, ঝিলম, সঞ্জয়রা।

  • Share this:

#কলকাতা: রং কী ? কেমন হয় লাল, নীল, সাদা, হলুদ.......চেনা হয়নি কোনওদিন। তবু ওদের জীবনেও শরৎ আসে। মন জুড়ে বাজে আগমনীর সুর। এবার ওদের হাতেই সাজছে উমা। কুলোর উপর দুর্গার ত্রিনয়নে মুক্তির স্বাদ খুঁজছে দৃষ্টিহীন অহনা, রিতা, ঝিলম, সঞ্জয়রা।

চোখ নেই, কিন্তু স্বপ্ন আছে.....বুকের গভীরে.....অন্তরের গোপন কুঠুরিতে। আসলে না দেখেও এ এক স্বপ্ন দেখার গল্প। কেউ জন্ম থেকেই দৃষ্টিহীন। কারও চোখ মাঝপথে সঙ্গ ছেড়েছে। ব্লাইন্ড স্কুলে পড়া অহনাদের চোখের সামনে শুধুই নিকষ আঁধার...হয়ত মনেও।

ঝাপসা মনে এবার আলো জ্বালাচ্ছেন উপাসনা চট্টোপাধ্যায়। স্বেচ্ছাসেবি সংগঠনের এই কর্মীর হাত ধরেই এবার উমার সংসার সাজাচ্ছে বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন ১০ জন দৃষ্টিহীন পড়ুয়া।

রং নিয়ে বিলাসিতার জায়গা নেই ওদের জীবনে। আছে শুধুই অনুভব। বেহালার একটি মণ্ডপের জন্য দুর্গার চালচিত্র সেজে উঠছে ওদেরই হাতে।

পঞ্চাশটি কুলোর উপর পাঁচ থেকে ১২-র আনাড়ি হাতের কারিকুরিতে ফুটে উঠছে দুর্গার চোখ। কুলো ঘিরে ঝিনুকের সাজ। বিশেষ কর্মশালার পর ওদের হাতেই এবার সুবর্ণজয়ন্তীতে পা দেওয়া বেহালার মণ্ডপ সাজানোর গুরুভারও। কলকাতায় এমন উদ্যোগ প্রথম।

Loading...

স্বপ্নগুলো জমছিল মনে। উমার হাত ধরে এবার তাদের খোলা আকাশে ওড়ার পালা।

First published: 03:31:14 PM Aug 10, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर