Home /News /kolkata /
West Bengal News: কোথায় গেল অর্জুন চৌরাসিয়ার পকেটের অত টাকা? দানা বাঁধছে রহস্য

West Bengal News: কোথায় গেল অর্জুন চৌরাসিয়ার পকেটের অত টাকা? দানা বাঁধছে রহস্য

দানা বাঁধছে রহস্য

দানা বাঁধছে রহস্য

West Bengal News: সোদপুরের একটি গেঞ্জিকলে কাজ করত অর্জুন। গতকাল বেতনবাবদ ১১৮০০ টাকা হাতে পায় অর্জুন। রাত ৮:৩০ টা নাগাদ বাড়ি ফিরেই ফের বেড়িয়ে যায় সে।

  • Share this:

    #কলকাতা: ২০১৩ সালে বিজেপিতে যোগদান, ২০১৯ থেকে যুব মোর্চার মণ্ডল সহ সভাপতি। বিজেপিতে সক্রিয় কর্মী হিসেবেই পরিচিত ছিল অর্জুন চৌরাসিয়া। অমিত শাহকে আজ বিমানবন্দরে অভ্যর্থনা জানাতে যাওয়ার কথা ছিল তাঁর। বাইক নিয়ে মিছিল করে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু কিছুই হল না। এখনও অর্জুনের সহকারীরা বিশ্বাস করতে পারছেন না, সে নেই।

    সোদপুরের একটি গেঞ্জিকলে কাজ করত অর্জুন। গতকাল বেতনবাবদ ১১৮০০ টাকা হাতে পায় অর্জুন। রাত ৮:৩০ টা নাগাদ বাড়ি ফিরেই ফের বেড়িয়ে যায় সে। রাত ৯ টা নাগাদ ৬নং ওয়ার্ডের বিজেপির সাংগঠনিক মণ্ডলের সভাপতির সঙ্গে ফোনে কথাও হয় তার। তখনও সে খুব উৎসাহিত ছিল আজ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীকে অভ্যর্থনা জানাতে যাওয়ার বিষয়ে।

    রাতভর তাঁর কোনও খোঁজ পায়নি পরিবারের লোক। পরিবারের দাবি, রাতে থানাতেও গেছিলেন তারা। কিন্তু কোনো খোঁজ পাননি সেখানে গিয়েও। সকালে বাড়ি সংলগ্ন রেলওয়ের কোয়ার্টার এলাকায় একটি পরিত্যক্ত কোয়ার্টার থেকে উদ্ধার করা হয় অর্জুনের নিথর দেহ। দেহটি ঝোলানোর ধরনের দেখেই সন্দেহ হয় এলাকাবাসীর। গোটা দেহের ওজন তার পায়ের উপর ছিল। জিভ বেরিয়ে থাকার কোনও চিহ্নও ছিল না। এই ভাবে কীভাবে আত্মহত্যা করা সম্ভব, সেটাই তাদের মাথায় আসে না। পরিবারের লোক এবং স্থানীয় চিৎপুর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে এলে তারা খেয়াল করেন মৃতের পকেটে যে ক্যাশ ছিল কাল রাতে, সেই ক্যাশ ও নেই অর্জুনের পকেটে।

    আরও পড়ুন: কী নৃশংস! এই বিরল প্রাণীর সঙ্গে যা ঘটল ওদলাবাড়িতে, শুনলে চমকে উঠবেন

    তখনই এলাকাবাসী বাধা দেন দেহ নিয়ে যেতে। তারপর দফায় দফায় উত্তপ্ত হয় পরিস্থিতি। কলকাতা পুলিশের উচ্চপদস্থ আধিকারিকরা আসলেও শান্ত হয়নি পরিস্থিতি। বরং দেহ নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে দফায় দফায় খণ্ডযুদ্ধ বাঁধে পুলিশের সাথে বিজেপির কর্মকর্তাদের। পুলিশের হাত থেকে মৃতদেহ কেড়ে নেওয়ার ঘটনাও ঘটে। তারপর কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর আসার কথা ঘোষণা হতেই পরিস্থিতি দেখে পুলিশ দ্রুত দেহ সরানোর সিদ্ধান্ত নেয়।

    আরও পড়ুন: সমর্থন নেই পাহাড়ের, বিজেপির পৃথক উত্তরবঙ্গের দাবিতে কী অবস্থান নিল CPIM?

    তারপরে বিজেপি কর্মীদের সঙ্গে রীতিমতো ধস্তাধস্তি করে দেহ বের করে আনে পুলিশ। পুলিসের ভূমিকায় কিছুটা ক্ষুব্ধ  হয় পরিবারের লোক। এমনকি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসলেও তার কাছে সিবিআই তদন্তের দাবি জানান তারা। পুলিশে আস্থা নেই এই কথা জানিয়ে কেন্দ্রীয় হস্তক্ষেপের দাবি জানান তারা। গোটা ঘটনাকে ঘিরে এখনও উত্তপ্ত রয়েছে কাশীপুর এলাকা। বিশাল পুলিশবাহিনী মোতায়েন রয়েছে এলাকায়।

    ---সাহ্নিক ঘোষ

    Published by:Suman Biswas
    First published:

    Tags: Bengal BJP

    পরবর্তী খবর