• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • BJP WEST BENGAL STATE LEADERS WANT FRESH CANDIDATES IN BYE ELECTIONS DMG

BJP Bye Election Candidates: হার থেকে শিক্ষা, উপনির্বাচনে 'যোগ্য' প্রার্থীকে চান দিলীপ ঘোষরা! মতভেদের আশঙ্কা

প্রতীকী ছবি৷

যে কেন্দ্রগুলিতে উপনির্বাচন হওয়ার কথা, তার মধ্যে শান্তিপুর এবং দিনহাটায় জয়ী হয়েছিল বিজেপি৷ গোসাবা, ভবানীপুর এবং খড়দহে জিতেছিল তৃণমূল (BJP Bye Election Candidates)৷

  • Share this:

#কলকাতা: প্রকাশ্যে এখনই উপনির্বাচনের বিরোধিতা করছেন রাজ্য নেতারা৷ তা সত্ত্বেও উপনির্বাচনের প্রস্তুতি নিতে রাজ্য বিজেপিকে নির্দেশ দিল কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। পুজোর আগেই উপনির্বাচনের নির্ঘণ্ট ঘোষণা হতে পারে। সেটা ধরে নিয়েই সাত কেন্দ্রের প্রার্থী ও আনুষাঙ্গিক সাংগঠনিক বিষয়ে প্রস্তুতি নিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে দলের রাজ্য নেতাদের।

তবে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব নির্দেশ দিলেও প্রার্থী নির্বাচন নিয়ে গোল বেঁধেছে রাজ্যের সঙ্গে। প্রাথমিক ভাবে কেন্দ্র চেয়েছিল, শান্তিপুর, দিনহাটা ছাড়া বাকি ৫ আসনে আগের প্রার্থীদেরই এবার প্রার্থী করা হোক। কিন্তু, কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তের সঙ্গে একমত নন রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। বিগত নির্বাচনে প্রার্থী নির্বাচনে রাজ্যের উপরে একতরফা ছড়ি ঘুরিয়ে ছিলেন কৈলাশ বিজয়বর্গীয়, শিব প্রকাশরা। তার ফল হাতেনাতে পেয়েছে বিজেপি। অধিকাংশ জায়গায় সঠিক প্রার্থী নির্বাচন না করা যে হারের অন্যতম কারণ, ভোট পরবর্তী সময়ে দলীয় সমীক্ষায় তা উঠে এসেছে। তার ভিত্তিতে এবার আর কেন্দ্রকে একতরফা সিদ্ধান্ত নিতে দিতে রাজি নন রাজ্য নেতারা। শিব প্রকাশকে রাজ্য নেতৃত্ব সাফ জানিয়ে দিয়েছে, শান্তুিপুর, দিনহাটা ছাড়া অন্তত আরও তিনটি আসনে তারা আগের প্রার্থীদের চায় না। প্রার্থী হওয়ার উপযুক্ত দাবিদার যাঁরা, তাঁদের মধ্য থেকেই কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব যাতে উপযুক্ত প্রার্থীকে বেছে নেয়, এমনটাই চাইছেন রাজ্য নেতারা।সংশ্লিষ্ট প্রার্থীদের ডেকে তাঁদের সঙ্গে কথাও বলেছে রাজ্য নেতৃত্ব।

ওয়াকিবহাল মহলের ধারণা, প্রার্থী নির্বাচন নিয়ে এবার কেন্দ্র - রাজ্য টানাপোড়েন চলবে। রাজ্য বিজেপির এক নেতার মতে, আগামী দু' তিন দিনের মধ্য কমিশন ভোটের দিন ঘোষণা করে দিতে পারে। সেটা হলে, প্রার্থী ও নির্বাচনের প্রস্তুতি নিয়ে পুরোদমে কাজ শুরু হয়ে যাবে।

এমনিতে যে কেন্দ্রগুলিতে উপনির্বাচন হওয়ার কথা, তার মধ্যে শান্তিপুর এবং দিনহাটায় জয়ী হয়েছিল বিজেপি৷ গোসাবা, ভবানীপুর এবং খড়দহে জিতেছিল তৃণমূল৷ মুর্শিদাবাদেরর সামশেরগঞ্জ এবং জঙ্গিপুরে ভোট স্থগিত হয়ে গিয়েছিল৷ বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূল একতরফা জয় পাওয়ার পর উপনির্বাচনে বিজেপি-র কাজটা এমনিতেই আরও কঠিন৷ দলের সংগঠনেও ভাঙন ধরেছে৷ তার মধ্যে প্রার্থী নির্বাচন নিয়ে কেন্দ্র- রাজ্য মতবিরোধ তৈরি হলে দলের সমস্যা যে বাড়বে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না৷

Published by:Debamoy Ghosh
First published: