• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • Sukanta Majumder seeks inspiration from Mamata Banerjee: উপনির্বাচনে ধরাশায়ী হয়ে বিজেপি-র অনুপ্রেরণা মমতা? সুকান্তর মন্তব্যে জল্পনা

Sukanta Majumder seeks inspiration from Mamata Banerjee: উপনির্বাচনে ধরাশায়ী হয়ে বিজেপি-র অনুপ্রেরণা মমতা? সুকান্তর মন্তব্যে জল্পনা

মমতার থেকেই অনুপ্রেরণা খুঁজছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি?

মমতার থেকেই অনুপ্রেরণা খুঁজছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি?

২০০৪ সালে লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূল থেকে একা সাংসদ হিসেবে জয়ী হয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ ২০০৬ সালে রাজ্য বিধানসভায় মাত্র তিরিশ জন বিধায়ক ছিল তৃণমূলের (Sukanta Majumder seeks inspiration from Mamata Banerjee)৷

  • Share this:

    #কলকাতা: উপনির্বাচনে রাজ্যে চার কেন্দ্রে ধরাশায়ী হয়ে কি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের থেকেই অনুপ্রেরণা খুঁজছে বিজেপি? বিজেপি রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদারের মন্তব্যে সেরকমই ইঙ্গিত দেখছে রাজনৈতিক মহল (Sukanta Majumder seeks inspiration from Mamata Banerjee)৷ কারণ বিজেপি রাজ্য সভাপতি বলছেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যদি একা সাংসদ হয়ে দলকে ক্ষমতায় নিয়ে আসতে পারেন, তাহলে বিজেপি-র পক্ষেও পশ্চিমবঙ্গে ঘুরে দাঁড়ানো সম্ভব (West Bengal By Election Results)৷

    দিনহাটা, শান্তিপুর, খড়দহ, গোসাবা- রাজ্যের চার কেন্দ্রেই উপনির্বাচনে হেরেছে বিজেপি৷ তার মধ্যে শান্তিপুর বাদে বাকি তিনটি কেন্দ্রেই বিজেপি প্রার্থীদের জামানত বাজেয়াপ্ত হয়েছে৷ বিজেপি-র প্রাপ্ত ভোটের হার ১৫ শতাংশের নীচে নেমে গিয়েছে (West Bengal By Election Results)৷

    ইতিমধ্যেই বিজেপি-র বেশ কয়েকজন বিধায়ক তৃণমূলে নাম লিখিয়েছেন৷ রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়, বাবুল সুপ্রিয়র মতো নেতারাও তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন৷ তার পরেও এই ফলে হতাশ হওয়ার মতো কিছু দেখছেন না বিজেপি রাজ্য সভাপতি (Sukanta Majumder)৷ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদাহরণ টেনে তিনি বলেন, 'হতাশা বলে কিছু নেই৷ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) একসময় একা সাংসদ ছিলেন, সেখান থেকেই ক্ষমতা দখল করেছেন৷ ২৯ জন বিধায়ক ছিল একসময়৷ তার তুলনায় তো আমরা ভাল জায়গায় আছি৷'

    আরও পড়ুন: তিন কেন্দ্রেই জামানত বাজেয়াপ্ত, উপনির্বাচনের ফলে অস্বস্তি আরও বাড়ল বিজেপি-র

    ২০০৪ সালে লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূল থেকে একা সাংসদ হিসেবে জয়ী হয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ ২০০৬ সালে রাজ্য বিধানসভায় মাত্র তিরিশ জন বিধায়ক ছিল তৃণমূলের৷ তাঁর পাঁচ বছরের মধ্যে ২০১১ সালে মুখ্যমন্ত্রী িহসেবে নবান্নে পা রাখেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ এ দিন পরাজয়ের পর যাঁর কাছে বার বার ধরাশায়ী হতে হচ্ছে, সেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদাহরণই টানলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি৷

    আরও পড়ুন: 'বিজেপির শোচনীয় পরিণতি এই সবের জন্যই', কবর খুঁড়ে কারণ বের করলেন তথাগত রায়

    রাজনৈতিক মহল বলছে, অনুুপ্রেরণা খুঁজতে গেলে বিজেপি রাজ্য সভাপতি নিজের দলের দিকেই তাকাতে পারেন৷ কারণ ১৯৮৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে মাত্র ২ জন সাংসদ বিজেপি-র টিকিটে জয়ী হয়েছিলেন৷ সেখানে ২০১৪ সালে বিজেপি ২৮২ আসনে জয়ী হয়৷ ২০১৯ সালে সেই সংখ্যাটা বেড়ে হয় ৩০৩৷ যদিও সেই প্রসঙ্গ না টেনে এ দিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৈরি করা দৃষ্টান্তকেই তুলে ধরেছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি৷

    সুকান্ত মজুমদারের এই মন্তব্য শুনে তাঁকে কটাক্ষ করতে ছাড়েননি তৃণমূল মুখপাত্র কুণাল ঘোষ৷ তিনি বলেন, 'মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে দেখেই যে রাজনীতি করা উচিত, এটা বিজেপি যে বুঝেছে সেটাই অনেক৷ এই বিলম্বিত বোধোদয়ের জন্য তৃণমূল কর্মীরা বিজেপি কর্মীদের মিষ্টি মুখ করাবে৷'

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: