'এক মুঠো চাল', মমতার অস্ত্রেই তৃণমূলকে ঘায়েল করতে নয়া কর্মসূচি বিজেপি-র

'এক মুঠো চাল', মমতার অস্ত্রেই তৃণমূলকে ঘায়েল করতে নয়া কর্মসূচি বিজেপি-র

  • Share this:

#কলকাতা: একদিকে কৃষক বন্ধু ভাবমূর্তি তুলে ধরা, অন্যদিকে কৃষক বিরোধী হিসেবে রাজ্যের শাসক দল এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকারকে প্রতিষ্ঠা করা৷ এই জোড়া লক্ষ্য নিয়ে এবার রাজ্যে নতুন কর্মসূচি শুরু করছে বিজেপি৷ যার নাম দেওয়া হয়েছে 'এক মুঠো চাল৷' আগামী ৯ জানুয়ারি পূর্ব বর্ধমানে বিজেপি সভাপতি জে পি নাড্ডার সফর থেকে এই কর্মসূচি শুরু করা হবে৷ তার পর তা গোটা রাজ্যে ছড়িয়ে দেওয়া হবে৷

এক মুঠো চাল কর্মসূচি কী?

পরিকল্পনা অনুযায়ী, রাজ্যের প্রায় ৪৮ হাজার বুথ এলাকায় কৃষকদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে অল্প পরিমাণে চাল এবং সব্জি সংগ্রহ করবেন বিজেপি নেতা কর্মীরা৷ শুক্রবার পূর্ব বর্ধমান জেলার কাটোয়ার জগদানন্দপুর গ্রামে গিয়ে প্রতীকী হিসেবে পাঁচটি কৃষক পরিবারের থেকে চাল সংগ্রহ করবেন জে পি নাড্ডা৷ আগামী ২৪ জানুয়ারি পর্যন্ত এ ভাবেই গোটা রাজ্য জুড়ে কৃষক পরিবারের থেকে চাল সংগ্রহ করবেন বিজেপি কর্মীরা৷ বিভিন্ন জায়গায় খোলা হবে কমিউনিটি কিচেন৷ তার পর সংগৃহীত সেই চাল এবং সব্জি দিয়ে খাবার রান্না করে আগামী ২৫ থেকে ৩০ জানুয়ারি পর্যন্ত তা বিভিন্ন এলাকায় বণ্টন করা হবে৷ রাজ্য বিজেপি-র কিসান মোর্চার সহ সভাপতি শ্রীরূপা মৈত্র জানিয়েছেন,মূলত কৃষক পরিবার এবং এলাকার গরিব মানুষকে এই খাবার বিলি করা হবে৷ কৃষকদের থেকে সংগৃহীত চাল রান্না করে গরিব মানুষকে পৌঁছে দিলে অন্নদাতা হিসেবে কৃষকদের মন জয় করার সম্ভাবনাও থাকবে৷

কী উদ্দেশ্য বিজেপি-র

বিজেপি-র প্রথম লক্ষ্য, কৃষক পরিবারগুলির সঙ্গে জনসংযোগ তৈরি করা৷ চাল সংগ্রহ করতে গিয়েই নতুন কৃষি আইনের উপকার সম্পর্কে কৃষকদের বোঝানো হবে৷ পাশাপাশি, রাজ্য সরকারের আপত্তিতেই যে রাজ্যের কৃষকরা প্রধানমন্ত্রীর কিসান নিধি প্রকল্পে বছরে ৬ হাজার টাকার আর্থিক সাহায্য পাচ্ছেন না, সেটাও বোঝানো হবে৷ এর ফলে একদিকে নিজেদের কৃষকবন্ধু হিসেবে প্রতিষ্ঠা করা যাবে৷ আবার বিরোধী থাকাকালীন বামফ্রন্ট সরকারকে কৃষক বিরোধী হিসেবে যে অস্বস্তিতে ফেলেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, সেই অস্ত্রেই এবার তাঁর সরকারকে ঘায়েল করতে চাইছে বিজেপি৷

ক্ষমতা দখলে কৃষকদের সমর্থন আদায়

রাজ্যে ক্ষমতা দখলে মরিয়া বিজেপি নেতৃত্ব কোনও দিক দিয়ে ফাঁক রাখতে চাইছে না৷ সেই লক্ষ্যেই বাংলার কৃষকদের মন জয়েও মরিয়া তাঁরা৷ রাজ্য সফরে এসে শুক্রবার বিজেপি সভাপতি জে পি নাড্ডা কাটোয়ার গ্রামে গিয়ে এক নিম্নবিত্ত কৃষক পরিবারেই মধ্যাহ্নভোজ সারবেন৷ এলাকার কৃষকদের সঙ্গেও কথা বলবেন তিনি৷

শোনো চাষি বন্ধুর পর এক মুঠো চাল

নতুন কৃষি বিল পাস হওয়ার পরই রাজ্যে তার তীব্র বিরোধিতা শুরু করে তৃণমূল৷ রাজ্য সরকারও এর বিরোধিতা করে৷ এর পরই নতুন কৃষি আইন নিয়ে রাজ্যের কৃষকদের বোঝাতে 'শোনো চাষি বন্ধু' কর্মসূচি শুরু করেছিল বিজেপি৷ কিন্তু সেই কর্মসূচি সেভাবে সাফল্য পায়নি, প্রচারেও আসেনি৷ এবার তারই অংশ হিসেবে নতুন মোড়কে এক মুঠো চাল কর্মসূচি শুরু করছে বিজেপি৷

প্রসঙ্গত লকডাউন পর্বে রাজ্যের বেশ কয়েক জায়গায় সাফল্যের সঙ্গে কমিনিটি কিচেন পরিষেবা শুরু করেছে সিপিআইএম৷ তার বেশ কয়েকটি এখনও চলছে৷ মূল প্রতিপক্ষ তৃণমূল হলেও এবার বাংলায় কার্যত সিপিএমের সেই মডেলই অনুসরণ করতে চলেছে বিজেপি৷ এখন দেখার, 'এক মুঠো চাল' কর্মসূচি সত্যিই বিজেপি-কে ভোটের আগে কতটা সুূবিধেজনক জায়গায় পৌঁছে দেয়৷

Arup Dutta
Published by:Debamoy Ghosh
First published: