হাইকোর্টের নির্দেশে রুট বদলে বিজেপির মিছিল, নন্দন থেকে শুরু হয়ে নন্দনে শেষ

হাইকোর্টের নির্দেশে রুট বদলে বিজেপির মিছিল, নন্দন থেকে শুরু হয়ে নন্দনে শেষ
কলকাতা হাইকোর্ট

বিকেল ৩টে থেকে সাড়ে ৪টের মধ্যে মিছিল শেষ করার শর্তও জুড়ে দেয় আদালত

  • Share this:

#কলকাতা: কলকাতা হাইকোর্টের ৮ নং আদালত কক্ষ। ভরা এজলাস। সকাল ১১টা থেকে অপেক্ষা করে করে কার্যত ক্লান্ত তখন বিজেপি। মামলা শুনানিতে আসতেই মোক্ষম অস্ত্র প্রয়োগ। ভাসিয়ে দেওয়া হলো প্রধান মন্ত্রীর নাম। শুক্রবার বিচারপতি সব্যসাচী ভট্টাচার্যের বেঞ্চে এমন কৌশলের ফল হল বিপরীত।

নন্দন থেকে হাজরা মোড় পর্যন্ত বিজেপির যুব ও মহিলা মোর্চার মিছিল দুপুর ১২টায়। বৃহস্পতিবার কলকাতা পুলিশ মিছিলের অনুমতিতে পূর্ণচ্ছেদ টেনে দিয়েছে। দক্ষিণ দিনাজপুরের কুমারগঞ্জের নাবালিকা ধর্ষণ ও খুনের ঘটনার প্রতিবাদ দেখানই ছিল বিজেপির উদ্দেশ্য। তার থেকেও বেশি উদ্দেশ্য, নয়া নাগরিক আইন ও জেএনইউ ঘটনার প্রেক্ষিতে কলকাতা যেভাবে উত্তাল হয়েছে, মিছিল করে তার পাল্টা দেওয়া।

পুলিশ সটান না বলে দেওয়ায় বৃহস্পতিবারই হাইকোর্টে মামলা ঠোকে গেরুয়া শিবির। শুক্রবার পৌনে ১২টা নাগাদ শুনানি শুরু হলে রাজ্য প্রথমেই সময় কৌশলে বিজেপিকে দুর্বল করার চেষ্টা চালায়। এই সময় বিজেপির আইনজীবী স্মরজিৎ রায় চৌধুরী বিচারপতির মগজে একবার বিজেপির যাত্রার কারণটা তুলে ধরতে মরিয়া। সেই সময় তিনি বলে বসলেন প্রধানমন্ত্রী আসছে শহরে।

প্রধানমন্ত্রীর নাম শুনে বিচারপতিও পাল্টা প্রশ্ন ছুঁড়ে দিলেন, প্রধানমন্ত্রী কী মিছিলে হাঁটবেন? যদি তা না হয় তবে কেন তাঁর নাম শুনানিতে নেওয়া।

মিছিল যে কোনও ইস্যুতে হতে পারে। কুকুর নিয়েও মিছিল হতে পারে। সেই বিষয়ে আদালত কোনো মতপ্রকাশ করছে না। বিচারপতির এমন কড়া মন্তব্যে তখন বেশ বেকায়দায় বিজেপি।

এরপর দ্বিতীয় দফায় পৌনে ১টা নাগাদ ফের মামলার শুনানি। এডভোকেট জেনারেল কিশোর দত্ত আদালতকে জানালেন, যদুবাবুর বাজারে এসইউসিআই-এর সভা আছে। তাই নন্দন থেকে হাজরা বিজেপির মিছিলের অনুমতি দিতে পারবে না পুলিশ। অন্যদিন মিছিল করার পরামর্শ দেন বিচারপতি। লোকসভা ভোটের পর প্রধানমন্ত্রী শহরে আসছেন। এই অবস্থায় মিছিল কোনমতেই পিছোতে রাজি ছিল না বিজেপি। বিজেপি দ্বিতীয় বিকল্প রুটের প্রস্তাব নন্দন থেকে ধর্মতলা।

দুপুর ২টো, তৃতীয় দফার শুনানি হয় মিছিল মামলার। শহরে ইতিমধ্যেই কিছু মিটিং-মিছিল চলছে ধর্মতলা চত্বরে , রাজ্যের এমন অবস্থানে বিচারপতি রুট বদলের ফেরপরামর্শ দেন।

শেষমেষ, নন্দন-এক্সাইড মোড় -বিড়লা প্লানেটরিয়াম-সেন্ট পলস ক্যাথিড্রাল হয়ে ফের নন্দন।

এই রুটেই শেষমেষ বিজেপির যুব ও মহিলা মোর্চার মিছিলের অনুমতি দেয় হাইকোর্ট। বিকেল ৩টে থেকে সাড়ে ৪টের মধ্যে মিছিল শেষ করার শর্তও জুড়ে দেয় আদালত।

First published: 11:29:35 PM Jan 10, 2020
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर