আজও প্রার্থী নিয়ে উত্তাল হেস্টিংস, শাহী বৈঠকের পরে কপালে ভাঁজ বিজেপি নেতাদের

আজও প্রার্থী নিয়ে উত্তাল হেস্টিংস, শাহী বৈঠকের পরে কপালে ভাঁজ বিজেপি নেতাদের

হেস্টিংসে বিজেপির বিক্ষোভ এখনও চলছে। নিজস্ব চিত্র।

মঙ্গলবার সকাল হতেই ফের হেস্টিংসে জড়ো হলেন প্রার্থীতালিকা নিয়ে বিক্ষুব্ধ দলেরই সমর্থকরা।

  • Share this:

    #কলকাতা: রাতভর রাজ্য নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন অমিত শাহ। তাতেও হেস্টিংসের নির্বাচনী কর্যালয়ে বিক্ষোভ প্রশমিত হল না।  মঙ্গলবার সকাল হতেই ফের হেস্টিংসে জড়ো হলেন প্রার্থীতালিকা নিয়ে বিক্ষুব্ধ দলেরই সমর্থকরা। তাঁদের দাবি উত্তর-দক্ষিণ চব্বিশ পরগণার বেশ কয়েকজন প্রার্থীকে অবিলম্বে বদল করতে হবে। দল-মনোনীত এই প্রার্থীদের পরিযায়ী প্রার্থী বলছেন বিক্ষুব্ধ বিজেপিরা। প্রার্থীবাছাইয়ের মধ্যে দুর্নীতিও দেখছেন তাঁরা।

    ক্যানিং পশ্চিমে প্রার্থী হিসেবে ঘোষিত হয়ছে অর্ণব রায়ের নাম। স্থানীয় বিজেপি কর্মীরা বলছেন ২৬ দিন  হয়েছেন তিনি দলে এসেছেন। অভিযোগ এতজদিন তৃণমূলের হয়ে এতদিন অত্যাচার করেছে ওঁরাই। ভাবমূর্তির প্রশ্নেই  অবিলম্বে এই প্রার্থী বদল চাইছেন তাঁরা। সমস্যা রয়েছে মগরাহাটের পশ্চিম বিজেপি প্রার্থী চন্দন নস্করকে নিয়েও। তাঁকে মানতে না পেরেও শয়ে শয়ে বিক্ষুব্ধ বিজেপি সমর্থক জড়ো হয়েছেন হেস্টিংসে। পাশাপাশি কুলপি বিধানসভার প্রার্থী প্রণব মল্লিককে মানতে নারাজ স্থানীয় মানুষজন।মন্দিরবাজারের প্রার্থী দিলীপ জাটুয়াকে কোনও ভাবেই মানতে চাইছেন না স্থানীয় কর্মীরা। একই রকম ক্ষোভ রয়েছে রায়দিঘির প্রার্থী  শান্তনু বাপুলিকে নিয়ে। দফায় দফায় বিক্ষোভে স্বাভাবিক ভাবেই চিন্তার ভাঁজ রাজ্যের নেতৃত্বের মাথায়। কেন্দ্রের প্রশ্নের মুখে পড়তে হচ্ছে তাঁদেরই।

    বিজেপির উচ্চপদস্থ নেতারা যখন প্রকাশ্য সভায় বলছেন ২০০ আসন দেখছেন তাঁরা, তখন এই বিক্ষোভ অনভিপ্রেতই, কিছুতেই চেপে রাখা যাচ্ছে না। এই অবস্থায় সোমবার গুয়াহাটি গিয়েও মধ্যরাতে ফের শহরে ফিরে আসনে অমিত শাহ। রাতভর ম্যারাথন বৈঠক চলে। এ রাজ্যের সংগঠন নিয়ে একাধিক প্রশ্ন তোলেন শাহ। সূত্রের খবর, শাহ সরাসরি বৈঠকে উপস্থিত রাজ্যের নেতাদের জিজ্ঞেস করেন, প্রার্থীপদ ঘোষণার পর কেন এই ক্ষোভ, তাহলে কি গঠনতন্ত্র মেনে স্থানীয় নেতৃত্বকে প্রশ্ন করে প্রার্থী বাছাই হয়নি?  তাছাড়া ক্ষোভ বিক্ষোভ থাকতেই পারে তাই বলে সদরে কামান দাগা! সংগঠনের রাশ কেন এত আলগা, জানতে চান শাহ। লক্ষ্য় মনে করিয়ে দিয়ে অমিত শাহ স্পষ্ট জানতে চান,  ঠিক কোন সমস্যা তৈরি হচ্ছে প্রার্থী বাছাইয়ে।দ্রুত সমস্যা নিষ্পত্তির কথাও বলেন শাহ।

    কিন্তু তাতেও যে সমস্যা সমাধান হয়নি তার প্রমাণ মিলল এ দিন সকালেই। বলাই বাহুল্য এর থেকে বাড়তি ডিভিডেন্ট ঘরে তুলবে শাসক দল। দেখার বিজেপি কত তাড়াতাড়ি এই ড্যামেজ কন্ট্রোল করতে পারে।

    Published by:Arka Deb
    First published:

    লেটেস্ট খবর