ভোটের আগেই দায়িত্ব থেকে অব্যহতি! হেস্টিংসে বিজেপি অফিসের সামনে বিক্ষোভে বিজেপি কর্মীরাই

ভোটের আগেই দায়িত্ব থেকে অব্যহতি! হেস্টিংসে বিজেপি অফিসের সামনে বিক্ষোভে বিজেপি কর্মীরাই

ছবি ভি়ডিও থেকে নেওয়া।

হুগলির সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়ের হস্তক্ষেপেই পরিস্থিতি কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আসে। তিনি আশ্বাস দেন বিষয়টির দ্রুত নিষ্পত্তি হবে।

  • Share this:

    #কলকাতা: সোনারপুর দক্ষিণ বিধানসভার বিজেপি নেতাকে পদ থেকে সরানোর প্রতিবাদে হেস্টিংসে বিজেপি অফিসের বাইরে বিক্ষোভ দেখালেন বিজেপি কর্মীরাই। দলের উচ্চতর নেতৃত্ব যত‌ই ঐক্যের বার্তা দিন, অন্দরের কোন্দল ভোট পূর্ববর্তী মুহূর্তে চাপা থাকছে না।

    দক্ষিণ চব্বিশ পরগণা পূর্ব সাংগঠনিক জেলার কার্যকর্তারা এ দিন হেস্টিংসে নির্বাচনী কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন, স্লোগান দিতে থাকেন। তাঁদের নেতা শুভঙ্কর দত্ত মজুমদার, রাজ্য বিজেপির চেনা মুখ। দীর্ঘদিন ধরে রাজ্য যুব মোর্চার সম্পাদক, মণ্ডল যুব সভাপতির মতো জরুরি পদে বহাল ছিলেন। অভিযোগ দীর্ঘদিন নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করলেও, শুভঙ্করকে নির্বাচনের মুখে সমস্ত দায়িত্ব থেকে অব্যবতি দেওয়া হয়েছে। কেন তাঁকে দায়িত্ব থেকে সরানো হল, তা নিয়ে উচ্চ নেতৃত্বের জবাব চাইতেই এদিন জড়ো হন উচ্চ নেতৃত্বরা।

    যাতে কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে তা সুনিশ্চিত করতেই পুলিশের বিশাল বাহিনী আসে। সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়ও ঘটনাস্থলে পৌঁছন। তাঁকে বিক্ষুব্ধদের সঙ্গে কথা বলতে দেখা যায়।

    হুগলির সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়ের হস্তক্ষেপেই পরিস্থিতি কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আসে। তিনি আশ্বাস দেন বিষয়টির দ্রুত নিষ্পত্তি হবে। প্রসঙ্গত, ভোটের মুখে সব দলই সাংগঠনিক রদবদল করছে। বিশেষত তৃণমূল-সহ অন্যান্য দল থেকে বিজেপিতে বহু নতুন মুখ ঢোকায় সাংগঠনিক রদবদল করতেই হচ্ছে বিভিন্ন জায়গায়। সেখান থেকেই বেরিয়ে আসছে আদি-নব্য দ্বন্দ্ব। ক্ষোভ বিক্ষোভও আর চাপা থাকছে না।

    Published by:Arka Deb
    First published:

    লেটেস্ট খবর