• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • BJP NOT GETTING SUITABLE CANDIDATES AGAINST MAMATA BANERJEE IN BHABANIPUR BY ELECTION DMG

BJP lands in trouble with Bhabanipur by election: মমতার বিরুদ্ধে প্রার্থী হতে চাইছেন না কেউ, বেকায়দায় বিজেপি! খোঁচা দিলেন তথাগত

ভবানীপুরে প্রার্থী খোঁজা নিয়ে বিড়ম্বনায় রাজ্য বিজেপি৷

ভবানীপুরে উপনির্বাচনে আদালতে যাওয়ার হুমকি নিয়েও এ দিন সুর নরম করেছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি ()৷

  • Share this:

#কলকাতা: ভবানীপুরের উপনির্বাচনে সর্বশক্তি দিয়ে ঝাঁপাবে বিজেপি৷ দিন দু' য়েক আগেই জোর গলায় এমন দাবি করেছিলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ৷ দিলীপ বাবু মুখে যাই বলুন না কেন, বাস্তবে ভবানীপুরের জন্য প্রার্থী খুঁজতে গিয়ে কার্যত হিমশিম খাচ্ছেন দলের রাজ্য নেতারা৷ এ দিন দিলীপ ঘোষ নিজেই স্বীকার করে নিয়েছেন, ভবানীপুরে প্রার্থী হওয়ার জন্য অনেককে অনুরোধ করা হলেও কেউ সাড়া দিচ্ছেন না৷

প্রার্থী খুঁজে পাওয়া নিয়ে বিজেপি-র বিড়ম্বনা আরও বাড়িয়ে দিয়েছেন দলেরই প্রবীণ নেতা তথাগত রায়৷ ট্যুইট করে তাঁর কটাক্ষ,  'বিজেপি পার্টি অফিসে চপ, সিঙাড়া বিলির দায়িত্বে থাকা সুবোধকেই ভবানীপুরে প্রার্থী করা হোক৷' তৃণমূলকে বিঁধে এই ট্যুইট করা হলেও তথাগতবাবুর এই ট্যুইটের মধ্যে নিজের দলের রাজ্য নেতৃত্বের প্রতিও কটাক্ষ রয়েছে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল৷

ভবানীপুরে উপনির্বাচন নিয়ে এ দিন রাজ্য বিজেপি-তে দু'টি বৈঠক হয়৷ রাজ্য দফতরে হওয়া এ দিন মূল বৈঠকে ছিলেন শুভেন্দু অধিকারী, দিলীপ ঘোষ, অমিতাভ চক্রবর্তী, অমিত মালব্যর মতো নেতারা৷ বিকেলে দলের হেস্টিংস কার্যালয়ে ভবানীপুরে বিজেপি-র বুথ এবং মণ্ডলের কর্মকর্তাদের নিয়ে দ্বিতীয় বৈঠকটি হয়৷ কিন্তু তার পরেও প্রার্থী নিয়ে জট কাটেনি৷

প্রার্থী আকালের কথা কার্যত স্বীকার করে নিয়ে দিলীপ ঘোষ এ দিন বলেন, 'প্রার্থীদের নাম প্রস্তাব করে আমরা দিল্লিতে দলের সংসদীয় কমিটির কাছে পাঠাই৷ তাঁরাই যোগ্যতম প্রার্থীকে বেছে নেন৷ আমরা এবারেও অনেককে প্রার্থী হতে বলেছিলান, কিন্তু তাঁরা রাজি হচ্ছেন না৷'

এমন কি, ভবানীপুরে উপনির্বাচনে আদালতে যাওয়ার হুমকি নিয়েও এ দিন সুর নরম করেছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি৷ অথচ ভোট ঘোষণার পরই নির্বাচন কমিশনের নিরপেক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে আদালতে যাওয়ার হুমকি দিয়েছিলেন দিলীপ ঘোষ, শমীক ভট্টাচার্যরা৷ এ দিন অবশ্য আদালতে যাওয়া নিয়ে শমীক ভট্টাচার্যের সুর অনেকটাই নরম ছিল৷ আদালতে যাওয়ার সম্ভাবনা পুরোপুরি খারিজ না করলেও সম্ভাবনা যে কম, তা স্বীকার করে নিয়েছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি৷ বিজেপি সূত্রে খবর, ভবানীপুরের উপনির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য দিল্লি থেকেই নির্দেশ এসেছে দলের রাজ্য অফিসে৷

২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের ফল অনুযায়ী, ভবানীপুর বিধানসভার অন্তর্গত ছ'টি ওয়ার্ডে এগিয়ে ছিল বিজেপি৷ মুখ্যমন্ত্রীর বিধানসভা এলাকায় এই প্রবণতা দেখে রীতিমতো উৎফুল্ল হয়ে উঠেছিলেন বিজেপি নেতারা৷ শেষ বিধানসভা নির্বাচনেও ভবানীপুরে দু'টি ওয়ার্ডে এগিয়ে ছিল পদ্ম শিবির৷ কিন্তু বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূলের একপেশে জয়ের পর অতীতের এই পরিসংখ্যানেও ভবানীপুরে প্রার্থী হওয়ার আগ্রহ দেখা যাচ্ছে না বিজেপি-র মধ্যে৷

সব মিলিয়ে ভবানীপুর নিয়ে রাজ্য বিজেপি-র অস্বস্তি চরমে পৌঁছেছে৷ কারণ বার বারই করোনা অতিমারির দোহাই দিয়ে উপনির্বাচন এড়াতে চেয়েছিলেন দলের রাজ্য নেতারা৷ সেই কারণেই উপনির্বাচন ঘোষণার পর তাঁরা আদালতে যাওয়ার কথাও বলেছিলেন৷ যদিও দলের কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের নির্দেশেই শেষ পর্যন্ত ভোটে লড়তে হচ্ছে তাদের৷

গত বিধানসভা নির্বাচনে ভবানীপুরে বিজেপি প্রার্থী রুদ্রনীল ঘোষকে ২৮ হাজারের বেশি ভোটে হারিয়েছিলেন তৃণমূলের শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়৷ এবার সেখানে প্রার্থী মুখ্যমন্ত্রী স্বয়ং৷ তাঁকে রেকর্ড ভোটে জেতানোর লক্ষ্য নিয়েই মাঠে নেমেছে শাসক দল৷ সবমিলিয়ে প্রতিকূল পরিস্থিতিতে বিজেপি-র হয়ে ভবানীপুরে মমতা মুখোমুখি হওয়ার মতো উৎসাহী প্রার্থীর খোঁজ মিলছে না৷ শুধু ভবানীপুর নয়, মুর্শিদাবাদের দুই কেন্দ্র সামশেরগঞ্জ এবং জঙ্গিপুর নিয়েও কার্যত আশা ছেড়ে দিয়েছে বিজেপি রাজ্য নেতৃত্ব৷ কারণ, মুর্শিদাবাদের এই এলাকাগুলিতে দলের সংগঠনের অবস্থা যথেষ্ট খারাপ৷ বিধানসভা নির্বাচনের ফলের পর সংখ্যালঘু প্রধান ওই এলাকাগুলিতে কার্যত ভেঙে গিয়েছে গেরুয়া সংগঠন৷ ফলে ওই দুই কেন্দ্রেও যথেষ্টই এগিয়ে তৃণমূল প্রার্থী৷ একমাত্র ভবানীপুরেই তৃণমূলকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেওয়ার সুযোগ ছিল বিজেপি-র সামনে৷ অথচ সেখানে প্রার্থীই মিলছে না৷

দিলীপ ঘোষ অবশ্য এ দিন ইঙ্গিত দিয়েছেন, আগামিকালই ভবানীপুরে দলীয় প্রার্থীর নাম ঘোষণা হয়ে যেতে পারে৷ একই সঙ্গে নাম না করে সম্ভবত তথাগত রায়ের কটাক্ষেরও জবাব দিয়েছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি৷ তিনি বলেন, 'লড়াই তো ময়দানে লড়তে হয়, পিছন থেকে নয়৷'

বিজেপি-র ভিতরেই নেতাদের একাংশ বলছেন, বিধানসভা নির্বাচনে যে ফল হয়েছে, তাতে এই মুহূর্তে ভবানীপুরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে লড়ে যে খুব বেশি কিছু করা সম্ভব নয়, তা বুঝতে খুব বেশি রাজনৈতিক পাণ্ডিত্যের প্রয়োজন নেই৷  তাছাড়া প্রার্থী যেখানে মুখ্যমন্ত্রী নিজে, সেখানে ভোটারদের মধ্যেও আলাদা আবেগ কাজ করে৷ সামগ্রিক পরিস্থিতি বিচার করেই তাই প্রার্থী হওয়ার জন্য উপযুক্ত কাউকে পাওয়া যাচ্ছে না৷

Published by:Debamoy Ghosh
First published: