Home /News /kolkata /
পরিবার পেয়েছে, সুযোগ পেলে আমিও নেব স্বাস্থ্যসাথী কার্ড বললেন দিলীপ, তৃণমূলের যা প্রতিক্রিয়া...

পরিবার পেয়েছে, সুযোগ পেলে আমিও নেব স্বাস্থ্যসাথী কার্ড বললেন দিলীপ, তৃণমূলের যা প্রতিক্রিয়া...

অন্যদিকে দিন কয়েক আগে বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ মন্তব্য করেন, বিজেপি জিতলে মুখ্যমন্ত্রী হবেন দিলীপ ঘোষ৷ যে মন্তব্যকে ভাল ভাবে নেয়নি দলের শীর্ষ নেতৃত্ব৷ সৌমিত্র খাঁ-কে সতর্ক করে দেয় দল৷ রাজ্য নেতাদেরও স্পষ্ট বার্তা দেওয়া হয়, মুখ্যমন্ত্রী কে হবেন তা নিয়ে যাবতীয় জল্পনায় ইতি টেনে একজোট হয়ে লড়াই করতে হবে৷

অন্যদিকে দিন কয়েক আগে বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ মন্তব্য করেন, বিজেপি জিতলে মুখ্যমন্ত্রী হবেন দিলীপ ঘোষ৷ যে মন্তব্যকে ভাল ভাবে নেয়নি দলের শীর্ষ নেতৃত্ব৷ সৌমিত্র খাঁ-কে সতর্ক করে দেয় দল৷ রাজ্য নেতাদেরও স্পষ্ট বার্তা দেওয়া হয়, মুখ্যমন্ত্রী কে হবেন তা নিয়ে যাবতীয় জল্পনায় ইতি টেনে একজোট হয়ে লড়াই করতে হবে৷

কয়েকদিন আগেই সাধারণ মানুষের মতোই লাইনে দাঁড়িয়ে স্বাস্থ্যসাথির কার্ড নেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বিজেপি বলেছে নাটক। এবার তাহলে দলের কর্মীদের কী বার্তা যাবে, প্রশ্ন তৃণমূলের।

  • Share this:

    #কলকাতা: বিজেপি রাজ্য সভাপতির পরিবারের হাতে তৃণমূল সরকারের স্বাস্থ্যসাথির কার্ড। নাম নথিভুক্ত করিয়ে তা পেয়েও গিয়েছে দিলীপ ঘোষের পরিবার। দিলীপ বলছেন, সুযোগ পেলে নিতে ক্ষতি কী? তৃণমূল স্বাগত জানালেও কটাক্ষ করতেও ছাড়ছে না।

    তৃণমূল সরকারের স্বাস্থ্যসাথি প্রকল্প। রাজ্যের প্রতি পরিবারপিছু পাঁচ লক্ষ টাকা ক্যাশলেস চিকিৎসার পরিষেবা। বঙ্গের সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে স্বাস্থ্যসাথির কার্ড দেখালেই এই প্রকল্পের সুবিধা। এমনকী দিল্লির এইমস ও ভেলোরেও কার্ডের সুবিধা মিলবে। তৃণমূল সরকারের স্বাস্থ্যসাথি প্রকল্পকে বিজেপি রাজ্য সভাপতিই কখনও বলেছেন ভাঁওতা। কখনও বলেছেন ভোটের আগে ভেট। কিন্তু সেই স্বাস্থ্যসাথির কার্ডই নিল বিজেপি রাজ্য সভাপতির পরিবার। ঝাড়গ্রামে কুলিয়ানার বাড়িতে দিলীপ ঘোষের আত্মীয়রা স্বাস্থ্যসাথির কার্ড হাতে পেয়েও গিয়েছেন। পরিবারের সদস্যরা শুধু স্বাস্থ্যসাথি নয়, একাধিক সরকারি প্রকল্পের সুবিধাও েপয়ে থাকেন। তাঁদের সাফাই, বাধ্য হয়ে এই কার্ড করতে হয়েছে। তবে প্রকল্পের বিরোধিতাও করতে ছাড়েনি বিজেপি রাজ্য সভাপতির পরিবার।

    আর দিলীপ ঘোষ? তিনি ভাঙলেন তবু মচকালেন না। বিজেপির রাজ্য সভাপতি বলছেন, "ক্ষতি কী, আমিও করব সুযোগ পেলে। মুখ্যমন্ত্রী বোকা বানাচ্ছেন। আপনারা বোকা হবেন না।" দিলীপ ঘোষের পরিবারের স্বাস্থ্যসাথি কার্ড নেওয়াকে তৃণমূল স্বাগত জানিয়েছে। তৃণমূল অবশ্য সুযোগ বুঝে কটাক্ষ করতেও ছাড়েনি।

    কয়েকদিন আগেই সাধারণ মানুষের মতোই লাইনে দাঁড়িয়ে স্বাস্থ্যসাথির কার্ড নেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বিজেপি বলেছে নাটক। এবার যখন দিলীপ ঘোষের পরিবারের হাতেই তৃণমূল সরকারের স্বাস্থ্যসাথির কার্ড, তখন বিজেপি কর্মী-সমর্থকদের কী বার্তা ? প্রশ্ন তুলেছে তৃণমূল।

    Published by:Pooja Basu
    First published:

    Tags: Dilip Ghosh, Swasthya Sathi

    পরবর্তী খবর