বিজেপিতে নতুন সমীকরণের ইঙ্গিত, কুণাল ঘোষের সঙ্গে বৈঠকে ক্ষুব্ধ শীর্ষ নেতৃত্ব

বিজেপিতে নতুন সমীকরণের ইঙ্গিত, কুণাল ঘোষের সঙ্গে বৈঠকে ক্ষুব্ধ শীর্ষ নেতৃত্ব

কুণাল ঘোষের সঙ্গে বিজেপি নেতাদের বৈঠকের ঘটনায় রাজ্য নেতৃত্বের উপর ক্ষুব্ধ কেন্দ্রীয় নেতৃত্বে ৷

কুণাল ঘোষের সঙ্গে বিজেপি নেতাদের বৈঠকের ঘটনায় রাজ্য নেতৃত্বের উপর ক্ষুব্ধ কেন্দ্রীয় নেতৃত্বে ৷

  • Share this:

    #কলকাতা: কুণাল ঘোষের সঙ্গে বিজেপি নেতাদের বৈঠকের ঘটনায় রাজ্য নেতাদের উপর ক্ষুব্ধ কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব ৷ তৃণমূল কংগ্রেসের বিতারিত সদস্য কুণাল ঘোষের সঙ্গে রাজ্যের বিজেপি নেতাদের বৈঠককে মোটের ভালো চোখে দেখছে গেরুয়া শীর্ষ নেতৃত্ব ৷ রাজ্য বিজেপির এই পদক্ষেপে ক্ষুব্ধ খোদ গেরুয়া সেনাপতি অমিত শাহ ৷ এই বৈঠক নিয়ে রাজ্যের কাছে জবাব তলব করেছে শীর্ষ নেতৃত্ব ৷

    রবিবার কুণাল ঘোষের বাড়িতে আচমকাই হয় বিজেপি নেতাদের বৈঠক। নববর্ষ উপলক্ষে চা-চক্রের 'অজুহাত'-এ হওয়া এই বৈঠকে ছিলেন সোমেন মিত্র, বিজেপি নেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায়, সায়ন্তন বসু, অরুণাভ ঘোষ। হঠাৎ হওয়া এই বৈঠক ঘিরে রাজনৈতিক মহলে জোর জল্পনা। বৈঠক নিয়ে কেউ মুখে কিছু না বললেও লকেটের কথায় নতুন রাজনৈতিক সমীকরণের ইঙ্গিত মেলে।

    এরপরই আসে কেন্দ্রীয় বিজেপি নেতৃত্বের প্রতিক্রিয়া ৷ শীর্ষ নেতৃত্বের অনুমোদন ছাড়াই রাজ্য বিজেপির এমন পদক্ষেপে ক্রুদ্ধ উপরমহল ৷ একে দলের অন্দরে বিরোধী মঞ্চ গড়ার প্রচেষ্টা হিসেবে দেখেছে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব ৷ সারদা কাণ্ডের কারণে কুণালের সঙ্গে নাম জড়ানোয় আপত্তি দলের ৷ ‘ওই বৈঠক রাজনৈতিক অদূরদর্শিতা’ বলে দাবি বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের ৷ ‘সায়ন্তন, লকেটকে অনুমতি কে দিলেন?’এই নিয়ে রাজ্যের কাছে কৈফিয়ৎ চেয়েছে গেরুয়া শীর্ষ নেতৃত্ব ৷

    অন্যদিকে,  সোমবার থেকে বর্ধমানে শুরু হচ্ছে বিজেপির দু'দিনের রাজ্য কমিটির বৈঠক। পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে বুথ স্তরের সংগঠন নিশ্চিত করতে চায় গেরুয়া শিবির। রাজ্যে প্রায় সাতাত্তর হাজার বুথ রয়েছে। বিজেপি সভাপতির রাজ্য সফরেও কড়া বার্তা, প্রত্যেক বুথে পৌঁছে যেতে হবে পদাধিকারীদের। বাড়াতে হবে জনসংযোগ।

    রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানিয়েছেন, দলে থেকেও নিষ্ক্রিয় কর্মীদের চিহ্নিত করার কাজ চলছে। দলকে মেদহীন করে সংগঠনে গতি আনাই এখন মূল লক্ষ্য। সেইসঙ্গে দলে যোগ দেওয়া সেলিব্রিটিদেরও ভূমিকা খতিয়ে দেখা হবে। ছয় থেকে একুশে জুন পর্যন্ত বুথ অভিযানের পর চূড়ান্ত রিপোর্ট যাবে দিল্লিতে। সেই রিপোর্টের ভিত্তিতেই ফের রাজ্য সফরে আসতে পারেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ।

    First published:

    লেটেস্ট খবর