১২ জুন লালবাজার অভিযানের ডাক বিজেপির

১২ জুন লালবাজার অভিযানের ডাক বিজেপির
ফাইল চিত্র
  • Share this:

#কলকাতা: সন্দেশখালির ঘটনাকে কাজে লাগিয়ে আরও আগ্রাসী রাজনীতির পথে বিজেপি। আগামী ১২ জুন লালবাজার অভিযানের ডাক দিয়েছে গেরুয়া শিবির। আজ সন্দেশখালিতে যায় বিজেপি প্রতিনিধিদল। তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতিনিধিরাও রবিবার সংঘর্ষে নিহত কর্মীর বাড়িতে যান।

রাজনৈতিক সংঘর্ষে রাজ্য রাজনীতির অভিমুখ এখন সন্দেশখালি। সন্দেশখালির ঘটনাকে হাতিয়ার করে ঝাঁপাচ্ছে বিজেপি। ১২ জুন বিজেপির লালবাজার অভিযানের কর্মসূচি ৷ লক্ষাধিক কর্মী-সমর্থক নিয়ে অভিযানের পরিকল্পনা করেছে রাজ্য বিজেপি ৷ ১৮ জন সাংসদ ছাড়াও অভিযানে থাকবে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব ৷

সন্দেশখালির ঘটনাকে কাজে লাগাতে রবিবার সকাল থেকেই তৎপর গেরুয়া শিবির। সন্দেশখালির পথে রওনা দেয় বিজেপি প্রতিনিধিদল। তবে ১৪৪ ধারা জারি থাকায় নিহত দলীয় কর্মীদের বাড়িতে যেতে পারেনি তাঁরা। বসিরহাট হাসপাতাল চত্বরেই নিহত কর্মীদের পরিবারের সঙ্গে কথা বলেন দিলীপ ঘোষ, লকেট চট্টোপাধ্যায়রা।

সন্দেশখালির ঘটনাকে যে তাঁরা হাতিয়ার করবেন তা স্পষ্ট বিজেপি রাজ্য সভাপতির কথায়। এই ঘটনার প্রতিবাদে রবিবার কলকাতার সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউ, হাজরাতে অবরোধ করেন বিজেপি কর্মীরা। রাজ্যের বিভিন্ন জেলাতেও অবরোধ-বিক্ষোভ করেন বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা।

হাত গুটিয়ে বসে নেই তৃণমূলও। তৃণমূল কর্মী কায়ুম মোল্লার বাড়িতে যায় তৃণমূলের প্রতিনিধি দল। রাজনৈতিক সংঘর্ষের দায়ে বিজেপিকে কাঠগড়ায় তুলছে রাজ্যের শাসকদল। গেরুয়া শিবিরের ওপর চাপ বাড়ানোরও পরিকল্পনা তৃণমূলের। বিজেপিকে নিষিদ্ধ করার দাবি তুলেছেন ফিরহাদ হাকিম ৷

আপাতত সন্দেশখালির ঘটনা নিয়ে যুযুধান কেন্দ্র ও রাজ্যের শাসক দল। ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে পায়ের তলার মাটি শক্ত করতে মরিয়া বিজেপি। তাই ১২ জুন লালবাজার অভিযানের ডাক। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফেও রাজ্য প্রশাসনকে পদক্ষেপ করার সুপারিশ করেছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। এটাও রাজনৈতিক কৌশল হিসাবেই দেখছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

First published: 09:03:43 PM Jun 09, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर