হঠাৎই অগ্নিমূল্য বাজার ! লক্ষ্মীপুজোর আয়োজনে হাত পুড়ছে মধ্যবিত্তের

হঠাৎই অগ্নিমূল্য বাজার ! লক্ষ্মীপুজোর আয়োজনে হাত পুড়ছে মধ্যবিত্তের
Representational Image

লক্ষ্মীপুজোর বাজারে জিনিসপত্রের দাম দেখে মাথায় হাত মধ্যবিত্ত বাঙালির ৷

  • Share this:

#কলকাতা:  দুর্গাপুজোর ঠিক পরেই আসে লক্ষ্মীপুজো ৷ সারা পুজোয় যা খরচ হয়েছে, তাতে এমনিতেই সবারই পকেটে টান থাকে ৷ তার উপর আবার বাড়িতে লক্ষ্মীপুজো না করলেও নয় ৷ সমস্যা হল জিনিসপত্রের আগুন দাম ! প্রতি বছর যা বেড়েই চলেছে ৷ আগামীকাল বৃহস্পতিবার কোজাগরী লক্ষ্মীপুজোর বাজারে জিনিসপত্রের দাম দেখে মাথায় হাত মধ্যবিত্ত বাঙালির ৷ 

বাজারে ঢুকলেই ছ্যাঁকা। সবজি থেকে ফিল এবং ফল ৷ প্রতিমা থেকে সাজের উপকরণ। নিজের সাধ্যমত জিনিস কিনতে হিমশিম খাচ্ছে বাঙালী। কেউ লুচির সঙ্গে ছোলার ডালের ব্যবস্থা করতে গিয়ে নাজেহাল। কেউ ফুল কিনতে গিয়ে হতভম্ভ। সবজি, ফলের বাজারে ঢুকে ব্যাকফুটেও চলে গিয়েছেন কেউ কেউ। দাম অস্বাভাবিকভাবে বেড়েছে প্রতিমারও।

বাজারে হঠাৎই অগ্নিমূল্য ফুলকপি ৷ লক্ষ্মীপুজো আসতেই রাতারাতি দ্বিগুণ দামে বিক্রি হচ্ছে ফুলকপি ৷ পাশাপাশি দাম বেড়েছে টমেটো, আপেল, বাঁধাকপি, বেগুনেরও ৷ ফলের দামও বেশ চড়া ৷  দ্বিগুণ দামে বিক্রি হচ্ছে পানিফল, শসা এবং নারকেলেরও ৷ 

কলকাতার পাশাপাশি জেলার বাজারে জিনিসপত্রের দামও আকাশ ছোঁয়া ৷ কোথাও ধানের শিস বিক্রি হচ্ছে ১৫ থেকে ২০ টাকায়। পদ্ম ফুলের এক জোড়া কুড়ির দাম ৪০ থেকে ৫০ টাকা। শসা, কলা, আপেল, মোসাম্বি কেজি প্রতি ৯০ থেকে ২০০ টাকা ! বন্যার জন্য জিনিসপত্রের দাম বেড়েছে বলে মনে করা হলেও আদতে কি সেটাই জিনিসপত্রের দাম বাড়ার কারণ কী না, তা নিয়ে সংশয় তৈরি হয়েছে ৷ কারণ দু’তিন দিন আগেও যে জিনিসের দাম স্বাভাবিক ছিল, সেগুলির আচমকাই অস্বাভাবিক দাম বেড়ে গিয়েছে ৷ যাতে স্বাভাবিকভাবেই এখন দারুণ সমস্যায় পড়েছেন মধ্যবিত্তরা ৷

First published: 09:48:13 AM Oct 04, 2017
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर