corona virus btn
corona virus btn
Loading

অমিতের আমফান বৈঠকে রাজ্যের অফিসারকে তলব, না জানানোয় রুষ্ট মমতা

অমিতের আমফান বৈঠকে রাজ্যের অফিসারকে তলব, না জানানোয় রুষ্ট মমতা
মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ photo source collected

আমফানের প্রস্তুতি নিয়ে পর্যালোচনা করতে এ দিন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ দিল্লিতে একটি বৈঠক করেন৷ ঘূর্ণিঝড়ের ফলে যে রাজ্যগুলিতে দুর্যোগের আশঙ্কা রয়েছে, তাদের প্রতিনিধিদেরও বৈঠকে ডাকা হয়৷

  • Share this:

#কলকাতা: আমপান নিয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বৈঠক। আর সেখানে বাংলা থেকে আমন্ত্রিত দিল্লিতে নিযুক্ত বাংলার রেসিডেন্ট কমিশনার।আর তা নিয়েই বিতর্ক তুঙ্গে। রেসিডেন্ট কমিশনার নিঃসন্দেহে বাংলা প্রশাসনের এক গুরুত্বপূর্ণ প্রতিনিধি৷ প্রশাসন বলতে অবশ্যই মুখ্যমন্ত্রী এবং মুখ্যসচিবকে বোঝায়।সেই দু' জনের কাউকে না জানিয়ে রেসিডেন্ট কমিশনারকে আমন্ত্রণ জানানো ভালো চোখে নেননি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।বিকেলে এই নিয়ে কথা বলতে গিয়ে ক্ষোভ উগড়ে দেন তিনি।মুখ্যমন্ত্রীর কথায়  'মুখ্যসচিব, মুখ্যমন্ত্রীর দপ্তর কেউ এই মিটিং-এর বিষয়ে জানে না, এভাবে রাজ্য প্রশাসনকে না জানিয়ে রেসিডেন্ট কমিশনারকে ডাকা দেশের ফেডারেল স্ট্রাকচারের বিরোধী ।'

মুখ্যমন্ত্রীর কথায় স্পষ্ট, এই বৈঠক নিয়ে নবান্ন অন্ধকারে ছিল। কিন্তু তার চেয়েও বড় প্রশ্ন যা প্রশাসনকে ভাবাচ্ছে তা হলো, কেন্দ্র না হয় জানায়নি, তাই বলে রেসিডেন্ট কমিশনার কেন রাজ্য প্রশাসনকে না জানিয়ে বৈঠকে যাবেন?

দিল্লিতে বাংলার রেসিডেন্ট কমিশনার কৃষ্ণ গুপ্তকে এনিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি কিছু উত্তর না দিয়েই ফোন রেখে দেন।তিনি কি প্রশাসনকে এ বিষয়ে জানিয়েছিলেন ? তিনি কি আদৌ আজকের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ডাকা বৈঠকে গিয়েছিলেন? যেখানে কেন্দ্র রাজ্য সম্পর্ক নিয়ে প্রতিদিন চাপানউতোর চলছে , সেখানে রেসিডেন্ট কমিশনার কি এই ঝুঁকি নেবেন? প্রশ্ন উঠলেও উত্তর আসেনি দিল্লির রেসিডেন্ট কমিশনারের অফিস থেকে৷ প্রশাসনের একটি সূত্র বলছে , রেসিডেন্ট কমিশনার যাননি বৈঠকে।পরিবর্তে অন্য কোনও আধিকারিককে তিনি পাঠান আজকের এই বৈঠকে। যদিও এই মতের সমর্থনে কোনও সরকারি বিবৃতি নেই ।

কিন্তু দিনের শেষে দিল্লিতে বাংলার রেসিডেন্ট কমিশনারকে নিয়ে আলোচনা তুঙ্গে। কৃষ্ণ গুপ্ত এক সময় রাজ্যের শিল্প ও বাণিজ্য দপ্তরে যুক্ত ছিলেন।পরবর্তী পর্যায়ে রেসিডেন্ট কমিশনার নিযুক্ত হন এই এডিশনাল চিফ সেক্রেটারি পর্যায়ের অফিসার । প্রশাসনে ভদ্রলোক বলে পরিচিত এই আধিকারিক। তবে আজকের বৈঠক ঘিরে তাঁর যোগদান  বা প্রতিনিধি পাঠানোর বিষয়ে কিছুই স্পষ্ট করেননি তিনি।

বাংলার প্রাক্তন মুখ্যসচিব অর্ধেন্দু সেন মুখ্যসচিবের দায়িত্ব ভার গ্রহণের আগে দিল্লিতে রেসিডেন্ট কমিশনার ছিলেন। এর থেকেই স্পষ্ট রেসিডেন্ট কমিশনারের পদটি কতটা গুরুত্বপূর্ণ৷ তাই এহেন একজন সিনিয়র অফিসার রাজ্য প্রশাসনকে না জানিয়ে বৈঠকে যোগ দেবেন , আর তখন যখন কেন্দ্রের সঙ্গে বাংলার অহীনকুল সম্পর্ক, এমনটা মনে হয় না। সেক্ষেত্রে প্রতিনিধি পাঠানোর সম্ভাবনা রয়েছে। যাই হোক, স্ত্রীর অসুস্থতার পর এক রকম জোর করেই দিল্লি ট্রানফার নিয়েছিলেন, এখন সারাজীবন বিতর্ক থেকে দূরে থাকা কৃষ্ণ গুপ্তকে নিয়েই আলোচনা চলল দিনভর।

SOURAV GUHA

Published by: Debamoy Ghosh
First published: May 18, 2020, 9:12 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर