রাজ্যে ফিরে আসা পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য বিকল্প কাজের ব্যবস্থা সরকারের, দৈনিক ২৯৯টাকা মজুরি

Representative Image

একশো দিনের কাজে সব মানুষকে তালিকাভুক্ত করা সম্ভব না। তাই একশো দিনের কাজের পরিপূরক হিসেবে বিকল্প কাজ হাতে নিয়েছে পর্ষদ।

  • Share this:

#কলকাতা: পরিযায়ীদের জন্য বিকল্প কাজ শুরু করেছে রাজ্য সরকার। পরিযায়ী শ্রমিকরা রাজ্যে ফিরে এলে তাদের নানা কাজে লাগাবার নির্দেশ দিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু একশো দিনের কাজে সব মানুষকে তালিকাভুক্ত করা সম্ভব না। তাই একশো দিনের কাজের পরিপূরক হিসেবে বিকল্প কাজ হাতে নিয়েছে পর্ষদ। দৈনিক ২৯৯ টাকা মজুরি দেওয়া হবে এই কাজে। এই কাজের জন্য ট্রেনিং, প্রাথমিক খরচ, সবই জোগাবে রাজ্য পঞ্চায়েত দফতর।

এর জন্য দেড় হাজার কোটি টাকা লোন নিচ্ছে রাজ্য পঞ্চায়েত দফতর। স্টেট কোয়াপারেটিভ ব্যাঙ্ক থেকে এই লোন নিচ্ছে পঞ্চায়েত দফতরের অধীন সমন্বয় এলাকা উন্নয়ন পর্ষদ।

বর্তমানে ঝাড়গ্রাম, পশ্চিম মেদিনীপুর ও পুরুলিয়ায় ইতিমধ্যেই পরিযায়ী শ্রমিকদের নিয়ে শুরু হয়েছে পাইলট প্রকল্প। বীজ ও অন্যান্য কাঁচামাল দেবে পঞ্চায়েত দফতরই। পরিয়ায়ীদের জন্য বিকল্প কাজ হিসেবে আপাতত এই প্রকল্পগুলোকে হাতে নিয়েছে রাজ্য পঞ্চায়েত দফতর৷

চাল ডালের বীজতলা তৈরীর জন্য সিড বেড, ভার্টিক্যাল কিচেন গার্ডেন বা খাড়াই শস্য মাচা (ঝিঙে , পটল , শশা চাষের জন্য), ফেলে দেওয়া জলের পাইপ, বোতলে চাষ বা হাইড্রোপনিক প্ল্যানটেশন । ছয় ফুট বাই তিন ফুট জমিতে মাছ চাষ৷ এই প্রকল্প গুলিতে যা উৎপাদন হবে তা সবই কিনে নেবে পঞ্চায়েত দফতর। এই ফসল বিক্রির দায় কোনওভাবে উৎপাদকের নয়। দফতরের দেখানো পথে চাষ করে তারা দৈনিক ২৯৯ টাকা করে পাবেন। পঞ্চায়েত দফতরের আশা এই চাষে মাসে পাঁচ হাজার টাকা আয় করবেন এক এক জন শ্রমিক।

Published by:Pooja Basu
First published: