বারুইপুর জেলে বন্দি বিক্ষোভ, জেল-সুপার ও জেলারকে পাঠানো হল ছুটিতে

বারুইপুর জেলে বন্দি বিক্ষোভ, জেল-সুপার ও জেলারকে পাঠানো হল ছুটিতে

বন্দি বিক্ষোভের জেরে এক জেলারকে বদলি করা হয়েছে। বাকি দু'জনকে অনির্দিষ্টকালের জন্য ছুটিতে পাঠানো হয়েছে

  • Share this:

#বারইপুর: বন্দি বিক্ষোভের জেরে শেষমেশ সরতে হল বারুইপুর কেন্দ্রীয় সংশোধনাগারের সুপার এবং দুই জেলারকে।  এরমধ্যে এক জেলারকে বদলি করা হয়েছে। বাকি দু'জনকে অনির্দিষ্টকালের জন্য ছুটিতে পাঠানো হয়েছে।

সংশোধনাগার দফতর সূত্রে খবর, বারুইপুর জেলের সুপার নবীন কুজুর এবং জেলার স্বপন দাসকে বুধবার থেকে ছুটিতে যেতে বলা হয়েছে। দফতরের ভারপ্রাপ্ত ডিজি অরুণ গুপ্ত জানিয়েছেন," বর্তমানে প্রেসিডেন্সি রেঞ্জের ডিআইজি সুদীপ্ত চক্রবর্তীকে আপাতত ওই জেলের দায়িত্ব সামলাতে বলা হয়েছে। আর এক জেলার অমৃতা মণ্ডলকে বদলি করা হয়েছে আসানসোল জেলে। অন্যদিকে আসানসোল জেলের জেলার উত্তম কুমারকে বারুইপুর জেলের দায়িত্বে আনা হয়েছে।"

জেল সূত্রে খবর, সোমবার বিকালে কেন্দ্রীয় সংশোধনাগারের দুই বিচারাধীন বন্দির মধ্যে প্রথমে গণ্ডগোল শুরু হয়। তারপর সেই গণ্ডগোলে যুক্ত হয়ে পড়ে অন্য বন্দিরা। এরপর শুরু হয় ইটবৃষ্টি। সংশোধনাগারে কাজের জন্য রাখা এই ইট নিয়ে এক পক্ষ অন্য পক্ষের দিকে ছুড়তে শুরু করে। ভাঙচুর করা হয় জেল অফিস। এই গণ্ডগোলের মধ্যে পড়ে আহত হলেন অতিরিক্ত জেল সুপার শ্যামল চক্রবর্তী। কিছুক্ষণের জন্য বন্দিদের মুক্তাঞ্চল হয়ে ওঠে ওই জেল। পরে বিশাল পুলিশ বাহিনী এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। বন্দিদের মূল অভিযোগ, যে কোনও কাজে জেলে এত তোলা আদায় হত, সেই রোষেরই বহিঃপ্রকাশ হয়েছে সোমবার। যদিও জেল দফতরের একাংশের দাবি, কড়া হাতে বন্দিদের রাখতে গিয়েই রোষের মুখে পড়তে হয়েছে জেল কর্তৃপক্ষকে।

First published: March 5, 2020, 1:39 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर