• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • BANK FRAUD IN KOLKATA 1 LAKH 17 THOUSAND RUPEES VANISHED FROM AN ACCOUNT AKD

Bank Fraud in Kolkata: শহরে ফের ব্যাঙ্ক প্রতারণা, দিনেদুপুরে এক মেসেজেই অ্যাকাউন্ট থেকে গায়েব ১ লক্ষ ১৭ হাজার

গরফার বাসিন্দা সুদীপ্ত গোস্বামীর অ্যাকাউন্ট থেকে দিনেদুপুরে ১লক্ষ ১৭ হাজার টাকা উধাও হলো।

Bank Fraud in Kolkata:দিশেহারা সুদীপ্তবাবু গরফা থানা ও লালবাজার অ্যান্টি ব্যাঙ্ক ফ্রড সেকশনে অভিযোগ দায়ের করেন।

  • Share this:

    #অমিত চক্রবর্তী, কলকাতা: ফের শহরে অনলাইন ব্যাঙ্ক প্রতারণার (Online Bank Fraud) শিকার এই শহরেরই এক ব্যক্তি। এবার  গরফার বাসিন্দা সুদীপ্ত গোস্বামীর অ্যাকাউন্ট থেকে দিনেদুপুরে  ১লক্ষ ১৭ হাজার টাকা উধাও হলো। দিশেহারা সুদীপ্তবাবু গরফা থানা ও লালবাজার অ্যান্টি ব্যাঙ্ক ফ্রড সেকশনে অভিযোগ দায়ের করেন।

    কী ভাবে সুদীপ্ত গোস্বামীর টাকা গায়েব হল ? সুদীপ্ত জানান, ভোডাফোনের (ভিআই) নাম করে প্রথমে মেসেজ পাঠিয়ে কেওয়াইসি আপডেট করার কথা বলা হয় তাকে। এরপর বুধবার সকাল ১১টা নাগাদ একটি নম্বর থেকে ফোন করে  ভিআই পোস্টপেইড নম্বরের কেওয়াইসি আপডেটের কথা বলে মোবাইলে একটি লিঙ্ক পাঠানো হয়। সেই লিঙ্কের মাধ্যমে আপডেট ফর্ম পূরণ করার কথা বলা হয়।

    সুদীপ্তবাবু ওই লিঙ্কে ক্লিক করতেই একটি পেজ খোলেন, তাতে ওঁর নাম নম্বর ডিটেলস দেন। এরপর পেইমেন্ট অপশন আসে। তাঁকে ১৩.৯০ টাকা দিতে বলা হয়। তিনি এই টাকা ইন্টারনেট ব্যাঙ্কিংয়ের মাধ্যমে পেমেন্ট করেছিলেন। এরপরই সঙ্গে সঙ্গে এসবিআই থেকে তাঁর কাছে মেসেজ আসে ওনার পাসওয়ার্ড বদলে যায়। অভিযোগ. তিনি মোবাইলে দেখেন তার অজান্তেই quick support নামে একটি সফটওয়ার সিস্টেম ডাউনলোড হয়ে অ্যাকটিভ হয়ে গিছে। যার মাধ্যমে ওনার মোবাইল ক্লোন করে সমস্ত ডিটেলস হাতিয়ে নেওয়া হয়েছে।

    আর ওই সময়ের মধ্যে কিছু বোঝার আগেই  ১লক্ষ ১৭ হাজার টাকা সরিয়ে ফেলেছেন প্রতারকরা। দেখা যাচ্ছে ওঁর অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা ফ্লিপকার্টে ট্রান্সফার হয়েছে।

    প্রতারিত হয়েছেন বুঝতে পেরে সুদীপ্ত থানায় যোগাযোগ করেন। থানা থেকে বিষয়টি লালবাজারেও জানানো হয়। অপরাধীদের খোঁজ করছে পুলিশ। উল্লেখ্য কলকাতা শহরে দিন কয়েক আগেই এটিএম স্কিমিং, অনলাইন প্রতারণা ইত্যাদিতে যুক্ত জামতারা গ্যাংয়ের খোঁজে পেয়েছে পুলিশ। অ্যান্টি ব্যাঙ্ক ফ্রড সেকশন থেকে সম্প্রতি ১৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এই দলেরই কেউই জালিয়াতির সঙ্গে যুক্ত কিনা তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

    Published by:Arka Deb
    First published: