ইস্তফা দিয়েছেন, এবার সরাসরি ফিরহাদ হাকিমকে 'কুমন্তব্যের' জন্য আইনি নোটিস বৈশাখীর

ইস্তফা দিয়েছেন, এবার সরাসরি ফিরহাদ হাকিমকে 'কুমন্তব্যের' জন্য আইনি নোটিস বৈশাখীর

ফিরহাদ হাকিমকে আইনি নোটিস দিলেন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়।

ফিরহাদ হাকিমের পাশাপাশি আইনি নোটিস পাঠানো হয়েছে আমিরউদ্দিন ববিকেও।

  • Share this:

#কলকাতা: ইস্তফাপত্র পাঠিয়েছিলেন বৃহস্পতিবার। এবার ফিরহাদ হাকিমকে আইনি নোটিস পাঠালেন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। বৈশাখীর স্পষ্ট যুক্তি, তিনি একজন মহিলা সম্পর্কে যে মন্তব্য করেছেন তা অপমানজনক। ফলে অবিলম্বে ক্ষমা চাইতে হবে। না হলে আদালতের দ্বারস্থ হবেন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। ফিরহাদ হাকিমের পাশাপাশি আইনি নোটিস পাঠানো হয়েছে আমিরউদ্দিন ববিকেও।

বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে জিজ্ঞেস করা হলে নিউজ১৮ বাংলাকে তিনি বলেন, "বাংলার মানুষ দেখেছে কলেজ শিক্ষার সঙ্গে দূরদূরান্তের কোনও সম্পর্ক নেই এমন একজন পুর প্রশাসক কলেজ সংক্রান্ত বিষয়ে একজন মহিলা টিচার ইনচার্জকে এমন অভব্য ভাষায় আক্রমণ করেছেন, তাতে আমার মানহানিই শুধু ঘটেনি, আমায় চাকরি ছাড়তে হয়েছে। আমার সামাজিক প্রতিচ্ছিটুকু নষ্ট হয়েছে তাই জন্যেই ওই দুই ব্যক্তিকে নোটিস দিয়েছি আমি।"

ওই নোটিসে সময়সীমাও বেঁধে দিয়েছেন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর কথায়, "সম্মান নিয়ে বাঁচাটা মৌলিক অধিকার। সেই সম্মানটাই নষ্ট হয়েছে। উনি যে কথা বলেছেন তা ভাইরাল হয়েছে। ঘটনাটা শুধু কলেজের চৌহদ্দিতে আটকে নেই। আমার মর্যাদাটা নষ্ট করেছে। একজন দায়িত্ববান জনপ্রতিনিধির ভাষা কতটা সংসদীয়, সেটাও বুঝতে চাই। সেই কারণেই নোটিস পাঠিয়েছি। ক্ষমা চাওয়ার সময়সীমা পার হলে আদালতে যাব।"

উল্লেখ্য বৈশাখীদেবী হঠাৎই চাকরি থেকে ইস্তফা দেন শুক্রবার। যুক্তি হিসেব তিনি বলেন, এক উর্দু মিডিয়া ফিরহাদ হাকিমের মুখের ভাষা ব্যবহার করেই বদলি প্রসঙ্গে শিরোনামে লেখে, বৈশাখীকে উখারকে ফেক দিয়া। এতে তাঁর সম্মানহানি হয়। তিনি তখনই ক্ষোভপ্রকাশ করে বলেছিলেন, "নেতামন্ত্রীরা যদি এই ভাবে আমার ছবিটা ম্লান করে দিতে থাকে শুধু মিলি আল আমিন নয়, কোনও কলেজেই সম্মানের সঙ্গে করতে পারব না।"

Published by:Arka Deb
First published: