আংশিক এবং চুক্তিভিত্তিক কলেজ শিক্ষকদের জন্য দুঃসংবাদ, জেনে নিন কেন

আংশিক এবং চুক্তিভিত্তিক কলেজ শিক্ষকদের জন্য দুঃসংবাদ, জেনে নিন কেন
File Photo

১০ বছরের কম অথবা ১০ বছরের বেশি রাজ্যের কলেজগুলিতে যাঁরা আংশিক এবং চুক্তিভিত্তিক কলেজ শিক্ষককতার কাজ করেছেন তাঁদের বেতন বাড়বে।

  • Share this:

#কলকাতা: রাজ্যের কলেজগুলিতে দীর্ঘদিন ধরে আংশিক এবং চুক্তিভিত্তিক শিক্ষকতা করে চলেছেন এমন কলেজ শিক্ষকের সংখ্যা কম নয়। রাজ্য সরকার তাঁদের পাশে দাঁড়িয়ে চাকরির একটা পাকা বন্দোবস্তও করে দিয়েছিল। ২৩ ডিসেম্বর ২০১৯, রাজ্যের শিক্ষা দপ্তর একটি মেমোরেন্ডাম জারি করে। তাতে বলা হয়, ১০ বছরের কম অথবা ১০ বছরের বেশি রাজ্যের কলেজগুলিতে যাঁরা আংশিক এবং চুক্তিভিত্তিক কলেজ শিক্ষককতার কাজ করেছেন তাঁদের বেতন বাড়বে। মোমোরেন্ডাম অনুযায়ী ইউজিসি নিয়মে কলেজ শিক্ষকতা করার যোগ্যতা যাদের রয়েছে সেই সমস্ত আংশিক ও চুক্তিভিত্তিক কলেজ শিক্ষকদের মাসিক বেতন বাড়িয়ে করা হয় ৩১০০০ থেকে ৩৫০০০ টাকা পর্যন্ত। যে সমস্ত আংশিক এবং চুক্তিভিত্তিক কলেজ শিক্ষকদের, ইউজিসি নিয়ম অনুযায়ী যোগ্যতা নেই তাঁদের বেতন করা হয় মাসিক ২০০০০ থেকে ২৫০০০ টাকা। এছাড়া প্রতিবছর ৩ শতাংশ হারে বেতন বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত জানানো হয় মেমোরেন্ডামে।

3989_IMG_20200118_182628 রাজ্যের ২৩শে ডিসেম্বরের এই মেমোরেন্ডাম হাইকোর্টে চ্যালেঞ্জের মুখে। তা খারিজ করার আবেদন নিয়ে হাইকোর্টে মামলা ঠুকেছে একটি সংগঠন। ইউনাইটেড স্টুডেন্ট'স এন্ড রিসার্চ স্কলার'স অ্যাসোসিয়েশন বিচারপতি তপব্রত চক্রবর্তীর বেঞ্চে মামলা দায়ের করেছে। আগামী সপ্তাহে এই মামলার শুনানির সম্ভাবনা। অ্যাসোসিয়েশনের আইনজীবী ফিরদৌস শামীম কথায়, "আংশিক এবং চুক্তিভিত্তিক কলেজ শিক্ষকদের বেতন বৃদ্ধির নামে কলেজ গুলির শূন্যপদ ভরাট করা হচ্ছে। ইউজিসি যোগ্যতা না থাকা কলেজশিক্ষকের সংখ্যাই বেশি সেখানে। ফলতঃ দীর্ঘদিন যোগ্যতা থাকা মেধাবী নিয়োগ প্রার্থীরা ওই শূন্য পদের জন্য আবেদনই করতে পারবেন না। এই জায়গাটাই আদালতের কাছে তুলে ধরব আমরা।" মামলায় আবেদন করা হয়েছে, রাজ্যের মেমোরেন্ডাম সম্পূর্ণ খারিজ করা হোক। এছাড়া মামলা বিচারাধীন থাকলে মেমোরেন্ডাম-এর ওপর অন্তর্বর্তী স্থগিতাদেশ জারি করুক হাইকোর্ট। অ্যাসোসিয়েশনের আরও বক্তব্য, ইউজিসি যোগ্যতা মান থাকা আংশিক এবং চুক্তিভিত্তিক কলেজ শিক্ষকদের বেতন বৃদ্ধি করতেই পারে রাজ্য। কিন্তু ইউজিসি যোগ্যতামান না থাকা ব্যক্তিদের বেতন বৃদ্ধিসহ নানা সুযোগ সুবিধা দিলে ভবিষ্যতে রাজ্যে কলেজ সার্ভিস কমিশন-এর মত পরীক্ষাগুলোর কোনও প্রয়োজনীয়তা থাকেনা।

ARNAB HAZRA
First published: January 18, 2020, 7:53 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर