• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • BABUL SUPRIYO FACEBOOK POST ON DILIP GHOSH RAISING NEW CONTROVERSY SANJ

Babul Supriyo : মন্ত্রিত্ব-হারা বাবুলে 'আনন্দ' দিলীপের? ফেসবুক পোস্টে কী খোঁচা দিলেন বাবুল সুপ্রিয়?

দিলীপকে কী বার্তা বাবুলের

মন্ত্রিত্ব ছাড়ার দিন থেকেই একের পর এক ফেসবুক পোস্ট করে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে বাবুল (Babul Supriyo)। এই আবহেই এবার সরাসরি বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে (Dilip Ghosh) নিয়ে পোস্ট করলেন আসানসোলের বিজেপি সাংসদ।

  • Share this:

    #কলকাতা : নরেন্দ্র মোদি সরকারের মন্ত্রিসভা থেকে নাম বাদ পড়েছে ৭ বছরের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়র (Babul Supriyo)। মন্ত্রিত্ব ছাড়ার দিন থেকেই একের পর এক ফেসবুক পোস্ট করে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে বাবুল (Babul Supriyo)। এই আবহেই এবার সরাসরি বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে নিয়ে পোস্ট করলেন আসানসোলের বিজেপি সাংসদ। সামান্য শ্লেষ মিশ্রিত ওই পোস্ট নিয়ে চলছে জোর আলোচনা। বঙ্গ বিজেপির মধ্যে ফাটল কি ক্রমশ প্রকট হচ্ছে, ক্রমশ জোরাল হচ্ছে সেই প্রশ্ন।

    ‘আমাকে ইস্তফা দিতে বলা হয়েছে।’ মন্ত্রিত্ব ছাড়ার দিন সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রথমে এমনই এক পোস্ট করেছিলেন বাবুল সুপ্রিয়। পরে আবার ‘শুধরে’ নিয়ে বাবুল লেখেন, ‘ইস্তফা দিতে বলা হয়েছিল কথাটা হয়ত এভাবে ব্যবহার করা ঠিক নয়।’ মন্তব্যের পুনরায় ব্যাখ্যা করলেও প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর পোস্টে যে কিছুটা অভিমান মেশানো ছিল, তা ওই দিন স্পষ্ট হয়ে যায়।

    বাবুলের মন্ত্রিত্ব না পাওয়া নিয়ে মন্তব্য করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। এরপরে শুক্রবার বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, বাবুল হাঁফ ছেড়ে বেঁচেছেন। মুখ্যমন্ত্রী বিভিন্ন সময় যে ভাবে বাবুলকে আক্রমণ করেছেন, সেই রেশ টেনে দিলীপ ঘোষের বক্তব্য ছিল, ‘বাবুল সক্রিয় মন্ত্রী ছিলেন। কিন্তু মন্ত্রী থাকাকালীন তো মুখ্যমন্ত্রী কম গালমন্দ করেননি। এখন হাঁফ ছেড়ে বাঁচলেন বাবুল।’

    বিজেপি রাজ্য সভাপতির এই মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতেই একটি ফেসবুক পোস্ট করেছেন বাবুল সুপ্রিয়। বাবুলের মন্তব্য বলছে, “রাজ্য সভাপতি হিসেবে ‘মনের আনন্দে’ দিলীপদা (Dilip Ghosh) অনেক কিছুই বলেন| আবারও বললেন, আমি শুনলাম| কিন্তু এই উক্তিটি কেন করলেন সেটা যদি এবারকার জন্য আমি ‘স্বজ্ঞানে’ বুঝেও না বুঝি তো ক্ষতি কি? এটাই আমার প্রতিক্রিয়া! আমার “হাঁফ ছেড়ে বাঁচাতে” দিলীপদা আনন্দ পেয়েছেন এতেই আমি আনন্দিত! উনি রাজ্য সভাপতি – সবার শ্রদ্ধার পাত্র! আমিও আন্তরিক শ্রদ্ধা জানালাম প্রিয় দিলীপদাকে!!” দিলীপের বক্তব্য যে বুঝেও তিনি না বুঝতে চাইছেন, সে কথাও উল্লেখ করেছেন বাবুল। বাবুলের বক্তব্য, দিলীপবাবুর এই উক্তি তিনি ‘স্বজ্ঞানে বুঝেও বুঝছেন না।’ এই পোস্টার পরেই রাজনৈতিক মহলের প্রশ্ন, তবে কি বিজেপির অন্তর্দ্বন্দ্ব আরও প্রকট হচ্ছে?

    বাবুল সুপ্রিয়র ফেসবুক পোস্ট বাবুল সুপ্রিয়র ফেসবুক পোস্ট

    শুধু বাবুল নয়, বিজেপির আর এক সাংসদ সৌমিত্র খাঁও মন্ত্রিত্ব না পাওয়ায় ফেসবুকে সরব হন। তাঁর বক্তব্যে স্পষ্ট হয়ে যায় রাজ্য নেতৃত্বের সঙ্গে তাঁর দ্বন্দ্ব। দিলীপ ঘোষ অবশ্য এই ধরনের সোশ্যাল মিডিয়ার পোস্টকে একেবারেই আমল দিতে রাজি নন। বিজেপিতে যে এই ধরনের পোস্টকে গুরুত্ব দেওয়া হয় না, সে কথা আগেই জানিয়েছিলেন তিনি। আজ সকালে বাবুলের পোস্ট নিয়ে তাঁকে প্রশ্ন করা হলে দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘আমি দলের পক্ষ থেকে সব পরিষ্কার করে বলে দিয়েছি। যাদের বুঝতে অসুবিধা হচ্ছে, সমস্যা হচ্ছে, তাদের কিছু গন্ডগোল আছে।’

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published: