হো চিন- মিনের দেশের শিল্পীর কল্পনায় প্রাণ পাচ্ছে বাঙালির উমা

হো চিন- মিনের দেশের শিল্পীর কল্পনায় প্রাণ পাচ্ছে বাঙালির উমা

নিজেদের পুজো পাগল বলে অর্জুনপুর আমরা সবাই ক্লাব। সেই পাগলামিতেই নতুন মাত্রা আনছে ৪৬ বছরে পা দেওয়া পুজো কমিটি।

  • Share this:

#বাগুইআটি: হো চিন- মিনের দেশের শিল্পীর কল্পনায় প্রাণ পাচ্ছে বাঙালির উমা। অর্জুনপুর এখন মিনি ভিয়েতনাম। কাগজের মণ্ডে দুর্গা তৈরি করছেন ভিয়েতনামের শিল্পী হোয়াং কুয়েত। থিম-ভাবনায় দিল্লির শিল্পী আসিম ওয়াকিফ। বাঁশ ও বেতের মেলবন্ধনে বাগুইআটির অর্জুনপুর আমরা সবাই ক্লাবে হোয়াং-আসিমের যুগলবন্দি।

নিজেদের পুজো পাগল বলে অর্জুনপুর আমরা সবাই ক্লাব। সেই পাগলামিতেই নতুন মাত্রা আনছে ৪৬ বছরে পা দেওয়া পুজো কমিটি।

অর্জুনপুরের উমা এবার সাজছে বিদেশীর হাতে। ভিয়েতনামের শিল্পী হোয়াং কুয়েত কাগজের মণ্ড দিয়ে সাজিয়ে তুলছেন দুর্গার সংসার। বাক্স-প্যাঁটরা গুছিয়ে তিনি এখন কলকাতায়। পেশাদার হলেও , বাঙালির উমা তাঁর অচেনাই ছিল। হোমওয়ার্কের পর বাধা কাটছে।

হোয়াং যখন দুর্গার কারিকুরিতে ব্যস্ত , তখন থিম নিয়ে মাথা খাটাচ্ছেন দিল্লির শিল্পী আসিম ওয়াকিফ। হোয়াং-এর সঙ্গে ক্লাবের যোগাযোগ করিয়ে দেন ওয়াকিফ-ই। বিভিন্ন ফিল্মে আর্ট ডিরেক্টরের কাজ করা ওয়াকিফের হাতে অর্জুনপুরের মণ্ডপ সাজছে বেত আর বাঁশে। পুজো ঘিরে এক অন্য সম্প্রীতির ছবি।

থিম এখানে প্রকৃতি। থাকছে চোখ-ধাঁধানো প্রযুক্তি। সঙ্গে চমক। রানাঘাটের নয়া সেনসেশন রানু মণ্ডলের থিম সং।

বিদেশি ফুটবলারদের কলকাতার মাঠ দাপিয়ে বেড়াতে সবাই দেখেছে। কিন্তু দুর্গাপুজোয় বিদেশী শিল্পীর কারিকুরি কলকাতায় প্রথম। অর্জুনপুরে এবার বিদেশীর চোখে দেশি দুর্গার গল্প।

First published: September 13, 2019, 10:23 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर