• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • নবান্নে এসে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করলেন অ্যাপোলো কর্ত্রী পৃথা রেড্ডি

নবান্নে এসে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করলেন অ্যাপোলো কর্ত্রী পৃথা রেড্ডি

সঞ্জয় রায় মৃত্যুর পর বার বার কাঠগড়ায় শহরের অ্যাপোলো হাসপাতাল ৷ আর তা নিয়েই বিতর্ক রোজ রোজ ৷

সঞ্জয় রায় মৃত্যুর পর বার বার কাঠগড়ায় শহরের অ্যাপোলো হাসপাতাল ৷ আর তা নিয়েই বিতর্ক রোজ রোজ ৷

সঞ্জয় রায় মৃত্যুর পর বার বার কাঠগড়ায় শহরের অ্যাপোলো হাসপাতাল ৷ আর তা নিয়েই বিতর্ক রোজ রোজ ৷

  • Share this:

    #কলকাতা: সঞ্জয় রায় মৃত্যুর পর বার বার কাঠগড়ায় শহরের অ্যাপোলো হাসপাতাল ৷ আর তা নিয়েই বিতর্ক রোজ রোজ ৷ সেই বিতর্কে ইতি টানতেই এবার নবান্নে এসে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করলেন অ্যাপোলোর কর্ণধার পৃথআ রেড্ডি ৷ মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে চেয়ে আবেদন করেছিলেন তিনি ৷ আবেদনের পর পৃথা রেড্ডিকে সময় দেন মুখ্যমন্ত্রী ৷ মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে অ্যাপোলো-র কর্ণধার পৃথা রেড্ডির বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্যসচিব আর এস শুক্লা ৷

    সঞ্জয় রায়ের চিকিৎসায় অ্যাপোলোর গাফিলতি আগেই প্রমাণিত। কাদের গাফিলতিতে মৃত্যু হয় স‍ঞ্জয়ের? কোথায় ছিল সঞ্জয়ের গাফিলতি? সেটাই স্পষ্ট হল রাজ্য সরকারের তৈরি বিশেষজ্ঞ কমিটির রিপোর্টে। রিপোর্টে স্পষ্ট, অ্যাপোলোতে সঞ্জয়ের প্রয়োজনীয় চিকিৎসাই হয়নি। ৩ চিকিৎসকের বিরুদ্ধে গাফিলতির প্রমাণ রিপোর্টে। বিল নিয়েও একাধিক কারচুপির প্রমাণ মিলল রিপোর্টে।

    নামী চিকিৎসক। দামী হাসপাতাল। অথচ চিকিৎসার প্রাথমিক শর্তটুকুও ও মানেনি অ্যাপোলো। চিকিৎসকদের গাফিলতি ও হাসপাতালের অবহেলার শিকার হতে হয় সঞ্জয় রায়কে। রাজ্য সরকারের বিশেষজ্ঞ কমিটির রিপোর্টে সেটাই স্পষ্ট হল।

    অ্যাঞ্জিওএমবোলাইজেশন করাই হয়নি লিভারের রক্তক্ষরণ বন্ধেও উদ্যোগ নেওয়া হয়নি ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিটেও চিকিৎসা হয়নি পরিষেবা না দিয়ে টাকা নেওয়া হয়

    কোথায় চিকিৎসকের গাফিলতি? কিভাবে দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হন অ্যাপোলোর চিকিৎসকরা? তাও স্পষ্ট হয়েছে রিপোর্টে।

    অভিযুক্ত চিকিৎসকরা -৩ চিকিৎসকের বিরুদ্ধে গাফিলতির অভিযোগ প্রমাণিত -গাফিলতি CCU বিশেষজ্ঞ, ক্রিটিক্যাল কেয়ার ও রেডিওলজিস্টের বিরুদ্ধে - চিকিৎসার প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেননি এরা - সিসিইউতে সঞ্জয়কে পরীক্ষায় বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ছিলেন না

    পরিষেবা না দিয়েই টাকা নেওয়া, একবার পরীক্ষা করে চারগুণ টাকা নেওয়ার অভিযোগও প্রমাণিত। এক্ষেত্রে কাঠগড়ায় বিলিং ও হাসপাতালের সার্ভিস বিভাগ।

    - অ্যাঞ্জিওএমবোলাইজেশান না করেই ১ লক্ষ ৭৫ হাজারের বিল - ১ বার লোকাল অ্যানেস্থেসিয়া করা হয় - ৪ বার মেজর অ্যানেস্থেসিয়ার টাকা নেওয়া হয় - সিসিইউতে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক না দেখলেও ভিজিট - কারণ ছাড়াই মেডিক্লেম বাতিল করা হয় - চাপ দিয়ে বাতিলে বাধ্য করে হাসপাতাল

    শুক্রবার রিপোর্ট জমা পড়ার পরই তিন চিকিৎসক ও বিলিং বিভাগের প্রধানকে তলব করে ফুলবাগান থানা। নামী চিকিৎসকের সুনামকে হাতিয়ার করে বেসরকারি হাসপাতালগুলোর ব্যবসার অভিযোগ নতুন নয়। সঞ্জয় রায়ের ঘটনায় শিক্ষা নিয়ে তাতে লাগাম পরাতে চলেছে রাজ্য প্রশাসন।

    First published: