Home /News /kolkata /
Arpita Mukherjee || টানটান উত্তেজনা! চিনার পার্কে অর্পিতার আরও এক ফ্ল্যাটের হদিশ, বকেয়া বাকি সেখানেও

Arpita Mukherjee || টানটান উত্তেজনা! চিনার পার্কে অর্পিতার আরও এক ফ্ল্যাটের হদিশ, বকেয়া বাকি সেখানেও

Arpita Mukherjee || বিল্ডিংয়ের অ্যাকাউন্ট্যান্ট জানায়, রক্ষণাবেক্ষণ চার্জ বাবদ অনেক টাকা বাকি রয়েছে অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের৷ টাকার অঙ্ক প্রায় ৩৮ হাজার টাকা৷

  • Share this:

    এ যেন সম্পত্তির পাহাড়৷ শেষের কোনও নাম নেই৷ আরও এক আবাসনের হদিশ মিলেছে সম্প্রতি৷ টালিগঞ্জ, বেলঘরিয়ার পরে গতকাল অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের আরও এক ফ্ল্যাটের হদিশ পাওয়া যায় চিনার পার্কের কাছে, নপাড়ার পুবপাড়ায়। বিল্ডিং এর নাম রয়েল রেসিডেন্ট। এই বাড়ির চার তলায় নম্বর বি ৪০৪ ফ্ল্যাটটি অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের নামে। বিল্ডিংয়ের অ্যাকাউন্ট্যান্ট জানায়, রক্ষণাবেক্ষণ চার্জ বাবদ অনেক টাকা বাকি রয়েছে অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের৷ টাকার অঙ্ক প্রায় ৩৮ হাজার টাকা৷ তিনি আরও জানান, একাধিকবার মেল মারফত অর্পিতাকে এ বিষয়ে জানানো হলেও, সেই বকেয়া টাকা মেটানো হয়নি। শোনা যাচ্ছে মাত্র একবারই অর্পিতা এসেছিলেন সেই আবাসনে৷

    বানতলা চর্ম নগরীর পিছনে দশ বিঘা জমি কিনেছিলেন অর্পিতা মুখোপাধ্যায়। এলাকায় সবাই এটা শিক্ষা মন্ত্রীর জমি বলেই চেনেন। সেখানে এখন বাউন্ডারি দেওয়ার কাজ চলছে। বছর চারেক আগে অর্থাৎ ২০১৮ সালে এই জমি কেনা হয় অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের নামে। আড়াই বিঘা ও সাড়ে সাত বিঘা করে দুটো দলিল হয়। অর্পিতা মুখোপাধ্যায় এবং কসবার ইচ্ছে এন্টারটেইনমেন্টের নামে এই জমি কেনা হয়। বেলেঘাটার সরকার পরিবার এই জমি বিক্রি করেন।

    স্থানীয়দের অভিযোগ, বানতলা চর্মনগরের দক্ষিণ প্রান্তে ওয়েট ল্যান্ড হিসাবে পরিচিত এই জমি কেনা হয় জলের দরে। পাশেই স্থানীয় একটি তৃণমূল নেতার বাগান বাড়ি আছে। জমি কিনতে সেই তৃণমূল নেতা এবং ক্যানিং পূর্বের বিধায়ক শওকত মোল্লা সহযোগিতা করেন বলে অভিযোগ স্থানীয়দের। পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের গ্রেফতারির পর এই জমি এখন ইডির রেডারে।

    আরও পড়ুন: তৈরি হচ্ছে লিস্ট, পার্থ ঘনিষ্ঠ জেলা নেতাদের ডাকবে ইডি! কাঁপন ধরছে তৃণমূলে

    আরও পড়ুন: বড় ঘোষণা। ই-টেন্ডার নিয়ে নয়া নিয়ম নবান্নের! দুর্নীতি রুখতে নয়া দাওয়াই?

    অর্পিতার বেলঘরিয়ার ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হয়েছে ২৭ কোটি ৯০ লক্ষের মতো টাকা। এখানেই শেষ নয়, উদ্ধার হয়েছে ৪.৩১ লাখের সোনা। বুধবার দুপুরে বেলঘরিয়ার ওই ফ্ল্যাটের তালা ভেঙে ঢোকে ইডি। উদ্ধার করা টাকা গুনতে গুনতে পার ১৯ ঘণ্টা। বুধবার দুপুর থেকে শুরু করে বৃহস্পতিবার ভোর ৪টে পর্যন্ত চলে তল্লাশি অভিযান। ইডি সূত্রে জানা যায়, এই বিপুল পরিমাণ টাকা সযত্নে রাখা ছিল ২০০০ আর ৫০০-র নোটের বান্ডিলে। কিছু বান্ডিলে ছিল ২০০-র নোটের ৫০ লাখ। বাকি বান্ডিল ছিল ২০ লাখের। সেখানে প্রতিটা নোট ছিল ২০০-র। ৪.৩১ লাখের সোনার মধ্যে মিলেছে ১ কেজি সোনার ৩টে বার, ৫০০ গ্রাম ওজনের ৬টা কঙ্কন! মিলেছে আরও নানাবিধ সোনার গয়না, উদ্ধার একটি সোনার পেন-ও। সব মিলিয়ে প্রায় ৩২ কোটির সম্পত্তি। এবার চিনার পার্কেও আরও এক আবাসনের হদিশ, রহস্য কি বাকি আছে আরও৷

    Published by:Rachana Majumder
    First published:

    Tags: Arpita Mukherjee, Partha Chatterjee

    পরবর্তী খবর