• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • জামিনে মুক্ত কাউন্সিলর অনিন্দ্য চট্টোপাধ্যায়

জামিনে মুক্ত কাউন্সিলর অনিন্দ্য চট্টোপাধ্যায়

জামিন পেলেন কাউন্সিলর অনিন্দ্য চট্টোপাধ্যায় ৷ সোমবার তোলাবাজির অভিযোগে গ্রেফতার হওয়া বিধাননগরের ৪১ নং ওয়ার্ডের তৃণমূল কাউন্সিলর অনিন্দ্য চট্টোপাধ্যায়ের জামিনের আবেদন মঞ্জুর করল বিধাননগর আদালত ৷

জামিন পেলেন কাউন্সিলর অনিন্দ্য চট্টোপাধ্যায় ৷ সোমবার তোলাবাজির অভিযোগে গ্রেফতার হওয়া বিধাননগরের ৪১ নং ওয়ার্ডের তৃণমূল কাউন্সিলর অনিন্দ্য চট্টোপাধ্যায়ের জামিনের আবেদন মঞ্জুর করল বিধাননগর আদালত ৷

জামিন পেলেন কাউন্সিলর অনিন্দ্য চট্টোপাধ্যায় ৷ সোমবার তোলাবাজির অভিযোগে গ্রেফতার হওয়া বিধাননগরের ৪১ নং ওয়ার্ডের তৃণমূল কাউন্সিলর অনিন্দ্য চট্টোপাধ্যায়ের জামিনের আবেদন মঞ্জুর করল বিধাননগর আদালত ৷

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #বিধাননগর: জামিন পেলেন কাউন্সিলর অনিন্দ্য চট্টোপাধ্যায় ৷ সোমবার তোলাবাজির অভিযোগে গ্রেফতার হওয়া বিধাননগরের ৪১ নং ওয়ার্ডের তৃণমূল কাউন্সিলর অনিন্দ্য চট্টোপাধ্যায়ের জামিনের আবেদন মঞ্জুর করল বিধাননগর আদালত ৷ গ্রেফতারির ৬০ দিনের মধ্যে কোর্টে চার্জশিট জমা না পড়ায় এদিন অভিযুক্তকে জামিন দিল নিম্ন আদালত ৷

    হুমকি ও তোলাবাজির মতো একাধিক অভিযোগে ১২ জুলাই তাঁকে গ্রেফতার করে বিধাননগর থানার পুলিশ ৷ কিন্তু এরপর ৬০ দিন কেটে গেলেও পুলিশ চার্জশিট জমা দিতে পারেনি ৷ তাই ৬১ দিনের মাথায় জামিনে মুক্তি পেলেন কাউন্সিলর অনিন্দ্য চট্টোপাধ্যায় ৷ এর আগে ২৬ জুলাই আদালতে জামিনের আবেদন জানানো হলেও ‘প্রভাবশালী’ তত্ত্বে জামিন খারিজ করে দেন বিচারক ৷

    অনিন্দ্য চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ, AE ব্লকে একটি বাড়ির পাঁচিল তুলতে গেলে সেই কাজে বাধা দেন অভিযুক্ত কাউন্সিলর এবং বাড়ির মালিক প্রবীণ সন্তোষ লোধের কাছ থেকে ১২ লক্ষ টাকা দাবি করেন ৷ টাকা দিতে না চাওয়া বছর ৭৮-এর বাড়ি মালিককে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকিও দেওয়ারও অভিযোগ ওঠো ৷

    ব্যবসায়ী সন্তোষ লোধ জানান, গত মার্চ মাসে পাঁচিল তৈরির কাজ চলার সময় অনিন্দ্য চট্টোপাধ্যায়ের গুন্ডাবাহিনী এসে নির্মাণকাজের সমস্ত জিনিস ছুঁড়ে ফেলে দেয় ৷ একইসঙ্গে হুমকি দেওয়া হয় ১২ লক্ষ টাকা না দিলে পাঁচিল তুলতে দেওয়া হবে না ৷

    এই অভিযোগের ভিত্তিতেই জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ১২ জুলাই প্রথমে তাঁকে ডেকে পাঠানো হয় ৷ ঘণ্টা খানেকের জেরার পর তাঁকে গ্রেফতার করা হয় ৷ অনিন্দ্যর বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৮৪, ৩৮৬, ৩৮৭, ৩৮৮ ও ৩৮৯ জামিন অযোগ্য ধারায় মামলা রুজু করে পুলিশ ৷ তাঁর বিরুদ্ধে বহুদিন ধরেই পুলিশের কাছে নানা অভিযোগ আসছিল ৷ এমনকী, বাংলাদেশ থেকেও মুখ্যমন্ত্রীর কাছে অনিন্দ্যর নামে অভিযোগ জমা পড়েছে বলে খবর ৷

    First published: