• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • Awareness about stroke: আপনার কি স্ট্রোক হতে পারে? ভবিষ্যৎ আশঙ্কা জানতে উদ্যোগ নামী হাসপাতালের

Awareness about stroke: আপনার কি স্ট্রোক হতে পারে? ভবিষ্যৎ আশঙ্কা জানতে উদ্যোগ নামী হাসপাতালের

বিশ্বের প্রতি চারজনের মধ্যে একজনের স্ট্রোক হওয়ার সম্ভাবনা আছে বলে জানাচ্ছেন চিকিৎসকরা

বিশ্বের প্রতি চারজনের মধ্যে একজনের স্ট্রোক হওয়ার সম্ভাবনা আছে বলে জানাচ্ছেন চিকিৎসকরা

Awareness about stroke: অনেকেরই ভুল ধারণা থাকে যে, হার্ট অ্যাটাক এবং স্ট্রোক (Heart Attack and Stroke) একই

  • Share this:

কলকাতা : স্ট্রোক। শুনলেই ঘাম দিয়ে জ্বর আসে। অনেকেরই ভুল ধারণা থাকে যে, হার্ট অ্যাটাক এবং স্ট্রোক (Heart Attack and Stroke) একই জিনিস। তবে চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন,  এই দুটোর মধ্যে বিস্তর তফাৎ। হার্ট অ্যাটাকের সঙ্গে স্ট্রোকের কোনও সম্পর্ক নেই। মস্তিষ্কে রক্ত জমাট বেঁধে স্ট্রোক হয়। বিশ্বের প্রতি চারজনের মধ্যে একজনের স্ট্রোক হওয়ার সম্ভাবনা আছে বলে জানাচ্ছেন চিকিৎসকরা।

অন্যদিকে আমাদের দেশে প্রতি ২০ সেকেন্ডে একজন ব্যক্তি স্ট্রোকে আক্রান্ত হন। অনেক ক্ষেত্রেই যে ব্যক্তি স্ট্রোকে আক্রান্ত হন, বহু ক্ষেত্রেই তিনি বা তাঁর আশেপাশের মানুষ বুঝতেই পারেন না এবং অনেকক্ষেত্রেই দেরি করে ফেলেন চিকিৎসকদের কাছে অসুস্থ ব্যক্তিকে নিয়ে যেতে। দেরি হয়ে যাওয়ায় বেশিরভাগ সময় রোগীকে বাঁচানো সম্ভব হয় না অথবা রোগীর শরীরের কোনও একটা অংশ প্যারালাইসিস হয়ে যায়।

আরও পড়ুন : মুহুর্মুহু কোল্ড ড্রিঙ্কসের বায়না! আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় হুমকিতে ধৃতকে নিয়ে অতিষ্ট গোয়েন্দারা...

স্ট্রোকের (Stroke) ক্ষেত্রে অসুস্থ হওয়ার পরে প্রথম ৪ ঘন্টা ‘সুবর্ণ সময়’ বা ‘গোল্ডেন আওয়ার’ বলে চিহ্নিত করা হয়। হঠাৎ করে কথা আটকে যাওয়া, হাঁটাচলা করতে অসুবিধা হওয়া, মুখ বেঁকে যাওয়া বা অবশ হয়ে যাওয়ার মতো লক্ষণ দেখলে আমরা বুঝতে পারি যে স্ট্রোক হয়েছে। কিন্তু কোনও লক্ষণ ছাড়া অজান্তেই কি স্ট্রোক হয়ে যাওয়া সম্ভব? হ্যাঁ, শুধু সম্ভবই নয়, এমন ঘটনা প্রায়ই ঘটে। একে বলে ‘সাইলেন্ট স্ট্রোক’। শরীর কোনও ভাবেই জানান দেয় না এই স্ট্রোকের ব্যাপারে। সাধারণত কোনও লক্ষণ চোখেও পড়ে না। তাই ধরা কঠিন হয়ে যায়, শরীরে এত বড় একটা সমস্যা ঘটেছে।

আরও পড়ুন : বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভ্যাকসিন, টিকাকরণে গতি আনতে বড় সিদ্ধান্ত রাজ্যের

কলকাতার আমরি হাসপাতাল গোষ্ঠী সম্প্রতি এক অভিনব নির্ণয় করার পদ্ধতি চালু করেছে। ঢাকুরিয়া, সল্টলেক বা মুকুন্দপুর আমরি হাসপাতালের যে কোনও শাখায় গেলে সেখানে বিভিন্ন জায়গা থেকে স্ট্রোক নির্ণয় সম্পর্কিত ব্যানার লাগানো আছে। সেখানে একটি কিউআর কোড দেওয়া আছে, সেই কিউআর কোডটি আপনি আপনার মোবাইল ফোনে স্ক্যান করলে আপনার মোবাইল ফোনে একটি প্রশ্ন উত্তর আসবে যেখানে আপনার বয়স, লাইফস্টাইল, হ্যাবিট, আপনার হার্ট কিডনি বা অন্য কোনও রোগ আছে কিনা, তা জানতে চাওয়া হবে। সেই সব প্রশ্নের সঠিক উত্তর দিলেই আপনার ভবিষ্যতে স্ট্রোক হওয়ার সম্ভাবনা কতটা রয়েছে সেটা সঙ্গে সঙ্গে মোবাইল স্ক্রিনে ভেসে উঠবে। এই পদ্ধতির মাধ্যমে আপনি দ্রুত চিকিৎসকের দ্বারস্থ হতে পারেন।

আরও পড়ুন : খাস কলকাতায় Primary Teacher নিয়োগে Fraud-র পর্দাফাঁস, পর্ষদের নামে ভুয়ো কললেটার

আমরি হাসপাতালের স্নায়ুরোগ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক অপ্ৰতিম চট্টোপাধ্যায় জানান, " বর্তমানে আমাদের লাইফস্টাইলের কারণে খুব অল্প বয়সিদের মধ্যেও স্ট্রোকের প্রবণতা মারাত্মক পরিমাণে বাড়ছে। ফলে এই পদ্ধতি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কোনও ব্যক্তি স্ট্রোক আক্রান্ত হওয়ার গোল্ডেন আওয়ার-এর মধ্যে যদি চিকিৎসকের দ্বারস্থ হন, তবে তাঁকে শুধু বাঁচানোই নয়, সুস্থ করে তোলাও অনেকাংশেই সম্ভব।"

Published by:Arpita Roy Chowdhury
First published: