বউমা নেয় না খোঁজ, অভিযোগ মৃত পুলিশ অফিসার অমিতাভ মালিকের পরিবারের

বউমা নেয় না খোঁজ, অভিযোগ মৃত পুলিশ অফিসার অমিতাভ মালিকের পরিবারের
নিজস্ব চিত্র

বড় কষ্টে বড় করে তুলেছিলেন ছেলেকে। আর্থিক সামর্থ্য ছিল না। ছেলের মুখে প্রায়েই তুলে দিতে হত এক টাকা দামের দুধ।

  • Share this:

#কলকাতা: বড় কষ্টে বড় করে তুলেছিলেন ছেলেকে। আর্থিক সামর্থ্য ছিল না। ছেলের মুখে প্রায়েই তুলে দিতে হত এক টাকা দামের দুধ। নিজেরা জল খেয়ে শুয়ে পড়তেন। বড় হয়ে ছেলে পুলিশে যোগ দেওয়ার পর হাল ফিরছিল সংসারের। কিন্তু গুরুঙবাহিনীর গুলি ভেঙে দিয়েছে সব স্বপ্ন। মধ্যমগ্রামে অমিতাভ মালিকের ফেলে যাওয়া সাজানো সংসার আজ ছন্নছাড়া। পরিবারের অভিযোগ, বৌমা বিউটিও আর খোঁজখবর নেন না।

গুরুঙের ডেরায় অভিযানে গিয়ে সব শেষ। মূহূর্তে সব স্বপ্ন ভেঙে খানখান। চিরছুটির দেশে পাড়ি দিয়েছিলেন দার্জিলিং থানার এস আই অমিতাভ মালিক। একই সঙ্গে প্রাণ চলে গিয়েছিল মধ্যগ্রামের মালিক পরিবারেরও। শূন্য পরিবারে আজ শুধু স্মৃতি-ই সম্বল। ছেলের শেষকৃত্যের পরই শ্বশুরবাড়ি ছেড়েছেন বৌমা বিউটি। ইনজিনিয়ারিংয়র ছাত্র অমিতাভ পুলিশে চাকরি পাওয়ার পর হাল ফিরেছিল সংসারের। ব্যাঙ্ক ঋণ নিয়ে বাড়ি তৈরি করেছিলেন অমিতাভ। তাঁর মৃত্যুর পর রাজ্য সরকারের সাহায্যে শোধ হয়েছে সেই ঋণ। কিন্তু সন্তান হারানোর যন্ত্রণা আজও অনেক রাত জাগিয়ে রাখে অসহায় বাবা-মাকে।

বরাবরই অমিতাভ বচ্চনের ভক্ত সৌমেন মালিক। সাধ করে ছেলের নামও রেখেছিলেন বিগ-বির নামেই। অমিতাভকে বড় করতে আধপেটা থেকেছেন। ছেলেকে এক টাকার দুধ খাইয়ে নিজেরা জল খেয়ে রাত কাটিয়েছেন। আজ সে সব স্মৃতি বড় বেশি কষ্ট দেয়।

অমিতাভ চলে যাওয়ার পর, ভরসা করেছিলেন বউমার উপর। অমিতাভর মায়ের দাবি, ছেলের চাকরি ও সমস্ত পাওনাগণ্ডা বিউটি পেলেও, বৌমা আর খোঁজখবর নেন না। এমনকি ছেলের ডেথ সার্টিফিকেট দিতেও বাড়ি আসেনি বউমা । মধ্যমগ্রামের চৌমাথায় দেওরকে ডেকে তাঁর হাতে সার্টিফিকেট দিয়ে যান বিউটি। এতে আরও দ্বিগুণ হয়েছে অভিমান।

ছোট ভাই উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার্থী অরুণাভ এয়ারফোর্সে যোগ দিতে চান। যদিও ভাইকে ডিএসপি হিসেবে দেখতে চেয়েছিলেন অমিতাভ। কিন্তু বড় ছেলেকে হারিয়ে ছোট ছেলেকে আর পুলিশে দিতে চায় না পরিবার। রাজ্য পুলিশের ডিজির কাছে অরুণাভকে শিক্ষা দফতরে চাকরি দেওয়ার আর্জি জানিয়েছেন সৌমেন মালিক।

সাত মাসের দাম্পত্য গুরুঙবাহিনীর গুলিতে শেষ। পুলিশের চাকরিতে যোগ দিয়েছেন বিউটি মালিক। অমিতাভর পরিবারের আক্ষেপ, ছেলের মৃত্যুর পর মধ্যমগ্রাম আর টানে না বউমাকে। শ্বশুর-শাশুড়ি, দেওরের সঙ্গে যোগাযোগও আজ অনেক ক্ষীণ।

First published: 07:08:38 PM Dec 20, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर