মমতার ঘরে, অমিতের ঘর ! রাজ্যে ঘাঁটি গাড়তে এয়ারপোর্টের কাছে 'ঘর' খুঁজছেন অমিত শাহ 

মমতার ঘরে, অমিতের ঘর ! রাজ্যে ঘাঁটি গাড়তে এয়ারপোর্টের কাছে 'ঘর' খুঁজছেন অমিত শাহ 
photo source collected

এয়ারপোর্ট সংলগ্ন এলাকা অমিত শাহের জন্য উপযুক্ত থাকার জায়গার সন্ধান করতে বলা হয়েছে রাজ্য বিজেপিকে।

  • Share this:

#কলকাতা: মমতার ঘরে, অমিতের ঘর ? তবে কি রাজ্যে এসে সত্যিই ঘাঁটি গাড়তে চলেছেন অমিত শাহ ?  রাজ্য বিজেপির একটি সূত্র বলছে, রাজ্যে এসে রাত কাটানোর কথা আগেই বলেছিলেন অমিত। এবার, মিলল সবুজ সংকেত দিল্লির। এয়ারপোর্ট সংলগ্ন এলাকা অমিত শাহের জন্য  উপযুক্ত থাকার জায়গার সন্ধান করতে বলা হয়েছে রাজ্য বিজেপিকে।

 ১ লা মার্চ শহীদ মিনারের সভার পর রাজ্য নেতৃত্বের সঙ্গে দফায় দফায় বৈঠক করেন অমিত। দলের বৈঠকে অমিত জানিয়ে দেন, ২০২৪ -এ কেন্দ্রে বিজেপিকে ক্ষমতায় ফিরতে হলে বাংলা জয় করতে হবে। ২০২১-এ মোদির মিশন বাংলা সফল করতে এপ্রিল থেকেই রাজ্য আসা যাওয়া শুরু করতে চান তিনি। এরপরেই দিল্লি ফিরে গিয়ে নির্দেশ পাঠান অমিত। অমিতের নির্দেশ পেয়েই তৎপরতা শুরু মুরলিধর সেন লেনে পার্টির সদর দফতরে। কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক কৈলাশ বিজয়বর্গীর তত্বাবধানে রাজ্যের আরও দুই নেতাকে নিয়ে তৈরি হয়েছে কমিটি। তারাই প্রাথমিক ভাবে খোঁজাখুজি শুরু করে দিয়েছেন রাজ্যে অমিতের অস্থায়ী ঠিকানার।

রাজ্যের এক কেন্দ্রীয় নেতা বলেন, '' মোদির সেনাপতি, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলে কথা।  ফলে, তার নিরাপত্তা নিয়ে তো আর হেলাফেলা করা যায় না। অমিত শাহের মর্যদা ও  নিরাপত্তার পক্ষে উপযুক্ত এবং মানানসই হতে গেলে একটা আস্ত বাড়ি দরকার। এ ব্যাপারে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের গাইড লাইন মেনে, বাড়ি খোঁজা চলছে। "  আগামী বিধানসভা নির্বাচনে রাজ্যে বিজেপিকে ক্ষমতায় আনতে ধনুক ভাঙা পণ করেছেন অমিত শাহ। সেই  লক্ষ্য পুরনে নিজের কাঁধেই দায়িত্ব তুলে নিয়েছেন মোদির সেনাপতি অমিত শাহ।  তবে, রাজ্য এসে নিজেকে গৃহবন্দী করে রাখতে চান না অমিত। রাজ্য নেতৃত্বকে অমিত শাহ স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, নিদৃষ্ট কর্মসূচি নিয়েই তিনি রাজ্য আসবেন। বড় সভা নয়। তার সফরে জেলায়, জেলায় সাংগঠনিক বৈঠক ও প্রচার  কর্মসূচিতে জোর দিতে চান তিনি। তার জন্য রাজ্য নেতৃত্বকে তার কাছে পড়ে থাকার দরকার নেই। তারা সংগঠনের কাজ যেমন করেন,তেমনই করবেন। প্রয়োজনে তিনি নিজেই তাদের কাছে চলে যাবেন বা ডেকে পাঠিয়ে জেনে নেবেন। ওয়াকিবহাল মহলের মতে, আসলে, রাজ্য ঘাঁটি গেড়ে বসে একদিকে দল আর অন্যদিকে রাজ্যের সরকার ও শাসক দলের ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলতে চান  অমিত।

ARUP DUTTA

First published: March 5, 2020, 11:28 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर