Amit Shah: 'বাংলার ভোটেই কেন করোনা ইস্য়ু?' অসম, তামিলনাড়ুর উদাহরণ দিয়ে প্রশ্ন শাহের

Amit Shah: 'বাংলার ভোটেই কেন করোনা ইস্য়ু?' অসম, তামিলনাড়ুর উদাহরণ দিয়ে প্রশ্ন শাহের

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ৷

রাজ্যে করোনা পরিস্থিতির অবনতির জন্য সরাসরি বিজেপি-র দিকেও আঙুল তুলেছেন তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷

  • Share this:

    #কলকাতা: পশ্চিমবঙ্গেই কেন নির্বাচনের সঙ্গে করোনা (Coronavirus) বৃদ্ধির জন্য দায়ী করে ভোটের ইস্যু করা হচ্ছে? এই প্রশ্নই তুললেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ (Amit Shah)৷ এ দিন নিউজ ১৮-কে দেওয়া এক্সক্লুসিভ সাক্ষাৎকারে এই প্রশ্ন তুলেছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী৷ একই সঙ্গে তাঁর প্রশ্ন, অসম, তামিলনাড়ু বা কেরলের ভোটে তো করোনা ইস্যু হয়নি৷

    তৃণমূলের তরফে বার বারই অভিযোগ করা হয়েছে, দীর্ঘ আট দফায় ভোটগ্রহণ করতে গিয়েই রাজ্যে করোনা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে৷ দৈনিক সংক্রমণের সংখ্যা প্রায় সাড়ে আট হাজার ছুঁয়েছে৷ রাজ্যে আর প্রচারে না আসার কথা জানিয়ে দিয়েছেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধি৷ বামেদের তরফেও প্রচারে লাগাম টানা হয়েছে৷

    কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অবশ্য বলেছেন, 'আমি একটা জিনিস বুঝতে পারছি না৷ অসম, কেরল বা তামিলনাড়ুর নির্বাচনে তো এই প্রশ্ন ওঠেনি৷ বাংলায় কেন উঠছে? নির্বাচন করা না করাটা তো বিজেপি ঠিক করে না৷ নির্বাচন কমিশন করে৷ দু' দিন আগেই নির্বাচন কমিশন সর্বদলীয় বৈঠক করে প্রচারের সময় কমিয়ে দিয়েছে৷ কমিশন যা সিদ্ধান্ত নিচ্ছে আমরা সেটা মেনেই চলছি৷ ' প্রচারে কাটছাঁট করা নিয়ে শাহের দাবি, 'আমরাও সভা অনেক কমিয়ে দিয়েছি৷'

    এ দিনই অবশ্য বিজেপি-র তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, রাজ্যে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সহ বিজেপি-র সব নেতাই ছোট জনসভা করবেন৷ সব সভাই হবে ৫০০-র কম লোক নিয়ে৷

    রাজ্যে করোনা পরিস্থিতির অবনতির জন্য সরাসরি বিজেপি-র দিকেও আঙুল তুলেছেন তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ তাঁর অভিযোগ, ভোটের জন্য রাজ্যে অন্যান্য রাজ্য থেকে বিপুল সংখ্যক লোক নিয়ে এসেছে বিজেপি৷ তাঁদের মাধ্যমেই করোনা ছড়াচ্ছে৷ অমিত শাহ অবশ্য এ দিন বুঝিয়ে দিলেন, ভোটের জন্য করোনা বাড়ছে এই অভিযোগের সঙ্গে একমত নন তিনি৷

    প্রসঙ্গত, অসমে এবং তামিলনাড়ুতে গত ৬ এপ্রিল ভোটগ্রহণ পর্ব মিটে গিয়েছে৷ সেই সময়ও পশ্চিমবঙ্গের পরিস্থিতি এতখানি উদ্বেগজনক ছিল না৷ রাজ্যের করোনা পরিস্থিতির এতখানি অবনতির জন্য একশ্রেণির মানুষের উদাসীনতার পাশাপাশি ভোট প্রচারকেও দায়ী করছেন চিকিৎসক এবং স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: