EC Covid Meeting: আজ সর্বদলীয় বৈঠক, তৃণমূল চাইবে চার দফার সংযুক্তিকরণ, কমিশনের কোর্টে বল

EC Covid Meeting: আজ সর্বদলীয় বৈঠক, তৃণমূল চাইবে চার দফার সংযুক্তিকরণ, কমিশনের কোর্টে বল

আজ নির্বাচন কমিশনে সর্বদলীয় বৈঠক।

আলোচনা হবে করোনা পরিস্থিতিতে ভোটগ্রহণ, প্রচারের মতো বিষয়গুলি নিয়েই।

  • Share this:

#কলকাতা: প্রতিদিন বাড়ছে করোনা। এদিকে এখনও বাকি চার চারটি দফার নির্বাচন। এই পরিস্থিতিতেই আজ, শুক্রবার বেদী ভবনে নির্বাচন কমিশনের ডাকে বৈঠকে বসতে চলেছে রাজ্যের সবকটি দল। আলোচনা হবে করোনা পরিস্থিতিতে ভোটগ্রহণ, প্রচারের মতো বিষয়গুলি নিয়েই।

ইতিমধ্যেই জানা গিয়েছে তৃণমূলের পক্ষ থেকে এই বৈঠকে জানানো হবে, রাজ্যের শাসকদল বাকি দফাগুলির সংযুক্তি চায়। চায়, কোভিড সংক্রমণ এড়াতে বাকি দফাগুলি একদিনে সারা হোক। উল্লেখ্য কোভিড সংক্রমণের মধ্যে আটদফায় দফায় ভোটগ্রহণের বিরোধিতা প্রথম থেকেই করে এসেছে। ক্রমে পরিস্থিতি আরও ঘোরালো হয়েছে করোনা সংক্রমণের হার বাড়ায়।

সংযুক্ত মোর্চার প্রস্তাব ভোটগ্রহণে সতর্কতা বাড়ানো। সেই সতর্কতারই প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে মোর্চা ইতিমধ্যেই বড় সভা না করার কথা ঘোষণা করেছে।

তবে, কমিশন সূত্রে খবর প্রস্তাব যাই আসুক না কেন, চার দফার সংযুক্তি সম্ভব নয়। যে ভাবে প্রোগ্রামিং করা হয়েছে চার দফার তা রাতারাতি বদলে ফেলা অসম্ভব। রাজ্য ষষ্ঠ দফায় ৯২৪  কোম্পানি, সপ্তম দফায় ৭৯১ কোম্পানি, অষ্টম দফায় ৭৪৬ কোম্পানি বাহিনী রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে। অর্থাৎ তিনটে দফা মিলিয়ে মোট ২৪৬১ কোম্পানি বাহিনী লাগবে। এই ২৪৬১ বাহিনী রাতারাতি এক দফার মধ্যে রাজ্যে এনে ফেলা সম্ভব নয় বলেই জানা যাচ্ছে।। অন্য দিকে কমিশন সূত্রে খবর, বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষক বিবেক দুবে যে রিপোর্ট দিয়েছেন সেখানে বলেছেন যদি  রাজ্য সশস্ত্র বাহিনী দিয়ে ভোট না করানো হয় তাহলে বুথ ক্যাপচারিংয়ের  ঘটনা ঘটতে পারে। ১০০% কেন্দ্রীয় বাহিনীর ঘেরাটোপে ভোটের পক্ষেই মত তাঁর। এই সব কারণেই সংযুক্তি সম্ভব নয়।

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের একাংশ আবার বলছেন, বিজেপিও চায় না এক দফায় বাকিপর্ব মিটে যাক। সেক্ষেত্রে কমিশন কী সিদ্ধান্ত নেয় তাই নিয়েও উদ্বেগ আছে তাদের। কারণ অঞ্চলভেদে প্রচার পরিকল্পনা তাদের ইতিমধ্যেই সারা। বাকি চার দফাতে একধিক বার রাজ্যে আসবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। আসবেন জে পি নাড্ডা, অমিত শাহরাও। সেই ব্যবস্থাপনা মোটের উপর করাই হয়ে গিয়েছে। এই অবস্থায় প্রচারে ভাঁটা পড়া মানে  ক্ষতি হবে ব্যালট বক্সে এমনটাই নাকি মত বিজেপির অন্দরে। কাজেই সব মিলিয়ে আজকের হেভি ওয়েট বৈঠক নিয়ে মাথাব্যথা রয়েছে পদ্মশিবিরেও।

অন্য দিকে, কমিশনকে অতীতে বহুবার পক্ষপাতদুষ্ট বলেছে তৃণমূল। সংযুক্তিকরণ প্রস্তাবে কমিশন সায় না দিলে তারা করোনার উর্ধ্বমুখী গ্রাফকে রাজনৈতিক হাতিয়ার করবে বলেই মনে করা হচ্ছে।

Published by:Arka Deb
First published: