corona virus btn
corona virus btn
Loading

বইপ্রেমীদের জন্য ফের শুরু কলকাতা বইমেলা, কবে-কখন-কোথায় জেনে নিন...

বইপ্রেমীদের জন্য ফের শুরু কলকাতা বইমেলা, কবে-কখন-কোথায় জেনে নিন...

কলকাতা বইমেলাকে বলা হয় বাঙালির চতুর্দশ পার্বণ। সেই পার্বণের রেশ কাটতে না কাটতেই ফের শহরে আরও এক বইমেলা।

  • Share this:

VENKATESWAR  LAHIRI

#কলকাতা: ১৯৭৬ সালের কলকাতা পুস্তকমেলা-ই আজকের আন্তর্জাতিক কলকাতা বইমেলা।

১৯৮৪ সালে এই বইমেলা আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি অর্জন করে। ১২দিন ধরে প্রতিবছর এই বইমেলা হয়ে ওঠে বইপ্রেমীদের দুর্গাপুজো। ঠিক এই কারণেই কলকাতা বইমেলাকে বলা হয় বাঙালির চতুর্দশ পার্বণ। সেই পার্বণের রেশ কাটতে না কাটতেই ফের শহরে আরও এক বইমেলা। রাজ্যের সমস্ত জেলায় এবারে দ্বিতীয় বছরে পা দিতে চলেছে  জেলা বইমেলা ।  কলকাতাও তার ব্যতিক্রম নয়।

রাজ্য সরকারের গ্রন্থাগার পরিষেবা বিভাগের উদ্যোগে আগামীকাল, সোমবার থেকে  কলকাতার পার্ক সার্কাস ময়দানে শুরু হতে চলেছে দ্বিতীয় কলকাতা জেলা বইমেলা। চলবে ৮  মার্চ পর্যন্ত । প্রতিদিন  বেলা ১২টা  থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত চলবে বইমেলা।

রবীন্দ্রনাথ বলেছেন, 'ভাল বই আত্মশুদ্ধির শ্রেষ্ঠ উপায়। জ্ঞানের বাহন হিসেবে বই বিশ্বের সবচেয়ে প্রাচীন মাধ্যম'। জ্ঞানের প্রসারে বইয়ের বিস্তারের প্রয়োজনীয়তা প্রাচীনকাল থেকেই অনুভূত ছিল। কিন্তু মুদ্রণযন্ত্র আবিষ্কারের আগে বইয়ের বিস্তার তেমনভাবে ঘটেনি। কেন  না হাতে লিখে বইয়ের প্রচার কষ্টসাধ্য ছিল। পঞ্চদশ শতকে জার্মানির গুটেনবার্গ মুদ্রণযন্ত্র আবিষ্কার করলে বইয়ের জগতে বৈপ্লবিক পরিবর্তন আসে। গুটেনবার্গ নিজের আবিষ্কৃত ছাপাখানায় ছাপা বই, বিক্রির জন্য ফ্রাঙ্কফুর্ট শহরে নিয়ে আসতেন। তাঁর দেখাদেখি স্থানীয় অন্যান্য বই বিক্রেতাও তাদের প্রকাশিত বই নিয়ে সেখানে বসতে শুরু করেন। বই কিনতে বিভিন্ন শহর থেকে ক্রেতারাও আসতে শুরু করেন। আর এভাবেই বিশ্বে বই মেলার প্রচলন শুরু হয়। এভাবেই বিশ্বের প্রাচীন বইমেলা শুরু হয় জার্মানির ফ্রাঙ্কফুর্ট শহরে। রেনেসাঁ ও শিল্প বিপ্লবের হাত ধরে জার্মানির দেখাদেখি ইউরোপের অন্যান্য শহরেও বই মেলার প্রচলন হয়। এরপর ১৯৭৬ সাল থেকে আজও একটানা কলকাতা বইমেলা সকলের কাছে আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দু।

শুধু কলকাতা কেন, বইমেলাকে ছড়িয়ে দিতে হবে গ্রামে-গঞ্জে জেলার প্রতিটি কোনায়। বাংলার প্রতিটি শহর গ্রামাঞ্চলের আপামর পাঠক সমাজের কথা ভেবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্যোগে গত বছর থেকে শুরু হয় জেলা বইমেলা । বয়সে দুধের শিশু হলেও নতুন আঙ্গিকে প্রথম বছরের জেলা বইমেলাতেই পাঠক শ্রেণির প্রশংসা অর্জন করে জেলা বইমেলা। এবছরও দেশ-বিদেশের বিভিন্ন ভাষার নামিদামী প্রকাশনা সংস্থা, স্থানীয় প্রকাশক এবং পুস্তক বিক্রেতারা নিজেদের সম্ভার নিয়ে হাজির হবেন।

জনশিক্ষা প্রসার ও গ্রন্থাগার পরিষেবা বিভাগের স্বাধীন দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরী  বলেন, "বই হচ্ছে জ্ঞানের ভান্ডার। তাই পাঠকদের জ্ঞানের জগতকে নাগালের মধ্যে নিয়ে আসার জন্যই আমাদের  কলকাতা-সহ জেলায় জেলায় এই বইমেলা করা।"  বইমেলা- বইয়ের মেলা, পাঠকের মেলা। বইমেলা- লেখকের মেলা, প্রকাশকের মেলা। বইমেলা - জ্ঞানের মেলা, প্রাণের মেলা। আর সবশেষে বলতেই হয়, বইমেলা মানেই মেলা বইয়ের মেলা। যে মেলা  অচেনাকে  চেনা আর অজানাকে জানার মেলা।

First published: March 1, 2020, 1:07 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर