corona virus btn
corona virus btn
Loading

মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা রাজ্যপালের, বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ-উপাচার্য নিয়োগ বিতর্কে ইতি টানতে চান ধনখড়

মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা রাজ্যপালের, বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ-উপাচার্য নিয়োগ বিতর্কে ইতি টানতে চান ধনখড়
রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়

রাজ্যপালকে শিক্ষামন্ত্রীর মন্তব্যে নিয়ে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন " মুখ্যমন্ত্রীর মন্ত্রিসভায় একমাত্র যদি কেউ বন্ধু থাকে তিনি হলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

  • Share this:

#কলকাতা: বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ-উপাচার্য নিয়োগ বিতর্কে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বললেন রাজ্যপাল। বুধবার সকালেই মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা হয় গোটা বিতর্ক নিয়ে রাজ্যপালের। আলোচনার পর আপাতত গোটা বিতর্কেই ইতি টানতে চান বলেও মন্তব্য করেন রাজ্যপাল।তবে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনাতে সন্তুষ্ট বলে বুধবার সাংবাদিক সম্মেলন করে দাবি করেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়।এদিন তিনি বলেন " মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে আজ সকালে ফোনে কথা হয়। ইতিবাচক আলোচনা হয়েছে আমাদের মধ্যে। সহ-উপাচার্য নিয়োগ নিয়ে অনভিপ্রেত পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। এই সময়ে এটা না হলেই ভাল হত। শিক্ষাক্ষেত্রে এখন বিতর্কের সময় নয়।পুরো বিতর্কে আমি ইতি টানতে চাই।মুখ্যমন্ত্রী পদক্ষেপের আশ্বাস দিয়েছেন।"

যদিও তার স্বাক্ষর করা নিয়োগ পত্র প্রত্যাহার করবেন নাকি সে বিষয়ে অবশ্য কোনো মন্তব্য করতে চাননি রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন " আজ মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা হয় ঠিক হয়েছে আমি ও মুখ্যমন্ত্রী একটি মেকানিজম তৈরি করব। যাতে এই ধরনের বিতর্ক তৈরি না হয়। আশা করছি মুখ্যমন্ত্রী পদক্ষেপ নেবেন।"

সোমবার বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ-উপাচার্য পদে বিশ্ববিদ্যালয়ের জুওলজি বিভাগের অধ্যাপক গৌতম চন্দ্রকে নিয়োগ করেন রাজ্যপাল। কিন্তু রাজ্যপাল তার নিজের ইচ্ছামত নিয়োগ করেছে বলে দাবি করে সেই নিয়োগ বাতিল করে দেয় উচ্চ শিক্ষা দফতর। শুধু তাই নয় মঙ্গলবার সাংবাদিক সম্মেলন করে রাজ্যপালকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়।  রাজভবনের তরফেও শিক্ষামন্ত্রীর বক্তব্যের পাল্টা হিসেবে কড়া প্রতিক্রিয়া দেওয়া হয়। যদিও শিক্ষামন্ত্রীর মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে বুধবার সাংবাদিক সম্মেলনে রাজ্যপালকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি অবশ্য শিক্ষামন্ত্রীর মন্তব্যে কোনও প্রতিক্রিয়া দিতে চাননি। রাজ্যপালকে শিক্ষামন্ত্রীর মন্তব্যে নিয়ে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন " মুখ্যমন্ত্রীর মন্ত্রিসভায় একমাত্র যদি কেউ বন্ধু থাকে তিনি হলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। ওনার সঙ্গে প্রায়ই বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আমার কথা হয় ।"

এদিনের সাংবাদিক সম্মেলনে অবশ্য রাজ্যকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করেননি রাজ্যপাল। বরঞ্চ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে আলোচনাকে ইতিবাচক ও প্রশংসনীয় বলেন রাজ্যপাল। এদিনের সাংবাদিক সম্মেলনে কেন্দ্রীয় রাজ্য একসঙ্গে কাজ করার আবেদন ফের জানান রাজ্যপাল। মূলত রাজ্যে করোনা এবং তার সঙ্গে আমফান-এর জন্য রাজ্যের এই চরম সংকটে কেন্দ্র-রাজ্য একসঙ্গে কাজ করা উচিত বলেই মনে করেন রাজ্যপাল। তিনি বলেন "রাজ্য এখন চরম সঙ্কটে।একদিকে করোনা সঙ্গে আমফান। রাজ্যের জন্য ভাবা আমার কর্তব্য। এরকম পরিস্থিতি আগে এরাজ্যে হয়নি। এখন একজোট হয়ে কাজ করার সময়। কেন্দ্র-রাজ্য একসঙ্গে কাজ করতে হবে।"এদিনের সাংবাদিক সম্মেলনে রাজ্যপালের দাবি করেন তার হস্তক্ষেপ এর পরেই রাজ্য সরকার করোনা পরিস্থিতি নিয়ে রিপোর্ট বদলাতে শুরু করে।

Somraj Bandopadhyay

Published by: Elina Datta
First published: June 3, 2020, 6:02 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर