পেঁয়াজের পর এবার আলুর দাম আকাশছোঁয়া...মাথায় হাত আমজনতার

পেঁয়াজের পর এবার আলুর দাম আকাশছোঁয়া...মাথায় হাত আমজনতার

পেঁয়াজের ঝাঁঝ ক্রমেই তীব্র হচ্ছে, দাম আকাশছোঁয়া... সেইসঙ্গে এবার লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়তে শুরু করল আলুর দামও

  • Share this:

Venkateswar Lahiri

#কলকাতা: পেঁয়াজের ঝাঁঝ ক্রমেই তীব্র হচ্ছে, দাম আকাশছোঁয়া... সেইসঙ্গে এবার লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়তে শুরু করল আলুর দামও। বুধবারের পর আজ বৃহস্পতিবারও দাম বাড়ল আলুর। জ্যোতি আলু থেকে চন্দ্রমুখী কিংবা নতুন আলু... দাম বেড়েছে সবেরই।

সঙ্কট মোকাবিলায় বেশ কিছু কড়া দাওয়াইয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল কেন্দ্র। ভিনদেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানির ঊর্ধ্বসীমা তুলে দেওয়া হয়েছিল। পাইকারি ও খুচরো বিক্রেতা ও আড়ৎদারদের কাছে মজুদ রাখা পেঁয়াজের পরিমাণ কমিয়ে সর্বোচ্চ ২৫মেট্রিক টন করা হয়েছিল। আগে এই ঊর্ধ্বসীমা ছিল ৫০ মেট্রিক টন ।

কলকাতা সহ দেশের বিভিন্ন শহরে এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ দফায় দফায় তল্লাসি চালাবে। নিয়মের বাইরে কেউ বেশি পেঁয়াজ মজুত করলে তার ট্রেড লাইসেন্স বাতিল করা হবে। কালোবাজারি রুখতে রাজ্য সরকারও কড়া নজরদারি চালাচ্ছিল । এর জেরে পেঁয়াজের দাম মাঝে কিছুটা কমলেও ফের অগ্নিমূল্য হয়েছে পেঁয়াজ । কোনও কোনও বাজারে বৃহস্পতিবার পেঁয়াজের দাম একলাফে কেজিতে সর্বোচ্চ ৩০ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে। যে পেঁয়াজ ১০০ থেকে ১২০ টাকার মধ্যে পাওয়া যাচ্ছিল, দাম বেড়ে তা হয়েছে ১৪০ টাকা কেজি। শহরের বেশ কিছু নামী বাজারে বিক্রেতাদের কাছে থরে থরে আলু, আদা ও রসুন সাজানো থাকলেও দামের জন্য অধিকাংশ বিক্রেতা আজ পাইকারি বাজার থেকে পেঁয়াজ তোলেন নি। কেউ দুদিন কেউ বা ৩ দিন আগের তোলা পেঁয়াজ ১২০ বা ১৩০ টাকায় বিক্রি করছেন। তাঁদের কারও কাছে ৫ কিলো বা কারও কাছে ৩ কিলো পেঁয়াজ পড়ে রয়েছে।

তবে শুধু পেঁয়াজের দামই অগ্নিমূল্য তা নয়, দাম ঊর্ধ্বমুখী আলুরও। কলকাতার বেলেঘাটা হোক কিংবা মানিকতলা অথবা অন্য কোনও খুচরো বাজার... আলু বিক্রি হচ্ছে বেশ চড়া দামে। জ্যোতি আলু কেজিপ্রতি ১৫ টাকা, চন্দ্রমুখী আলু কেজিপ্রতি ১৮ টাকা এবং নতুন আলু কেজিপ্রতি কোথাও ৩০ টাকা আবার কোথাও বা ৩৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। আলু ব্যবসায়ীদের বক্তব্য, আমদানি কম হওয়ার কারণেই এই মূল্যবৃদ্ধি।

পাইকারি বাজারে গিয়ে জানা যায় ,৫০ কেজির বস্তায় সর্বোচ্চ আড়াইশো টাকা পর্যন্ত দাম বেড়েছে আলুর। পাইকারি বাজার থেকে খুচরা বাজারের ব্যবসায়ীরা ৫০ কেজি জ্যোতি আলুর বস্তা কিনছেন ১১২০ টাকায়। চন্দ্রমুখী আলুর বস্তা কিনছেন ১২৫০ টাকায়, নতুনআলুর দাম ১৩০০ টাকা প্রতি বস্তা।

পেঁয়াজ কিম্বা আলুর দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় সকাল থেকে গেল রাজ্য সরকারের সুফল বাংলা স্টলে লম্বা লাইন। শহরের একাধিক জায়গায় সুফল বাংলা স্টল সকাল থেকেই ভিড় জমিয়েছেন মধ্যবিত্তরা। এখানে খুচরা বাজারের থেকে অনেকটাই দাম কম আলু কিংবা পেঁয়াজের। সুফল বাংলা স্টল এ জ্যোতি আলুর দাম প্রতি কেজি ১৭ টাকা আর পেঁয়াজ প্রতি কেজি ৫৯ টাকা । সুফল বাংলা স্টলে হাজির ক্রেতারা বললেন, বাজারের থেকে এখানে আলু পেঁয়াজ বা অন্যান্য শাক-সবজির দাম অনেকটাই কম। তবে যেভাবে আলু পেঁয়াজ এবং অন্যান্য শাক-সবজির দাম দিনের পর দিন বেড়েই চলেছে তাতে সংসারের দৈনন্দিন খরচা কীভাবে সামালাবেন, তা ভেবে কূলকিনারা পাচ্ছেন না আমজনতা।

এদিকে পেঁয়াজের পর এবার আলুর কালোবাজারি রোধে সচেষ্ট টাস্কফোর্স। বিভিন্ন বাজারে হানা দেওয়ার পাশাপাশি কোনও অসাধু আলু ব্যবসায়ী কৃত্রিমভাবে আলুর দাম বাড়াচ্ছেন কিনা সে বিষয়েও নজরদারি চলছে। সরকারি টাস্কফোর্সের সদস্য রবীন্দ্রনাথ কোলে বলেন, অন্যান্য রাজ্যে আলুর সঙ্কট দেখা দেওয়ায় এ রাজ্যের অনেক আলু ভিন রাজ্যে চলে যাচ্ছে। সেই কারণেই সমস্যা তৈরি হয়েছে। তবে খুব শীঘ্রই আলুর দাম নিয়ন্ত্রণে আসবে বলে তাঁর দাবি। রাজ্যের কৃষি দফতর গোটা বিষয়টির ওপর নজর রেখেছে বলেও জানান তিনি।

First published: 01:32:46 PM Dec 19, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर