corona virus btn
corona virus btn
Loading

পাঁচতলা থেকে ছুড়ে ফেলেছে প্রতিবেশীর তিন শিশুকে, বড়বাজারে শিশুখুনে স্বীকারোক্তি অভিযুক্তর

পাঁচতলা থেকে ছুড়ে ফেলেছে প্রতিবেশীর তিন শিশুকে, বড়বাজারে শিশুখুনে স্বীকারোক্তি অভিযুক্তর
representative image

বড়বাজারে শিশুখুনে স্বীকারোক্তি, পুলিশি জেরায় খুনের কথা স্বীকার করে অভিযুক্ত শিবকুমার

  • Share this:

#কলকাতা: বড়বাজারে শিশুখুনে স্বীকারোক্তি, পুলিশি জেরায় খুনের কথা স্বীকার অভিযুক্ত শিবকুমারের। শিশুদের চেঁচামেচি পছন্দ ছিল না শিবকুমারের, আগেও অনেকবার এ'নিয়ে অশান্তি, মারামারি হয়েছে। শিশুদের ফেলে দেওয়ার হুমকিও দিত শিবকুমার।

শিবকুমারের বিরুদ্ধে ৩০২ ও ৩০৭ ধারায় মামলা দায়ের হয়েছে। প্রতিবেশীরা জানান, '' মদ খেলেই হিংস্র হয়ে ওঠে শিবকুমার। ছেলে, বউকেও মারধর করত।''

বড়বাজারের নন্দরামে নৃশংস ঘটনা! রবিবারের সন্ধেয় নন্দরামে জেগে ওঠে এক নৃশংস-স্বার্থপর দৈত্য। পাঁচতলার বারান্দা থেকে একে একে ছুড়ে ফেলল প্রতিবেশী তিন শিশুকে। হাসপাতালে মৃত্যু দেড় বছরের এক শিশুর, হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছে আরও এক শিশু। অভিযুক্ত শিবকুমার গুপ্তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ঘটনায় লালবাজার থেকে রিপোর্ট তলব করা হয়েছে, রিপোর্ট তলব করেছে রাজ্য শিশু সুরক্ষা কমিশন।

বড়বাজারের নন্দরামে নৃশংস ঘটনায় প্রতিবেশীদের বয়ানে উঠে আসে চাঞ্চল্যকর তথ্য। তাঁদের বক্তব্য, ‘চানাচুরের লোভ দেখিয়ে শিশুদের ডাকে শিবকুমার’। তাহলে কি ঠাণ্ডা মাথায় খুনের ছক কষেছিল শিবকুমার ? চানাচুরের টোপ দিয়ে খুনের পরিকল্পনা ছিল ? চলছে পুলিশি তদন্ত। জানা যায়, রবিবার চানাচুরের ‘টোপ’ দিয়ে শিশুদের ডাকে শিবকুমার। কিছুক্ষণ পরই ১ শিশুকে ছুড়ে ফেলে, অন্য ২ শিশু সেই ঘটনা দেখে ফেললে তাদেরও বারান্দা থেকে ছুড়ে ফেলে শিবকুমার। বারান্দার রেলিং ধরে প্রাণে বাঁচে ১ শিশু।

রবিবার সন্ধেয় দানবীয় ঘটনাটি ঘটে বড়বাজারের নন্দরাম মার্কেটের পাশে, ১১৩, এনএস রোডে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, সন্ধে ছ’টা নাগাদ বাড়ির বারান্দায় খেলছিল একই পরিবারের তিন শিশু। তাতেই বেজায় চটে যায় তাদের প্রতিবেশী শিবকুমার গুপ্তা। আচমকাই দেড় বছরের শিশুটিকে বারান্দা থেকে নীচে ফেলে দেয় শিবকুমার। এরপর বছর ছয়ের আরেক শিশুকেও তুলে ফেলে দেয়। বছর সাতের আরেকটি শিশুকে ফেলতে গেলে, কোনওমতে রেলিং জড়িয়ে ধরে মেয়েটি। স্থানীয়রা তড়িঘড়ি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে, দেড় বছরের শিশুটিকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। আরেকটি শিশু এনআরএসে ভর্তি।

স্থানীয়দের দাবি, প্রতিবেশী রাজকুমার সাউয়ের পরিবারের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরেই বচসা চলছিল বছর পঞ্চান্নর শিবকুমারের। বারান্দায় খেলাধুলো, জল ফেলা নিয়েও আপত্তি ছিল তাঁর। সেই ক্ষোভ থেকেই এই ঘটনা বলে মনে করছেন বাসিন্দারা। ঘটনার পরই নিজের ঘরে ঢুকে দরজা বন্ধ করে দেয় শিবকুমার। স্থানীয়দের থেকে খবর পেয়ে তড়িঘড়ি ঘটনাস্থলে যায় বড়বাজার ও পোস্তা থানার পুলিশ। ঘর থেকে প্রথমে আটক ও পরে গ্রেফতার করা হয় শিবকুমার সাউকে। ঘটনার তদন্তে বড়বাজার থানার পুলিশ ও লালবাজারের গোয়েন্দা বিভাগ।

Published by: Rukmini Mazumder
First published: June 15, 2020, 7:43 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर