• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • ABHISHEK BANERJEE TO REACH TRIPURA TOMORROW TMC OPERATION MAY GET NEW HYPE FROM TOMORROW AKD

Abhishek Banerjee to reach Tripura| রাত পোহালেই অভিষেকের পা ত্রিপুরায় || বাংলার ছকে কিস্তিমাতে তৃণমূলের বোধন কালই

যুগলবন্দি || যাত্রা শুরু ত্রিপুরায়।

Abhishek Banerjee to reach Tripura| তৃণমূলের লক্ষ্য অন্য রাজ্যে সাম্রাজ্যবিস্তার। ঘুরিয়ে বললে আঞ্চলিক দলের তকমা সরিয়ে সর্বভারতীয় হয়ে ওঠা।

  • Share this:

    #কলকাতা: সোমবার, ২ অগস্ট ত্রিপুরা যাচ্ছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। এ যাওয়া নিছক একজন রাজনৈতিক নেতার ভিনরাজ্যে হঠাৎ সফর নয়। অভিষেক যাচ্ছেন আটঘাট বেঁধে। তিনি পৌঁছনোর অনেকটা আগেই ত্রিপুরায় পৌঁছবেন শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু। ত্রিপুরাতে দিল্লি থেকে উড়ে যাবেন ডেরেক ওব্রায়েন, কাকলি ঘোষ দস্তিদাররাও। থাকতে পারেন শ্রমিক সংগঠনের নেতারা ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায়ও। ইতিমধ্যেই পৌঁছে গিয়েছেন যুবনেতা দেবাংশুও। তাই রাজনৈতিক মহল মনে করছে, অভিষেক যাবেন মিশন ২০২৩-এর এর ব্লুপ্রিন্টে শিলমোহর দিতে। আরও সরলীকরণ করে বললে, সাংগঠনিক কাঠামো রূপায়ণ হবে তাঁর হাত ধরেই।

    ২ মে তৃণমূল তৃতীয় বার ক্ষমতায় আসার পর এই অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় সদর্পে ঘোষণা করেছিলেন, ভিনরাজ্যে একটি দুটি আসন জিততে যাবে না তৃণমূল। বরং তৃণমূলের লক্ষ্য অন্য রাজ্যে সাম্রাজ্যবিস্তার। ঘুরিয়ে বললে আঞ্চলিক দলের তকমা সরিয়ে সর্বভারতীয় হয়ে ওঠা। আর সেই লিটমাস টেস্টের ল্যাবরেটরি হিসেবে পড়শি রাজ্য ত্রিপুরাকেই দেখছে তৃণমূল।

    ইতিমধ্যেই ত্রিপুরার জমি চষতে শুরু করেছে আইপ্যাকের টিম। লক্ষ্য ত্রিপুরার মানুষের মন বোঝা। বিপ্লব দেব সরকারের উপর মানুষের ক্ষোভ বিক্ষোভের জায়গাগুলিকে চিহ্নিত করা। এক্ষেত্রে তৃণমূলের অন্যতম অ্যাডভান্টেজ- ত্রিপুরার মানুষের মুখের ভাষাও বাংলা। শুধু ভাষা সংস্কৃতি নয়, খাদ্যাভ্যাস রুচি জীবনযাপন তরিকায় দুই রাজ্যের প্রভেদ খুবই সামান্য। এই কারণে তৃণমূল চাইছে ত্রিপুরার সাংস্কৃতিক আবহে ছাপ ফেলতে। শনিবারই কের উৎসব উপলক্ষ্যে তৃণমূলের তরফ থেকে ত্রিপুরাবাসীকে শুভেচ্ছা জানাতে দেখা যায় তৃণমূলের নেতামন্ত্রীদের। শুভেচ্ছা জানান মমতা বন্দ্যোপাধ্যাও। এই সব পদক্ষেপকেই আসলে সলতে পাকানো হিসেবে দেখছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা। এবং মনে করা হচ্ছে, কী ভাবে সুরটা উচ্চগ্রামে বেঁধে এই সূচক বিন্দু থেকেই  ২০২৩ কে পাখির চোখ করা যায় তা অভিষেকের উপস্থিতিতেই ঠিক করবে দল।

    ২০২৩-কে তৃণমূল দেখছে অমিত-সম্ভাবনা হিসেবে। বলা ভালো ২০২৪-এর বড় লড়াইয়ের ওয়ার্ম আপ হিসেবে। তৃণমূল ভালোই জানে বিপ্লব দেবের সরকারকে ধাক্কা দিতে পারলে তার অভিঘাত গিয়ে পৌঁছবে দিল্লির দরবারে। আর এই কারণেই আগেভাগে অঙ্ক কষছেন দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

    Published by:Arka Deb
    First published: