বাঙালির ‘দাদাগিরি’-র দিন, অভিজিৎ-সৌরভে গর্বিত গোটা দেশ

বাঙালির ‘দাদাগিরি’-র দিন, অভিজিৎ-সৌরভে গর্বিত গোটা দেশ
  • Share this:

#কলকাতা: ২০১৯ সালের ১৪ অক্টোবর। আজ বাঙালির বড়দিন। বাঙালির দাদাগিরি দেখানোর দিন। একদিকে নোবেল পেলেন অর্থনীতিবিদ অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়। আর এ দিনই ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের মাথায় সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়।

এ শুধু বাঙালির দিন। শ্রেষ্ঠত্বের স্বীকৃতির দিন। একদিকে নোবেল জয়। আরেকদিকে বিসিসিআইয়ের দায়িত্ব।

অনেকে বলেন, বাঙালি নাকি বাঁচে অতীতে। অতীতের গৌরব ভাঙিয়েই এখনও বুক ফোলায়। বাঙালির এক রামমোহন ছিল, বিদ্যাসাগর ছিল, নেতাজি ছিল, হেমন্ত ছিল, সৌরভ ছিল। সবই ছিল। এখন আর কীই বা আছে। আছে বলতে তো সেই রাজনীতি। রাজনীতি নিয়ে বছরভর চাপানউতোর। সাধের দুর্গাপুজোও ছাড় পায় না। বাঙালি নাকি বর্তমানে বাঁচে বটে, কিন্তু, থাকে অতীতে। এই সমালোচনা জোর ধাক্কা খেল ঠিক লক্ষ্মীপুজোর পরের দিন। ধনদেবীর পুজো করে বাঙালির কতটা লক্ষ্মীলাভ হয়েছে জানা নেই, তবে, বাঙালির মাথায় আবার শ্রেষ্ঠত্বের শিরোপা। যাকে কুর্নিশ করে গোটা বিশ্ব, সেই নোবেল পুরস্কার জয়। অর্থনীতিতে আবার নোবেল পেলেন এক বাঙালি। অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়। যাঁর বেড়ে ওঠা এই কলকাতাতেই। প্রথমে সাউথ পয়েন্ট, তারপর প্রেসিডেন্সি। এই শহর জানে তাঁর অনেক প্রথম কিছু। এই শহরেই তাঁর প্রথম গরিবি দেখা। সেই গরিবির অন্ধকার থেকে আলোর পথে হাঁটতে তিনি বিশ্বকে পথ দেখিয়েছেন। এখন তিনি মার্কিন নাগরিক। কিন্তু, শিকড়টা এ বাংলায়।

আরেকজনেরও তাই। তিনি ক্রিকেট বিশ্বের প্রথম সারির নাগরিক। ঠিকানা- এই কলকাতা। তিনি বাইশ গজে বার বার দেখিয়েছেন, কীভাবে ফিরে আসতে হয়। সবাই যখন তাঁকে বাদের খাতায় ফেলতে উঠে পড়ে লেগেছে, তখনই তিনি একা ব্যাট হাতে ঘুরে দাঁড়িয়েছেন। তিনি ছিলেন লর্ডস অফ লর্ডস। তিনি স্টিভ ওয়া-দের চোখে চোখ রেখে অস্ট্রেলিয়াকে ঘোল খাইয়েছেন। দেশ-বিদেশ জানে তাঁর ‘বাপি বাড়ি যা’ শট। খেলার মাঠে তাঁর দাদাগিরি দেখে ক্রিকেটপ্রেমীরা বারবার বলেছেন, মহারাজা... তোমারে সেলাম। ক্রিকেট ছেড়েও তিনি ক্রিকেট ছাড়েননি। গত তিন বছর ধরে তিনি সিএবির প্রেসিডেন্ট। আর এবার, হাজারো চাপানউতোরের পর বিসিসিআইয়ের চেয়ারে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। যা ক্রিকেটার এবং প্রশাসক হিসেবে তাঁর দক্ষতারই স্বীকৃতি।

অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায় এবং সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় আবার দেখিয়ে দিলেন, বাঙালি এখনও পারে। বাঙালি এখনও ইতিহাস গড়তে পারে। ২০১৯ সালের ১৪ নভেম্বর। দিনটা তাই বাঙালির।

First published: 06:15:44 PM Oct 14, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर