হাতের ট্যাটুতে ‘মা’ আর ‘S’! অজ্ঞাত পরিচয়ের রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার বাইপাসে

হাতের ট্যাটুতে ‘মা’ আর ‘S’! অজ্ঞাত পরিচয়ের রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার বাইপাসে
প্রতীকী চিত্র ।

বাইপাসের ধারের ওই বেসরকারি হাসপাতালের পঞ্চাশ মিটার দূরত্বে সার্ভিস রোডে বেশ কয়েকটি জায়গাতে রক্তের দাগ পাওয়া গিয়েছে |

  • Share this:

    ARPITA HAZRA

    #কলকাতা: বাইপাসের ধারে  রহস্যজনক মৃত্যু  যুবকের!  ফুলবাগান থানা  এলাকায় বাইপাসের  সল্টলেক স্টেডিয়াম মেট্রো স্টেশনের নিচে সার্ভিস  রোডের ফুটপাতে এক অজ্ঞাত পরিচয় যুবকের  রক্তাক্ত  দেহ উদ্ধার করে পুলিশ | পুলিশ সূত্রের খবর, মাথায় আঘাতের  চিহ্ন  রয়েছে ওই যুবকের | ওই যুবকের পরিচয়  জানা যায়নি | ডান হাতে ট্যাটু  আছে | যেখানে বাংলায় লেখা "মা"  ও ইংরেজিতে  লেখা "S"  | এই ট্যাটুর  ইঙ্গিত ধরে তদন্তকারীরা  ওই যুবকের সম্পর্কে জানার চেষ্টা করছে |


    পুলিশ সূত্রের খবর, বাইপাসের ধারে একটি বেসরকারি  নামী  হাসপাতালের  থেকে ঢিল ছোড়া দূরত্বে সোমবার ভোরে উদ্ধার হয় ওই যুবকের দেহ | আশেপাশের পথচারীরা দেখতে পেয়ে খবর দেন থানায় । এরপরই ফুলবাগান থানা থেকে পুলিশ আসে  ঘটনাস্থলে | চাঞ্চল্য ছড়ায় এলাকায় | বছর ত্রিশের  ওই যুবকের রক্তাক্ত  দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের  জন্য পাঠানো হয়েছে | ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে জানা যাবে, কীভাবে মৃত্যু  হয়েছে |

    পুলিশ সূত্রের খবর, ওই বেসরকারি  হাসপাতালের পঞ্চাশ মিটার দূরত্বে সার্ভিস রোডে বেশ কয়েকটি জায়গাতে রক্তের দাগ পাওয়া গিয়েছে | হাসপাতালের ৭০ মিটার দূরে মিলেছে আরও কিছু রক্তের দাগ ও সেখানেই  ফুটপাতে মিলেছে ওই যুবকের দেহ | মাথায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে ও রাস্তায় একাধিক জায়গাতে রক্তের দাগ | খুন নাকি অন্য কোনও ভাবে মৃত্যু হয়েছে খতিয়ে দেখছে তদন্তকারীরা | ওই যুবকের পরিচয় জানার জন্য ইতিমধ্যেই  ছবি পাঠানো হয়েছে আশপাশের থানা গুলিতে | উল্লেখ করা হয়েছে ডান হাতের ট্যাটুর কথাও | ওই যুবকের পরিচয় জানা গেলে তদন্তের জট অনেকটাই খুলবে বলে মনে করছে পুলিশ|

    ওই যুবকের সঙ্গে কারও কোনো ঝামেলা ছিল কিনা, সেই বিষয়ে জানার চেষ্টা করা হচ্ছে | অনুমান, কোনও ভাবে কেউ হত্যা করার সময়  ওই যুবক রক্তাক্ত  অবস্থায় ছুটতে গিয়ে রাস্তায় রক্ত এদিক ওদিক পড়েছেন কিনা সেই বিষয়টিও খতিয়ে দেখা হচ্ছে | খুন বলে প্রাথমিকভাবে অনুমান পুলিশের | তবে ময়নাতদন্তের  রিপোর্ট আসার পরই পুরো বিষয়টা জানা যাবে| খুন নাকি  অন্য কোনও কারণে  এই রহস্য মৃত্যু তা খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারীরা |

    Published by:Simli Raha
    First published: