বাম্পার অফার: আকাশ ছোঁয়া পেঁয়াজ, এক টাকায় পেঁয়াজি !

বাম্পার অফার: আকাশ ছোঁয়া পেঁয়াজ, এক টাকায় পেঁয়াজি !

বাজারে যখন পেঁয়াজ ১০০ টাকা কেজি তখন এক টাকাতেও আপনি পেঁয়াজি খেতে পারেন এই শহরেই।

  • Share this:

Soujan Mondal

#কলকাতা: বাজারে যখন পেঁয়াজ ১০০ টাকা কেজি তখন এক টাকাতেও আপনি পেঁয়াজি খেতে পারেন এই শহরেই। বাঘাযতীন স্টেশন এর দু নম্বর প্লাটফর্ম থেকে বেরিয়ে বললেই যে কেও দেখিয়ে দেবে মাসির দোকান। দীর্ঘ ২২ বছর ধরে মাসি বিক্রি করে চলেছেন তেলেভাজা। আর বরাবরই মাসি ট্রেন থেকে নামা বাড়ি ফেরত মানুষজনকে মুগ্ধ করে চলেছেন নিজের হাতের গুণে।

বাজারে পেঁয়াজ অগ্নিমূল্য। দাম বাড়তে বাড়তে এখন ১০০ টাকা। শেষ পর্যন্ত কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে কেও জানে না। কিন্তু পেঁয়াজি দাম বাড়ে না দীপু মাসির দোকানে। বাঘাযতীন স্টেশনের ২ নম্বর প্ল্যাটফর্ম থেকে বেরিয়ে জোড়া ব্রিজের দিকে যাওয়ার জন্য যে রাস্তা তার মুখেই দোকান দিপু মাঝির। ২২ বছর ধরে তেলেভাজা বিক্রি করে চলেছেন। মাসির দোকানের তেলেভাজার দাম বরাবরই কম। কিছুদিন আগেও টাকায় দুটো করে পেঁয়াজি পাওয়া যেত। কিন্তু এখন পেঁয়াজের দাম আকাশছোঁয়া হওয়ায় দাম বাড়াতে বাধ্য হয়েছেন মাসিও। এখন তিনি একটা পেঁয়াজী দাম করেছেন এক টাকা। এতে অবশ্য কিছুটা লোকসান গুনতে হচ্ছে দিপু মাসিকে। কিন্তু খরিদ্দার ধরে রাখতে এক টাকাতেই পিয়াজি বিক্রি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। এখন আর একা দোকান সামলে উঠতে সক্ষম হন না দিপু মাঝি। তাই গত কয়েক বছর ধরে মাসির সঙ্গ দিচ্ছেন তার বৌমা শিখা মাঝি। বৌমার বক্তব্য, পেঁয়াজের দাম যতই বাড়ুক না কেন, তারা খরিদ্দারদের এই দামে তেলেভাজা খাবেন। এতে কিছুটা ক্ষতি হলেও খরিদ্দার ফেরাতে পারবেন না ।

শুধুমাত্র পেঁয়াজি নয় এই দোকানে অন্যান্য তেলেভাজার দামও অন্যান দোকানের থেকে অনেক কম, যেমন আলুর চপ ৩ টাকা, বেগুনি ২ টাকা। একে কম দাম, তারওপর মাসির হাতের জাদু এই দোকানে একবার জিনি তেলেভাজা খেয়েছেন তার পক্ষে দ্বিতীয় বার না এসে থাকতে পারাটা মুশকিল। স্বাভাবিকভাবেই প্রতিদিন সন্ধ্যা বেলা ট্রেন থেকে নেমে বাড়ি ফেরার পথে মাসির দোকানে ভিড় জমান বহু মানুষ। তাদের বক্তব্য, এখন সাইজে কিছুটা ছোট হয়েছে। তাতে কি? স্বাদের কোন হেরফের হয়নি মাসির হাতের তেলেভাজার। তারপর দাম নিতান্তই কম। ১ টাকায় পেঁয়াজি এই বাজারে কল্পনাই করা যায় না। তাই অনেকেরই থেকেই মুড়ি আর সাথে মাসির হাতের তৈরি পেঁয়াজি নিয়ে খেতে খেতে বাড়ি ফেরা রোজকার অভ্যাস করে ফেলেছেন।

First published: 09:43:34 PM Nov 27, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर