corona virus btn
corona virus btn
Loading

রেশনে কারচুপি! নজর রাখছে বিশেষ যন্ত্র

রেশনে কারচুপি! নজর রাখছে বিশেষ যন্ত্র
File photo

রেশনে কারচুপি! নজর রাখছে বিশেষ যন্ত্র

  • Share this:

#কলকাতা: রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে বিনামুল্যে কত গ্রাহক রেশন পাচ্ছেন। সেই সংক্রান্ত তথ্য এবার কলকাতায় খাদ্য ভবনে বসে পেয়ে যাচ্ছেন আধিকারিকরা। চলতি মাসের প্রথম চার দিনে প্রায় আড়াই কোটি মানুষ বিনামূল্যে রেশন সামগ্রী হাতে পেয়েছেন বলে দফতর সূত্রে খবর। রাজ্যের রেশন পরিচালন ব্যবস্থা গোটাটাই এখন অনলাইন ব্যবস্থার সাথে জুড়ে দেওয়া আছে। রাজ্যের প্রায় ২০ হাজার রেশন দোকানে ইতিমধ্যেই বসিয়ে দেওয়া হয়েছে ইলেকট্রনিক পয়েন্ট অব সেলস যন্ত্র। যার ফলে ডিজিটাল রেশন কাড ও কুপনের নম্বর ইলেকট্রনিক পয়েন্ট অব সেলস যন্ত্রে দিলেই কত সংখ্যক গ্রাহক,কী পরিমাণ খাদ্য সামগ্রী পাচ্ছেন, তার দ্রুত হিসেব রাজ্যের খাদ্য দফতর পেয়ে যাচ্ছে। রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক জানিয়েছেন, "এভাবেই প্রতিদিন রাত ৯'টার মধ্যে আমরা সমস্ত তথ্য পেয়ে যাই। জেলা পিছু সমস্ত তথ্য যেমন পাওয়া যাচ্ছে তেমনি কত সংখ্যক খাদ্যশস্য খরচ হল সেই হিসেবও কেন্দ্রীয় ভাবে আমাদের কাছে থাকছে।" গত ১লা মে থেকে রাজ্যে রেশন দেওয়াকে কেন্দ্র করে একাধিক জেলা থেকে অশান্তির খবর এসেছে। ইতিমধ্যেই ১৭ জন রেশন ডিলারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। ৩'রা মে সবচেয়ে বেশি মানুষ রেশন তুলেছেন সংখ্যা ১ কোটি ৫৭ লক্ষ ৯৭ হাজার ২২২ জন। ১লা মে রেশন তুলেছেন ৬৩ লক্ষ ৬৯ হাজার ৪০৬ জন ও ২ রা মে রেশন তুলেছেন ১ কোটি ৪ লক্ষ জন। মাসের প্রথম তিন দিনেই যত সংখ্যক মানুষ রেশন তুলেছেন তাতে ২৫% রেশন গ্রাহকের কাছে খাদ্য সামগ্রী পৌছে গেছে বলে দাবি খাদ্য দফতরের। এক মাসের পুরো বরাদ্দ এখন একসাথে দিয়ে দেওয়া হচ্ছে। জাতীয় খাদ্য সুরক্ষা প্রকল্পে যারা আটা পাবেন তাদের শুধু দু'দফায় রেশন দোকানে এসে সামগ্রী নিতে হবে। ইলেকট্রনিক পয়েন্ট অব সেলস যন্ত্র থাকায় সহজেই রাজ্যের হিসেব পেয়ে যাচ্ছে খাদ্য দফতর। এক্ষেত্রে ধরা পড়ে যাচ্ছে প্রকৃত বরাদ্দের থেকে কারা কম পরিমাণ খাদ্য সামগ্রী দিচ্ছেন। তবে হুগলি, দক্ষিণ ২৪ পরগণা, বীরভূম থেকে ঘন ঘন অভিযোগ আসার কারণে সেখানে নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। অন্যদিকে, চলতি মাসে রমজান থাকার কারণে রেশনে ময়দা, ছোলা, চিনি দেওয়া হবে। অন্ত্যোদয় অন্ন যোজনা এবং এস পি এইচ এইচ গ্রাহক যারা তারা এই সব খাদ্য সামগ্রী পাবেন। মে মাসের ১১ তারিখ থেকে ২৪ তারিখ অবধি এই খাদ্য সামগ্রী দেওয়া হবে।

First published: May 5, 2020, 5:08 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर