• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • A DEAD BODY FOUND IN HARIDEVPUR LED FACTORY QUESTION OVER DEATH AKD

Mysterious Death in Kolkata| হরিদেবপুরের লেদ কারখানায় মিলল ব্যবসায়ীর দেহ, জিএসটি বকেয়ায় আত্মহত্যা নাকি খুন!

হরিদেবপুরে রহস্যমৃত্যু তপন দে নামক এক ব্যবসায়ীর।

Mysterious Death in Kolkata| খুন হলেন তপনবাবু নাকি আত্মহত্যা, দানা বাঁধছে এই প্রশ্নই।

  • Share this:

    #অমিত চক্রবর্তী, কলকাতা: হরিদেবপুর থানা এলাকার চক রামনগরে লেদ কারখানা থেকে  এক ব্যক্তির রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার হলো (Mysterious Death in Kolkata)। পুলিশ সূত্রে খবর, লেদ কারখানার মালিক তপন দে রাত ১১ পেরিয়ে গেলেও বাড়ি না ফিরে আসায় খোঁজ শুরু করেন স্ত্রী।স্বামীর খোঁজে কারখানা এলে কারখানার ঘর থেকে রক্তাক্ত অবস্থাতে দেখতে পান তপনবাবুকে। খুন হলেন তপনবাবু নাকি আত্মহত্যা, দানা বাঁধছে এই প্রশ্নই।

    এদিন বিষয়টি নজরে আসতেই তপনবাবুর পরিবারের তরফে হরিদেবপুর থানায় বিষয়টি জানানো হয়। রাত সাড়ে ১২টা নাগাদ ঘটনাস্থলে পুলিস এসে পৌঁছয়। আসে লালবাজার থেকে হোমিসাইড শাখার আধিকারিকরা। পুলিশ সূত্রে খবর, তপন দে’র গলাতে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ঘর থেকে একটি ছুরি পাওয়া গিয়েছে। কারখানার যে ঘর থেকে দেহ উদ্ধার হয়েছে, তার পাশের বারান্দায় রক্তের ছাপ পাওয়া গিয়েছে। সেখানে কী ভাবে রক্ত এল, বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

    আরও পড়ুন-'ভারতীয় বিমান ব্যবহার করেই ৯/১১-র পুনরাবৃত্তি!' কুড়ি বছর পরে হাড় হিম করা ফোনে ত্রস্ত রাজধানী

    লেদ কারখানার ভিতর থেকে পুলিশ একটি কাগজে লেখা নোট পেয়েছে। তাতে যা লেখা রয়েছে তা থেকে তদন্তকারীরা প্রাথমিক ভাবে মনে করছেন তপনবাবু মানসিক দিক থেকে বিধ্বস্ত ছিলেন। ওই নোট তপনবাবুর লেখা কি না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। পাশাপাশি নোটের বিষয় নিয়েও পরিবারের লোকেদের সঙ্গে কথা বলেছে পুলিস।

    পরিজনদের সঙ্গে কথা বলে পুলিশ জানতে পেরেছেন আর্থিক দিক থেকে অনটনের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছিলেন তপন বাবু। মানসিক ভাবে বিধ্বস্তও ছিলেন তিনি। এমনকি জিএসটি খাতে প্রায় ১লক্ষ ৯৫ হাজার টাকা বকেয়া রয়েছে, এই বকেয়াই হয়তো মাথাব্যথা হয়ে দাঁড়িয়েছিল তাঁর।এই জায়গা থেকে আত্মহত্যার তত্ত্বও উড়িয়ে দিচ্ছেন না তদন্তকারীরা। কাজেই তপনবাবুর ম  খুন নাকি আত্মহত্যা তা নিয়ে এখনও ধন্দে রয়েছেন তদন্তকারীরা। এদিন সকালে ঘটনাস্থলে আসেন ডিসি। ময়না তদন্তের রিপোর্ট এলেই মৃত্যু নিয়ে ধোঁয়াশা কাটবে। ঘটনাস্থলে ফরেন্সিক দল আসবে কিছুক্ষণেই।

    Amit Sarkar

    Published by:Arka Deb
    First published: